• Saturday, 04 February 2023
ঘোড়াঘাটে মাঁচায় করলা চাষ, দাম পেয়ে খুশি কৃষক

ঘোড়াঘাটে মাঁচায় করলা চাষ, দাম পেয়ে খুশি কৃষক

মোহাম্মদ সুলতান কবির,ঘোড়াঘাট.
 
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে মাঁচা পদ্বতিতে হাইব্রিড জাতের করলা চাষ করছে প্রায় ২৫ টি গ্রামের কৃষক। এ অঞ্চলের মাটি করলাসহ বিভিন্ন প্রকার সবজি চাষের জন্য উপযোগী। গত বছরের তুলনায় কৃষকেরা এ বছর চলতি মৌসুমে বেশী পরিমান জমিতে করলা চাষ করেছেন। বর্তমানে করলার ফলন ও দাম বেশী থাকায় খুশি কৃষকেরা।
 
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার মারুপাড়া, কৃষ্ণরামপুর, সোনারপাড়া, পাবর্তীপুর, বিন্যাগাড়ী, ডাঙ্গা, কুলান্দপুর, শ্রীচন্দ্রপুর, বেগুনবাড়ি, শালিকাদহ, উত্তর দেবীপুর, রঘুনাথপুর, চাঁদপাড়া, ঋষিঘাট, সাতপাড়া, ভর্ণাপাড়াসহ প্রায় ২৫ গ্রামের ২ শতাধিক কৃষক করলার চাষ করছেন।
বর্তমান সময়ে কৃষকের ক্ষেতে মাঁচায় ঝুলছে বিভিন্ন জাতের করলা। তারা করলার ক্ষেতে সেচ, নিড়ানি, ফল সংগ্রহ ও বাজারজাত করণের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। 
 
উপজেলার কৃষ্ণরামপুর সোনারপাড়া গ্রামের ইয়ামিন ইসলাম বলেন, এ বছর ১ একর জমিতে করলা চাষ করেছি যা গত বছরের তুলনায় বেশি। বর্তমানে তিনি করলা মন প্রতি ২ হাজার থেকে ২ হাজার ২ শত  টাকা দরে বিক্রি করছেন। এ বছরে বাজার দর ও আবহাওয়া ভালো থাকলে এ জমিতে ২ লক্ষাধিক টাকার মত করলা বিক্রি করতে পারবেন।
 
উপজেলার বেগুনবাড়ি গ্রামের কৃষক হায়দার আলী বলেন, করলা চাষে গোবর সার, খৈল, রাসায়নিক সার, কীটনাশক ব্যবহার করতে হয়। সেই জমিতে শীতকালীন ফসল আলু চাষ করতে তাদের বেশি সার প্রয়োগ করতে হয় না। 
 
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, জমি থেকে করলা উঠানোর পর কৃষকেরা ফুলকপি, বাঁধাকপি, মরিচ, আলু ও পালং শাকসহ বিভিন্ন ধরনের সবজির লাগাতে পারবেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এখলাছ হোসেন সরকার জানান, গত বছর এ উপজেলায় করলার চাষ হয়েছিল ৬৫ হেক্টর জমিতে আর এ বছর করলা চাষ হয়েছে ৮৫ হেক্টর জমিতে। এ ছাড়াও ১১ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন রকমের সবজি রয়েছে। উপজেলা কৃষি বিভাগ করলা সহ বিভিন্ন সবজি চাষের জন্য কৃষকদের নিয়মিত পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান করা হয়।
 
 
 

comment / reply_from