সীতাকুন্ড বিস্ফোরণের ভয়াবহতায় দায়ী অনুমতিবিহীন হাইড্রোজেন পার অক্সাইড! (ভিডিও)

0
150
Spread the love

স্মার্ট গ্রুপের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান বিএম কনটেইনার ডিপো। ২০১১ সালে বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের যৌথ বিনিয়োগে প্রতিষ্ঠানটি আত্মপ্রকাশ করে।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ও অগ্নিকান্ডে প্রায় অর্ধশত প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। আহত হয়েছেন শত শত মানুষ।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার মো. মাইন উদ্দিন জানিয়েছেন, দুর্ঘটনাস্থল বিএম কনটেইনার ডিপোতে হাইড্রোজেন পার অক্সাইডের মতো অধিক দাহ্য পদার্থ পাওয়া গেছে। বিস্ফোরণে কনটেইনার থেকে হাইড্রোজেন পার অক্সাইড ছড়িয়ে পড়ায় আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে দীর্ঘ সময় লাগছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রায় ২৪ ঘন্টা পরও আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসেনি।

অন্যদিকে স্মার্ট গ্রুপের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, হাইড্রোজেন পার অক্সাইড মজুদ রাখার জন্য প্রতিষ্ঠানটির সবধরনের কাগজপত্রই আছে। এমনকি কাস্টমসের ছাড়পত্রেও তা উল্লেখ করা হয়েছে।

কিন্তু বিস্ফোরক পরিদপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, বিএম কনটেইনার ডিপো অনুমতি ছাড়াই হাইড্রোজেন পার অক্সাইডের মতো অধিক দাহ্য পদার্থ মজুত করেছে। শুধু তাই নয়, বিস্ফোরক অধিদপ্তরের তালিকায়ই নাকি নেই বিএম কনটেইনার ডিপোর নাম।

উল্লেখ্য, শনিবার, ৪ জুন রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিএম ডিপোর কনটেইনারের রাসায়নিক থেকে বিকট শব্দে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। প্রায় চার কিলোমিটার দূর থেকেও শোনা যায় সেই বিস্ফোরণের বিকট শব্দ।

বিস্ফোরণের পরপরই কনটেইনার ডিপোতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এই ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের ৯ জন কর্মীসহ নিহত হয়েছেন ৪৯ জন। ১০ জন পুলিশ, ২১ জন ফায়ার সার্ভিস কর্মী, বহু শ্রমিকসহ চার শতাধিক মানুষ দগ্ধ ও আহত হয়েছেন ভয়াবহ এই বিস্ফোরণ ও অগ্নিকান্ডে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।