টিকটকে অপপ্রচার চালিয়ে শ্রীঘরে পদ্মা সেতুর শ্রমিক

0
237
২৩ বছরের যুবক হেলাল উদ্দিন ঢালী। অনেকদিন ধরেই পদ্মা সেতু নিয়ে অপপ্রচারমূলক বিভিন্ন ভিডিও তৈরি করে টিকটকে পোস্ট করে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে আসছিলেন জাজিরার এই যুবক। পদ্মা সেতুর শ্রমিক হিসেবে কাজ করার ফাঁকে ফাঁকে এসব টিকটক ভিডিও বানাতেন তিনি। অবশেষে তার কুকীর্তি ফাঁস হয়ে গেছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ফেঁসে এখন তিনি শ্রীঘরে জেলের ভাত খাচ্ছেন।
২৩ বছরের যুবক হেলাল উদ্দিন ঢালী। অনেকদিন ধরেই পদ্মা সেতু নিয়ে অপপ্রচারমূলক বিভিন্ন ভিডিও তৈরি করে টিকটকে পোস্ট করে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে আসছিলেন জাজিরার এই যুবক। পদ্মা সেতুর শ্রমিক হিসেবে কাজ করার ফাঁকে ফাঁকে এসব টিকটক ভিডিও বানাতেন তিনি। অবশেষে তার কুকীর্তি ফাঁস হয়ে গেছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ফেঁসে এখন তিনি শ্রীঘরে জেলের ভাত খাচ্ছেন।
Spread the love

২৩ বছরের যুবক হেলাল উদ্দিন ঢালী। অনেকদিন ধরেই পদ্মা সেতু নিয়ে অপপ্রচারমূলক বিভিন্ন ভিডিও তৈরি করে টিকটকে পোস্ট করে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে আসছিলেন জাজিরার এই যুবক। পদ্মা সেতুর শ্রমিক হিসেবে কাজ করার ফাঁকে ফাঁকে এসব টিকটক ভিডিও বানাতেন তিনি। অবশেষে তার কুকীর্তি ফাঁস হয়ে গেছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ফেঁসে এখন তিনি শ্রীঘরে জেলের ভাত খাচ্ছেন।

হেলাল উদ্দিন ঢালী জাজিরা উপজেলার বিকেনগর পূর্ব কাজীকান্দি গ্রামের বাসিন্দা। তার বাবার নাম সিরাজ ঢালী। হেলাল উদ্দিন ঢালী পদ্মা সেতুর নদীশাসন প্রকল্পের শ্রমিক হিসেবে কাজ করে আসছিলেন।

পদ্মা সেতুর নদীশাসন প্রকল্পের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিনোহাইড্রোর শ্রমিক হিসেবে কাজ করে আসছিলেন হেলাল উদ্দিন ঢালী। সম্প্রতি টহল দেওয়ার সময় পশ্চিম নাওডোবা এলাকায় সেনাবাহিনীর সদস্যরা হেলাল উদ্দিন ঢালীকে পদ্মা সেতুর ৪২ নম্বর পিলারের কাছে টিকটক ভিডিও বানাতে দেখেন। সঙ্গে সঙ্গে তাকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছে থাকা দুটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হলে পদ্মা সেতু নিয়ে বিভিন্ন অপপ্রচারমূলক ভিডিও কনটেন্ট পাওয়া যায়।

আটকের পর তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জাজিরা থানার এসআই ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইকরাম হোসেন জানান, হেলাল উদ্দিন ঢালীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হওয়ার পর শরীয়তপুর চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নেওয়া হয়। এসময় তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।