• Friday, 03 February 2023
অবশেষে সাংবাদিক সম্মেলন করা সেই  কৃষক পেল আইনি  অধিকার

অবশেষে সাংবাদিক সম্মেলন করা সেই কৃষক পেল আইনি অধিকার

নুর রহমান তুষার, ধর্মপাশা, প্রতিনিধি: 
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার সুখাইড় রাজাপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের ঘুলুয়া গ্রামের বাসিন্দা কালা মিয়া (৬৫) প্রতিপক্ষের মারধরে তাঁর চোখ বিনষ্ট হওয়ার ঘটনায় অবশেষে রবিবার রাতে থানায় মামলা নিয়ে ধর্মপাশা থানা পুলিশ। গত ৯নভেম্বর উপজেলার ঘুলুয়া গ্রামের সামনে থাকা টুকের বাজার নামক স্থানে  এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই বৃদ্ধের ছেলে আইয়ূব আলী বাদী হয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে চারজনকে আসামিকে গত ২৬নভেম্বর ধর্মপাশা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। কিন্তু দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভূক্ত করেনি পুলিশ।  এ অবস্থায় ওই বৃদ্ধের ছেলে আইয়ূব আলী থানায় মামলা না নেওয়ার প্রতিবাদে রবিবার দুপুরে উপজেলার বিআরডিবি মিলনায়তনে  এক সংবাদ সম্মেলন করেন।
মামলার এজাহার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গত ৯নভেম্বর বিকেল পাঁচটার দিকে   উপজেলার সুখাইড় রাজাপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের ঘুলুয়া গ্রামের সামনে থাকা টুকের বাজার নামক স্থানে ওই গ্রামের বাসিন্দা বৃদ্ধ কালা মিয়া বাসিন্দা কালা মিয়া (৬৫)কে লাঠি ও লোহার রড দিয়ে মারধর করেন একই গ্রামের বাসিন্দা মোকশেদ মিয়া (৪০) ও তাঁর লোকজন। এতে ওই বৃদ্ধ গুরুতর আহত হলে ওইদিনই তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ময়মনসিংহ ধোপা কলা চক্ষু হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়।
 
গত ২৪নভেম্বর চিকিৎসা শেষে ওই বৃদ্ধ বাড়িতে আসেন।পরে ২৬নভেম্বর আহত ওই বৃদ্ধের ছেলে আইয়ূব আলী বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন। কিন্তু দুই সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভূক্ত করেনি পুলিশ। এ অবস্থায় থানায় দেওয়া অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভূক্ত না করার প্রতিবাদে ওই বৃদ্ধের ছেলে আইয়ূব আলী এ নিয়ে রবিবার বেলা দুইটার দিকে উপজেলার বিআরডিবি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করেন।
ধর্মপাশা থানার ওসি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগটি সঠিক নয়। এতে আমার কোনো দোষ নেই। বাদীর পরিবারের লোকজন ঘটনাটি গ্রাম সালিসে মীমাংসা করবেন বলে আমাকে জানিয়েছিলেন। এ জন্য  অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভূক্ত করতে দেরি হয়েছে। রবিবার রাতে ওই অভিযোগটি মামলা হিসেবে নথিভূক্ত করা হয়েছে। মামলার তদন্ত চলছে । পাশাপাশি মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের সর্বরকম চেষ্ঠা চলছে।

comment / reply_from