Logo
মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১ | ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সবুজের সমারোহে লুকিয়ে রয়েছে কৃষকের স্বপ্ন

প্রকাশের সময়: ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০

তৃতীয় মাত্রা

মোঃইমরান ইসলাম,নিয়ামতপুর(নওগাঁ)প্রতিনিধিঃসম্প্রতি নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলায় বন্যার প্রভাবমুক্ত রোপা-আমনের ক্ষেত সবুজ সমারোহে ভরে উঠেছে।সুশোভিত এ রোপা-আমনের ক্ষেত দেখে মনে হবে,এ যেন আবহমান গ্রাম বাংলার উদ্ভাসিত এক রূপ।কৃষকের সোনালী স্বপ্ন যেন লুকিয়ে আছে,এই সবুজ ধান ক্ষেতের মাঝেই।উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, কয়েক মাসের ব্যবধানে চোখ খুললেই দেখা যায়,মনোমুগ্ধকর সবুজ ধান ক্ষেতের অপূর্ব দূশ্য।যতদূর চোখ যায়,শুধু সবুজ আর সবুজ।এসব সবুজ এক একটি ধান ক্ষেতের মাঠ।সময় মত বীজতলা তৈরি,বীজ বপন,চারা রোপণ,আগাছা পরিষ্কার ও কীটনাশক প্রয়োগ করাসহ নানা ধরণের পরিচর্যার কাজ করতে হয় কৃৃষকদের।চারা রোপণ শেষে প্রকৃতির খেয়ালে তা গাঢ় রঙ ধারণ করে।এখন সেই চারা গাছগুলো বড় হয়ে থোর হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।আর কিছুদিন পরই কৃষকদের রোপা-আমন ধান ক্ষেত থেকে বের হবে মৌ মৌ গন্ধ।ধান ক্ষেতের এ দৃশ্য দেখে কৃষকদের মাঝে বেশ স্বস্তি লক্ষ্য করা গেছে।উপজেলার শ্রীনন্তপুর ইউনিয়নের দারাজপুর গ্রামের কৃষক রানা বাবু বলেন,ধান গাছের সবুজ দৃশ্য দেখে পরিশ্রমের কথা আর মনেই পড়ে না।চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুুুকূল থাকায় এবার রোপা-আমন আবাদে ভালো ফলন হবে বলে আশা করছে কৃৃৃৃষকেরা।ধানের বাম্পার ফলন ও ন্যায্য দাম পেলে কৃষকেরা তাদের পরিশ্রমের কথা ভুলে যায়।কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে,চলতি মৌসুমে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ২৯ হাজার ৬শত ৩৩হেক্টর জমিতে আমন ধান চাষের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করেছে উপজেলা কৃষি বিভাগ।তবে বোরো মৌসুমে ধানের ফলন ভালো হওয়ায় এবং বাজার মূল্য বেশি থাকায় কৃষকরা অন্যান্য ফসলের চেয়ে ধান চাষে অনেক আগ্রহী হয়ে উঠেছে।ফলে বন্যার প্রভাব মুক্ত ও অনুকূল আবহাওয়ায় নিয়ামতপুর উপজেলায় এবার লক্ষ্য মাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে রোপা-আমনের চারা রোপণ করা হয়েছে।

Read previous post:
সিঙ্গাপুর ফিরে যাচ্ছেন ড. বিজন কুমার শীল

তৃতীয় মাত্রা আজ রবিবার ভোরে সিঙ্গাপুর ফিরে যাচ্ছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অ্যান্টিবডি এবং অ্যান্টিজেন কিট আবিষ্কারক দলের প্রধান, বিশিষ্ট অণুজীব বিজ্ঞানী...

Close

উপরে