Logo
বুধবার, ১২ মে, ২০২১ | ২৯শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তুরাগে ৯ বছরের শিশুকে ধর্ষনের অভিযোগে কিশোর ও শিশু গ্রেপ্তার

প্রকাশের সময়: ৪:২৯ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | মে ৪, ২০২১

তৃতীয় মাত্রা

তুরাগ থেকে : রাজধানীর তুরাগে ৯ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে কিশোর ফাহিম (১৫) ও শিশু নাজমুল হাসান (১০) নামে ২জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৪ মে) ভোর ৬ টার দিকে তুরাগের ভাটুলিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে বলে জানান, তুরাগ থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (এস আই) মোঃ ওয়াজিউর রহমান। মামলার বরাত দিয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, কয়েকমাস পূর্বে ধর্ষণের শিকার শিশুটির বাবার সাথে তার মায়ের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। আর ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর শিশুটি তার মায়ের সাথে একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছিলো। তার মা স্থানীয় একটি গার্মেন্টসে চাকুরী করতো, তাই দিনের বেলায় শিশুটিকে একাই বাসায় থাকতে হতো। এই সুযোগে গত ০৭/০৪/২০২১ইং তারিখ দুপর আনুমানিক দেড়টার দিকে শিশুটিকে ফুঁসলিয়ে কিশোর ফাহিম তাদের বাসায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। তারপর শিশুটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেয়। একই কায়দায় গত ০৩/০৪/২০২১ইং তারিখ দুপর আড়াইটার দিকে শিশুটিকে ফুঁসলিয়ে শিশু নাজমুল হাসান তাদের বাসায় নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। তারপর শিশুটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেয়। পরবর্তীতে উপরোক্ত ঘটনা ২টি শিশুটি তার মাকে জানালে, তার মা আত্মীয় স্বজনদের সাথে আলাপ আলোচনা করে গত ০৩/০৫/২০২১ইং তারিখ দিনগত রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, যার মামলা নং-২। মামলা হওয়ার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ মে ভোর ৬ টার দিকে অভিযুক্ত কিশোর ফাহিম ও শিশু নাজমুল হাসানকে গ্রেপ্তার করেন। এদিকে ভুক্তভোগী শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি)”তে ভর্তি করা রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত কিশোর ফাহিম বাগেরহাট জেলার, রামপাল থানার, কালিকাবাড়ি গ্রামের ইব্রাহীমের ছেলে ও গ্রেপ্তারকৃত শিশু নাজমুল হাসান, নাটোর জেলার, গুরুদাসপুর থানার, বিলাসা বড় পাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে । বর্তমানে তারা উভয়ে পরিবারের সাথে তুরাগের ভাটুলিয়া এলাকার জৈনক ইব্রাহীম মিয়ার বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতো।

Read previous post:
৩৭ লাখ করে ক্ষতিপূরণ পেল করোনায় মৃত্যুবরণকারী দুই নার্সের পরিবার

তৃতীয় মাত্রা দিনাজপুরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী দুই নার্সের পরিবার ক্ষতিপূরণ হিসেবে সাড়ে ৩৭ লাখ টাকা পেয়েছে। তাদের স্বামীদের অনুকূলে...

Close

উপরে