• Friday, 03 February 2023
আল কায়দা নেতা জাওয়াহিরি হত্যায় পাকিস্তানের ভূমিকা ছিল আমেরিকান ফেলো

আল কায়দা নেতা জাওয়াহিরি হত্যায় পাকিস্তানের ভূমিকা ছিল আমেরিকান ফেলো


মতিয়ার চৌধুরী-লন্ডন :  আল কায়েদা নেতা আয়মান আল জাওয়াহিরি হত্যায় পাকিস্থানের ভূমিকা ছিল। জাওয়াহিরির হত্যায় পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়ে একজন সিনিয়র আমেরিকান এন্টারপ্রাইজ ইনস্টিটিউটের (AEI) ফেলো মাইকেল রুবিন জোর দিয়ে বলেছেন নিশ্চিত যে জাওয়াহিরির হত্যাকাণ্ডে পাকিস্তানের ভূমিকা প্রশংসনীয় তিনি আন্ডারলাইন করে এর কারণ গুলো পরিস্কার করেছেন, প্রথমত “পাকিস্তানের অর্থনীতি হুমকির মধ্যে রয়েছে, এবং দেশটি ধসে পড়ার ঝুঁকিতে রয়েছে। এছাড়া তিনি আরো কয়েকটি দিক উল্লেখ করেছেন। একজন সিনিয়র মার্কিন গোয়েন্দা
কর্মকর্তার মতে ৩১শে জুলাই কাবুলে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত আল কায়েদা নেতা আয়মান আল-জাওয়াহিরির উত্তরাধিকার অস্পষ্ট রয়ে গেছে। আল কায়েদার মাধ্যাকর্ষণ কেন্দ্র সম্পর্কে একটি প্রশ্নের জবাবে জাওয়াহিরির মৃত্যুর পর, মঙ্গলবার ইউএস ন্যাশনাল কাউন্টার টেরোরিজম সেন্টারের ডিরেক্টর ক্রিস্টিন আবিজাইদ ওয়াশিংটন ইনস্টিটিউট আয়োজিত একটি ইভেন্টে এমন্তব্য করেন।


পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স (আইএসআই), ইউরোপিয়ান ফাউন্ডেশন ফর সাউথ এশিয়ান স্টাডিজ (ইএফএসএএস) জানিয়েছে ৯/১১-এর মূল পরিকল্পনাকারী জাওয়াহিরি আফগানিস্তানে তালেবানের দখলের আগ পর্যন্ত পাকিস্তানে বসবাস করছেন বলে জানা গেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয় আয়মান আল জাওয়াহিরিকে ধরতে মার্কিনিরা সাইফ আল আদেল নামে একজন আলকায়দা সদস্যকে ব্যবহার করেছে । উল্লেখ্য যে এই সাইফ আল- আদেল একজন মিশরীয় বংশদ্বোত প্রাক্তন মিশরীয় স্পেশাল ফোর্স অফিসার যিনি আল কায়েদার একজন উচ্চ-পদস্থ সদস্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাকে তথ্যের জন্য ১০মিলিয়ন মার্কিন ডলার পর্যন্ত পুরস্কার দিয়েছে। আবিজাইদ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হুমকির ল্যান্ডস্কেপকেও সম্বোধন করেছিলেন এবং বলেছিলেন যে দেশটি একটি অনির্দেশ্য পরিবেশের মুখোমুখি হয়েছিল।

তিনি বলেন আমেরিকানদের অবশ্যই আল কায়েদা এবং ইসলামিক স্টেটের মতো বিদেশ-ভিত্তিক চরমপন্থী সংগঠনগুলির বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে৷ “অনলাইন পরিবেশ হল যেখানে বেশিরভাগ উগ্রবাদ ঘটছে,”। তার মন্তব্য হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের একটি সাম্প্রতিক মূল্যায়নের প্রতিধ্বনি করেছে, যা নভেম্বরে বলেছিল যে মার্কিন হুমকির পরিবেশ আগামী মাসগুলিতে উচ্চতর হবে, একাকী অপরাধী এবং বিভিন্ন মতাদর্শ দ্বারা
অনুপ্রাণিত গোষ্ঠীগুলি বিপদজনক।


এর আগে ২০২২ সালের ডিসেম্বরে, আল কায়েদা তার নিহত নেতা আয়মান আল- জাওয়াহিরির একটি ৩৫মিনিটের ভিডিও প্রকাশ করেছিল। গোষ্ঠীটি দাবি করেছে যে রেকর্ডিংটি তার দ্বারা বর্ণনা করা হয়েছিল। এদিকে, জাওয়াহিরির লক্ষ্যবস্তুতে পাকিস্তানের জড়িত থাকার সম্ভাবনা একটি বিতর্কিত বিষয় হিসাবে আবির্ভূত হয়েছে, এমনকি যদি মার্কিন বা পাকিস্তান কেউই প্রকাশ্যে এই ধরনের ভূমিকা স্বীকার করেনি। নিউইয়র্ক টাইমস বলেছে, বহু বছর ধরে এটা বিশ্বাস করা হচ্ছিল যে জাওয়াহিরি পাকিস্তানের সীমান্ত এলাকায় লুকিয়ে ছিলেন এবং কেন তিনি আফগানিস্তানে ফিরে আসেন তা এখনও স্পষ্ট নয়। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর জাওয়াহিরির পরিবার কাবুলের সেফ হাউসে ফিরে এসেছে বলে
ধারণা করা হচ্ছে। শীর্ষস্থানীয় গোয়েন্দা সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে আরও দাবি করা হয়েছে যে জাওয়াহিরিকে করাচিতে আশ্রয় দেওয়া হয়েছিল এবং আফগানিস্তানের তালেবানের দখলে কিছু সময় পরে, হাক্কানি নেটওয়ার্ক তাকে চামান সীমান্ত দিয়ে কাবুলে নিয়ে গিয়েছিল। বর্তমানে আফগান –পাকিস্তান সম্পর্ক ভাল খুব একটা নয়। তালেবান তৈরীর পেছনে অন্যতম কারিগর ছিল পাকিস্তান।


বাংলাদেশ থেকে যেসব জঙ্গি তালেবান বাহিনীতে যোগ দিয়েছিল সকলেই পাকিস্তান হয়ে আফগানে প্রবেশ করে এবং প্রাথমিক প্রশিক্ষন দেয়া হত পাকিস্তানের সীমান্ত এলাকায়, প্রথমে পাকিস্তানের একটি মাদ্রাসা ও রেড মস্কে এই প্রশিক্ষন দেয় হয়। পাকিস্তানই একমাত্র দেশ যেখানে সরকারি ভাবে জঙ্গিদের আশ্রয় প্রস্রয় দিয়েছে। এখন তারা দেখছে যে তেহরিকি তালেবানের মত জঙ্গিরা পাকিস্তানের জন্যে হুমকী। তাই তারা বলছে ‘ তারা জঙ্গিদের প্রশ্রয় দেয়না।

বিশ্বসম্প্রদায় জানে আলকায়দানেতা ওসামা বিন লাদেনকেও সরকারী ভাবে আশ্রয় দিয়েছিল পাকিস্তান, উপমহাদেশে জঙ্গিগোষ্টীগুলোর প্রশ্রয়দাতা এই পাকিস্তান। তালেবান, জয়সী মোহাম্মদ, লস্করী তৈয়বা , বাংলাদেশের জেএমবি, আনসার আল ইসলাম, ভারতের ইন্ডিয়ান মোজাহিদিন বার্মার আর্শা সহ সবকটি জঙ্গি সংগঠনকে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে সহায়তা করেছে এবং করছে পাকিস্তানী রাষ্ট্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। যা এখন বেরিয়ে আসছে। বাংলায় একটি প্রবাদ আছে সাপুড়িয়াকে সাপে দংশন করে। পাকিস্তানের বেলায় এর প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে। তাই বলা হয় দুদ-কলা দিয়ে সাপ পোষতে নেই।

comment / reply_from