• Tuesday, 31 January 2023
খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ওপর হামলায় ৭ দিনেও গ্রেফতার হয়নি অভিযুক্তরা

খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ওপর হামলায় ৭ দিনেও গ্রেফতার হয়নি অভিযুক্তরা

তোফাজ্জল হোসেন বাবু,চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধিঃ

পাবনার চাটমোহর উপজেলার জগতলা গ্রামে খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের লোকজনের ওপর হামলার ঘটনার সাত দিন অতিবাহিত হলেও প্রধান অভিযুক্ত দুই বহিস্কৃত যুবলীগ নেতাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে পুলিশ বলছে আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশ সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আসামী গ্রেফতার না হওয়ায় ঐ এলাকার খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ও এলাকার মানুষের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।

অভিযুক্ত দুইজন হলেন, মূলগ্রাম ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সহ সভাপতি জগতলা গ্রামের নুর সালামের ছেলে রবিউল ইসলাম ও ইউনিয়ন যুবলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য একই গ্রামের মৃত. নূরুজ্জামানের ছেলে আমির হোসেন। এমন ঘটনার পরে গত ২৭ ডিসেম্বর রাতে উপজেলা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তাদের বহিস্কারের বিষয়টি জানান।

গত মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) রাতেই হামলার ঘটনায় এই দুই জনকে আসামী করে চাটমোহর থানায় মামলা করেন ভূক্তভোগি পরিবারের সদস্য সুব্রত গমেজ।মামলার বাদী সুব্রত গমেজ বলেন, এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনায় আমরা মর্মাহত হয়েছি। আসামী গ্রেফতার হওয়া নিয়ে আমাদের তেমন কোন মাথা ব্যাথা নেই। মানুষ ভুল করলে সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে সুন্দর পথে ফিরে আসবে এটাই চাওয়া।

আসামীদের আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জালাল উদ্দিন জানান, আমরা আসামীদের এখনও গ্রেফতার করতে পারিনি। তবে তাদের গ্রেফতারে পুলিশ সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে জগতলা গ্রামের মৃত সুবল গমেজের ছেলে সনি গমেজের বিয়ের অনুষ্ঠানে তার বাড়ির মেয়েরা নাচ গান করছিল। তাদের সাথে নাচতে চায় নেশাগ্রস্থ যুবলীগ নেতা আমির হোসেন। এতে তাকে নিষেধ করা হলে সনি গমেজের চাচা সুব্রত গমেজকে মারধোর করে আমির হোসেন। পরের দিন সকালেও তাদের পরিবারের কয়েকজন সদস্য ও নিকটআত্মীয়কে মারধোর করে আমির হোসেন, রবিউল ও তাদের সহযোগিরা। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। পুলিশি প্রহরায় বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে রাতে যুবলীগের ঐ দুই নেতাকে আসামী করে মামলা করেন সুব্রত গমেজ।

comment / reply_from