Logo
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ১লা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

করোনা রোগীদের জন্য আইসিইউ বাড়াচ্ছে ইন্দোনেশিয়া

প্রকাশের সময়: ৩:৪৪ অপরাহ্ণ - রবিবার | জুলাই ২৫, ২০২১

তৃতীয় মাত্রা

গত সপ্তাহে রেকর্ড পরিমাণ করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর জেরে এ রোগে আক্রান্ত গুরুতর অসুস্থ রোগীদের জন্য আরও বেশি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) প্রস্তুত করছে ইন্দোনেশিয়া। দেশটির জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী লুহুত পানজাইতান শনিবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।

দেশের যেসব অঞ্চলে করোনার সংক্রমণ-মৃত্যু তুলনামূলকভাবে বেশি, নতুন আইসিইউ নির্মাণে ক্ষেত্রে সেই অঞ্চলসমূহকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে শনিবারের বিবৃতিতে পানজাইতান বলেন, ‘বেশ কিছু কারণে দেশে করোনায় মৃত্যুহার বাড়ছে। এই কারণসমূহ হলো- হাসপাতালগুলো রোগীতে পরিপূর্ণ, যেসব রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন তাদের বেশিরভাগই গুরুতর অসুস্থ ও অক্সিজেন স্যাচুরেশন কম। এছাড়া, হাসপাতালে ভর্তি হতে না পেরে বাড়িতে আইসোলেশনে থাকা অনেক রোগীও মরা যাচ্ছেন।’

করোনার অতি সংক্রামক ধরন ডেল্টার প্রভাবে চলতি জুলাই মাসে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র ইন্দোনেশিয়ায় নিয়ন্ত্রণহীনভাবে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু। এ কারণে ইতোমধ্যে করোনার এশীয় উপকেন্দ্র (এপিসেন্টার) হিসেবে ইতোমধ্যে পরিচিতি পেয়েছে ইন্দোনেশিয়া।

শুক্রবার দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ হাজার ৫৫৬ জন রোগী, যা মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ইন্দোনেশিয়ায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড।

মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত এই দ্বীপরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৩১ লাখ ২৭ হাজার ৮২৬ জন এবং মারা গেছেন মোট ৮২ হাজার ১৩ জন। এর মধ্যে গত সপ্তাহে সবচেয়ে বিপর্যয়কর সময় পার করেছে দেশটি। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত সাত দিনে ইন্দোনেশিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৯৫ হাজার ৭১ জন এবং মারা গেছেন ৯ হাজার ৫২৪ জন।

গত ডিসেম্বর থেকে গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে ইন্দোনেশিয়ার সরকার। ২৭ কোটি জনগণ অধ্যুষিত দেশটিতে এখন পর্যন্ত মাত্র ৭ শতাংশ মানুষকে টিকার আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে।

গত বেশ কিছুদিন ধরে করোনায় দৈনিক আক্রান্ত ও মৃত্যু বেশি ঘটছে ইন্দোনেশিয়ার বৃহত্তম দ্বীপ জাভা ও পর্যটন দ্বীপ বালি। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমসমূহে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে উচ্চসংখ্যক সংক্রমণ ও মৃত্যুর পাশাপাশি বালিতে তীব্র হয়ে উঠেছে মেডিকেল অক্সিজেনের সংকট।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন নতুন আইসিইউ প্রস্তুতের ক্ষেত্রে এই দুই দ্বীপকে আপাতত প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে।

সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি ঠেকাতে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে যে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিল, রোববার তা শেষ হচ্ছে।

এরপর সরকার এই বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়াবে না শিথিল করবে, তা জানতে এখন অপেক্ষা চলছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

অবশ্য সংক্রমণের এই পরিস্থিতিতে সেখানে কঠোর বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানো দরকার নাকি বিধিনিষেধ শিথিল করা উচিত, তা নিয়ে জোর বিতর্ক চলছে ইন্দোনেশিয়া।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির মধ্যে এখনই বিধিনিষেধ শিথিলের বিপক্ষে অবস্থান নিলেও চাকরিদাতাদের বিভিন্ন গোষ্ঠী জানিয়ে দিয়েছে, বিধিনিষেধে ছাড় দেওয়া না হলে গণহারে ছাঁটাই দেখা যেতে পারে বলে সতর্ক করেছে।

রোববার বিধিনিষেধ নিয়ে দেশটির সরকারের সংবাদ সম্মেলন করার কথা রয়েছে; তবে সেটি কখন হবে তা ঠিক হয়নি।

সূত্র : রয়টার্স

Read previous post:
বিএসএমএমইউ ফিল্ড হাসপাতাল চালু হচ্ছে ৩১ জুলাই

তৃতীয় মাত্রা করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় আগামী শনিবার (৩১ জুলাই) থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য...

Close

উপরে