৫ বছর বয়সী শিক্ষার্থীরাও টিকা পাবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

197

একদিনে এক কোটিরও বেশি টিকা দিয়ে করোনা টিকাদানে বিরল নজির গড়েছে বাংলাদেশ। একদিনে এত বেশি সংখ্যক টিকা দেয়ার রেকর্ড ভারত ছাড়া বিশ্বের আর কোনো দেশেরই নেই। এবার প্রাণঘাতী অদৃশ্য করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে টিকাদান কার্যক্রমে নতুন অধ্যায় যুক্ত হতে যাচ্ছে দেশে। শিগগির পাঁচ বছর ও তদূর্ধ্ব বয়সী প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সোমবার (৭ মার্চ) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের টিকা সংক্রান্ত এক জরুরি বৈঠকে অংশ নেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বৈঠক শেষে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা জানান মন্ত্রী।

এসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেছি। শিক্ষার্থী এবং টিকাকেন্দ্রের তালিকা প্রস্তুত করতে বলেছি। তিনি আরও বলেন, প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে আমরা প্রস্তুতি নিয়ে রাখছি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছি। তাদের অনুমোদন পাওয়ামাত্রই আমরা কার্যক্রম শুরু করে দেব।

এছাড়া স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, করোনার বিশেষ টিকা ক্যাম্পেইনে যারা প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন তারা যেকোনো কেন্দ্রে গিয়ে দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিতে পারবেন। এই কার্যক্রমে সোয়া দুই কোটি দ্বিতীয় ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হবে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।