সাঁতরে প্রধানমন্ত্রীর সামনে গিয়ে সাহায্য চেয়ে ভাইরাল তরুণী (ভিডিও)

948

বহুল আকাঙ্ক্ষিত স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে ২৫ জুন, শনিবার মাদারীপুরের শিবচরে আওয়ামী লীগের জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেন তিনি। ভাষণ দেওয়ার সময় বিরল এক ঘটনা ঘটে সেখানে। হঠাৎ করেই সাঁতরে মঞ্চের সামনে হাজির হন এক তরুণী। নিজের ওড়না পেতে ধরে সাহায্য চান প্রধানমন্ত্রীর কাছে। এসময় তার সঙ্গে কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। পরে সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে রীতিমতো ভাইরাল হয়ে যায়।

কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিয়ে প্রটোকল ভেঙে প্রধানমন্ত্রীর খুব কাছাকাছি চলে যাওয়ায় নিরাপত্তাকর্মীরা তাকে বাধা দেওয়ার প্রস্তুতি নিলে তাদের নিবৃত্ত করেন মঞ্চে উপস্থিত আওয়ামী লাগের নেতারা। প্রধানমন্ত্রীও একটু এগিয়ে এসে কথা বলেন ওই তরুণীর সঙ্গে। ঝুঁকি থাকার পরও এভাবে ওই তরুণীর সঙ্গে কথা বলার বিষয়টিকে প্রধানমন্ত্রীর উদারতা হিসেবেই দেখা হচ্ছে।

কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের বাংলা বাজার এলাকার ঘাটে আয়োজিত সমাবেশের মঞ্চ সাজানো হয় পদ্মা সেতুর আদলে। মঞ্চের সামনেই পানি আর নৌকা সাজিয়ে তৈরি করা হয় পদ্মা নদীর আবহ। ভাষণ দিতে মঞ্চে ওঠেন শেখ হাসিনা। ভাষণের শেষ মুহূর্তে ‘জয় বাংলা’ শ্লোগান দিচ্ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। ঠিক তখনই ঘটে বিরল ওই ঘটনা। চারপাশের কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে ফাঁকি দিয়ে মঞ্চের সামনের সেই পানিতে নেমে সাঁতরাতে দেখা যায় এক তরুণীকে। লাল কামিজ, লাল ওড়না ও কমলা রংয়ের সালোয়ার পরা ওই তরুণী সাঁতরে মঞ্চের কাছাকাছি চলে যান। হঠাৎ এমন কান্ডে সবার চোখ চলে যায় ওই তরুণীর দিকে। টিভি ক্যামেরাও ঘুরে যায় তার দিকে।

টিভি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিওতে দেখা যায়, হাঁটু পানিতে দাঁড়িয়ে মঞ্চে থাকা প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে হাত নাড়ছেন ওই তরুণী। এসময় নিজের ওড়নাকে আঁচলের মতো করে সামনে পেতে ধরে মঞ্চে দাঁড়ানো শেখ হাসিনাকে কিছু বলার চেষ্টা করতে দেখা যায় তাকে।

ওই তরুণী যখন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছিলেন তখন মঞ্চে উপস্থিত আওয়ামী লীগ নেতাদের একজন হাত নেড়ে তাকে ফিরে যেতে বলেন। পরে প্রধানমন্ত্রীও হাত নেড়ে তাকে ফিরে যাওয়ার ইঙ্গিত দেন। মেয়েটির সঙ্গে তাকে কথাও বলতে দেখা যায়।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা শেষ করে ঘুরে দাঁড়িয়ে হাততালি দিতে থাকেন ওই তরুণী। এসময় ভীষণ আনন্দে হাসতে দেখা যায় তাকে। এরপর সাঁতরে অন্য পাড়ে চলে গেলে তাকে পানি থেকে উঠতে সাহায্য করেন দুজন নারী পুলিশ। এসময় ভেজা শরীরে তাকে কিছুটা ক্লান্ত দেখাচ্ছিল।

সমাবেশ মঞ্চে প্রধানমন্ত্রীর পাশেই ছিলেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ। তার সামনেই ঘটেছে পুরো ঘটনা।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা সম্পর্কে আবদুস সোবহান গোলাপ বলেন, মেয়েটি বলছিল, আমার কিছু নাই। আমারে কিছু একটা করে দেন। এসময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমি দেখবো। তুমি এখন ওখানে যাও। আমি তোমাকে দেখতে বলবো। পানি থেকে আগে ওই দিকে যাও।

আবদুস সোবহান গোলাপ আরও বলেন, আমি তখন মেয়েটিকে বললাম, তোমাকে দেখবেন (প্রধানমন্ত্রী)। তুমি পুলিশের কাছে যাও। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলার পর মেয়েটি কিনারের দিকে যাওয়া শুরু করে। এখনও ওই তরুণীর পরিচয় পাওয়া যায়নি। মেয়েটিকে দেখে মনে হয়েছে, কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। আমরা তার পরিচয় জানার চেষ্টা করছি।

এ প্রসঙ্গে মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল জানান, ঘটনার পরপরই মেয়েটি তার বাড়িতে চলে যায়। তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এত নিরাপত্তার মধ্যেও কীভাবে তিনি প্রধানমন্ত্রীর মঞ্চের সামনে যেতে পারলেন তার জবাব দিতে না পারলেও পুলিশ সুপার বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনেক মানবিক। মেয়েটির সঙ্গে কথা বলে তিনি আরেকবার মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন।