• Friday, 27 January 2023

কপ২৭: নিঃসরণ নিয়ে নতুন উদ্যোগ গ্রহণ যুক্তরাষ্ট্রের

কপ২৭: নিঃসরণ নিয়ে নতুন উদ্যোগ গ্রহণ যুক্তরাষ্ট্রের

যুক্তরাষ্ট্রের জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক দূত জন কেরি গত বুধবার মিসরের শারম-এল-শেখ অবকাশ কেন্দ্রে চলমান কপ২৭ সম্মেলনে নতুন ‘বৈশ্বিক কার্বন ক্রেডিট বিনিময় উদ্যোগ’ উন্মোচন করেছেন। এর লক্ষ্য গ্রিনহাউস গ্যাস নিঃসরণ করার বিষয়টি মোকাবেলা করা।

এদিকে, জ্বালানি উত্পাদন প্রক্রিয়া পরিবেশ অনুকূল করার জন্য বড় কয়লা উত্পাদক দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬০ কোটি ৩০ লাখ ডলার দেবে বলে জানিয়েছে ফ্রান্স এবং জার্মানি।

মার্কিন বিশেষ দূত জন কেরি বলেছেন যে, তাঁর প্রকাশ করা নতুন বৈশ্বিক কার্বন ক্রেডিট বিনিময় উদ্যোগটি উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও পরিবেশ অনুকূল জ্বালানির পথে যেতে সহায়তা করার ক্ষেত্রে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ ভূমিকা রাখবে।

জন কেরি জানান, ‘এনার্জি ট্র্যানজিশন অ্যাকসিলারেটর’ নামের ওই নতুন কর্মসূচি রকেফেলার ফাউন্ডেশন এবং বেজোস আর্থ ফান্ডের সাথে মিলে বাস্তবায়িত হবে।’

এখনো এ কর্মসূচির ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হয়নি। তবে, জন কেরি জানিয়েছেন, এটি উন্নয়নশীল দেশগুলোকে নবায়নযোগ্য শক্তি খাতের জন্য প্রকল্পে বিনিয়োগ পেতে সহায়তা করবে।

এদিকে, কপ২৭ সম্মেলনের অন্যতম আলোচনা পরিবেশ অনুকূল জ্বালানি প্রযুক্তি স্থানান্তর প্রক্রিয়া কার্যকরে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬০ কোটি ৩০ লাখ ডলার দেবে ফ্রান্স এবং জার্মানি।

গত বুধবার এ ব্যাপারে জানিয়েছে দেশ তিনটি। উচ্চাকাঙ্ক্ষী এক বিনিয়োগ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ফ্রান্স এবং জার্মানি এক ঋণ সমঝোতায় স্বাক্ষর করেছে। এতে, দুই ইউরোপীয় রাষ্ট্রের প্রত্যেকে আফ্রিকার শীর্ষ শিল্পোন্নত দেশটিকে ৩০ কোটি ইউরো পর্যন্ত আর্থিক সহায়তা দিতে পারে। এটি দেশটির কয়লার ওপর থেকে নির্ভরশীলতা কমানোর প্রচেষ্টায় সহায়তা করবে।

বিশ্বের শীর্ষ দূষণকারী ১২ দেশের মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকা অন্যতম একটি। দেশটির মোট বিদ্যুৎ উত্পাদনের ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা হয় কয়লা।

এ সপ্তাহের শুরুর দিকেই সম্মেলনে ৯ হাজার ৮০০ কোটি ডলারের এক বিনিয়োগ পরিকল্পনায় সম্মত হয় বিশ্বের সম্পদশালী রাষ্ট্রগুলো। দূষণকারী জ্বালানি থেকে সরে আসার জন্য বিনিয়োগের ওই প্রস্তাব রেখেছিল আফ্রিকার বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা।

এমন একটি সময় এ সমঝোতা এ চুক্তির বিষয়টি সামনে এলো, যখন দরিদ্র দেশগুলোকে ‘সবুজ অর্থনীতি’ গড়ে তুলতে সহায়তা করার জন্য উন্নত দেশগুলো চাপের মুখে রয়েছে।

গত মঙ্গলবার প্রকাশিত জাতিসংঘ সমর্থিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, বৈশ্বিক উষ্ণায়নের বিপদ থেকে বিশ্বকে মুক্ত করতে হলে উন্নয়নশীল রাষ্ট্র ও উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলোর ২০৩০ সাল নাগাদ বার্ষিক দুই লাখ কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগের প্রয়োজন হবে।

কপ২৭ সম্মেলন এলাকার ভেতরে প্রায় ৫০ জনের মতো অধিকারকর্মীকে গত বুধবার প্রতিবাদ করতে দেখা গেছে। তাঁদের মধ্যে এশিয়া, আফ্রিকা এবং আমেরিকা মহাদেশ থেকে আগতরা ছিলেন। প্রতিবাদকারীরা তেল এবং গ্যাসের মতো জীবাশ্ম জ্বালানিতে বিনিয়োগের অবসান দাবি করেন।
এ সময় এলাকাভিত্তিক নবায়নযোগ্য প্রকল্পে বিনিয়োগ স্থানান্তরিত করারও দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

মূল সম্মেলন কেন্দ্রে প্রতিবাদ নিষিদ্ধ করেছে মিসর কর্তৃপক্ষ বলে জানা যায়। কিন্তু, প্রতিবাদ থামানোর কোনো প্রচেষ্টা তাত্ক্ষণিকভাবে দেখা যায়নি। -সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান, এএফপি।

comment / reply_from

related_post