সিরাজগঞ্জে হেরোইন এবং বুপ্রেনরফিন ইনজেকশনসহ আটক ২

90
গ্রেফতারকৃত আসামীঃ মোঃ লিটন শেখ(৪০) ও মোছাঃ রুবিয়া খাতুন (৪০)
গ্রেফতারকৃত আসামীঃ মোঃ লিটন শেখ(৪০) ও মোছাঃ রুবিয়া খাতুন (৪০)

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, ছিনতাইকারী, জুয়ারি, মাদক ব্যবসায়ী, খুন, এবং অপহরণসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর মামলার আসামী গ্রেফতারে র‌্যাব নিয়মিত অভিযান চালিয়ে আসছে।

১। এর ধারাবাহিকতায় ২৯/০১/২০২২ তারিখ বিকেল ০৩.৩৫ ঘটিকার গোপন সাংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২ এর স্পেশাল কোম্পানীর কোম্পানী কমান্ডার মেজর এম. রিফাত-বিন-আসাদ এবং সহকারী পুলিশ সুপার মিঃ জন রানা এর নেতৃত্বে স্পেশাল কোম্পানীর একটি চৌকষ আভিযানিক দল বগুড়া জেলার শেরপুর থানাধীন সিংহের শিমলা গ্রামস্থ সোবহান, পিতা-মৃত সোহরাব মন্ডলের বসত বাড়ীতে এক মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ০৪ (চার) গ্রাম হেরোইনসহ ০১ জন মহিলা মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত আসামীঃ মোছাঃ রুবিয়া খাতুন (৪০), স্বামী-মৃত শহিদুল ইসলাম শেখ, সাং-চান্দাইকোনা পূর্বপাড়া(শহিদুল চেয়ারম্যানের চাতালের পার্শ্বে), থানা-রায়গঞ্জ, জেলা-সিরাজগঞ্জ।

গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(১) সারণীর ৩৬(ক) ধারায় মামলা দায়ের করত উদ্ধারকৃত আলামতসহ তাহাকে বগুড়া জেলার শেরপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

২। ২৯/০১/২০২২ তারিখ সন্ধ্যা ০৭.০৫ ঘটিকার গোপন সাংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২ এর স্পেশাল কোম্পানীর কোম্পানী কমান্ডার মেজর এম. রিফাত-বিন-আসাদ এবং সহকারী পুলিশ সুপার মিঃ জন রানা এর নেতৃত্বে স্পেশাল কোম্পানীর একটি চৌকষ আভিযানিক দল সিরাজগঞ্জ জেলার সদর থানাধীন ৪ নং ওয়ার্ডস্থ সয়াধানগড়া গ্রামস্থ বনাজী মোড় এর মুক্তি যোদ্ধা মেডিসিন কর্ণারের সামনে পাকা রাস্তার উপর এক মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ১০৮ (একশত আট) টি বুপ্রেনরফিন ইনজেকশনসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত আসামীঃ মোঃ লিটন শেখ(৪০), পিতা-মৃত বাদল শেখ সাং-সয়াধানগড়া, থানা ও জেলা-সিরাজগঞ্জ।

গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(১) এর সারণীর ০৮(গ) ধারায় মামলা দায়ের করত উদ্ধারকৃত আলামতসহ তাহাকে সিরাজগঞ্জ জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, এই মাদক ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন যাবত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিয়ে সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া জেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল।

এ ধরণের মাদক উদ্ধার অভিযান সচল রেখে মাদকমুক্ত সোনার বাংলা গঠনে র‌্যাব-১২ বদ্ধপরিকর।
র‌্যাব-১২ কে তথ্য দিন – মাদক , অস্ত্রধারী ও জঙ্গিমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে অংশ নিন।