শ্রীলঙ্কায় ব্যাপক সহিংসতা, সরকারদলীয় সাংসদ নিহত (ভিডিও)

54

চরম আর্থিক ও রাজনৈতিক সংকটে বেহাল অবস্থা পর্যটননির্ভর দেশ শ্রীলঙ্কার। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতির অবনতি অবনতি ঘটছে দেশটিতে।

সংকট মোকাবেলায় সরকারের ব্যর্থতার অভিযোগে গত বেশ কিছুদিন ধরেই দেশটিতে ব্যাপক সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলমান রয়েছে। এর মধ্যেই সোমবার, ৯ মে দেশটিতে সবচেয়ে বেশিসহিংসতার ঘটনা ঘটে শ্রীলঙ্কায়।

এদিন সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারী ও সরকার সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষে আহত অন্তত ১৩০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়। এছাড়া রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ভয়ঙ্কর ব্যাপার হলো, সরকারদলীয় একজন সাংসদও নিহত হন সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে।

শ্রীলঙ্কায় নজিরবিহীন বিক্ষোভ ও সহিংসতার মধ্যে পড়ে সরকারদলীয় যে সংসদ সদস্য মারা গেছেন তার নাম অমরকীর্থী আঠুকোরলার।

সোমবার শ্রীলঙ্কার নিতাম্বুওয়া শহরে এমপি অমরকীর্থীর গাড়ির পথ রোধ করে বিক্ষোভ করলে বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালান অমরকীর্থী নিজেই। তার গুলিতে একজন নিহত হন। আহত হন আরেকজন।

ঘটনার পরপরই গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যান অমরকীর্থী। এরপর তিনি ঘটনাস্থলের নিকটস্থ একটি ভবনে আশ্রয় নেন। পরে সেখানে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, অমরকীর্থী আত্মহত্যা করেছেন। বিক্ষোভকারীদের গুলি ছুঁড়ে হত্যা করার পর একটি ভবনে আশ্রয় নেন অমরকীর্থী। পরে সেটি ঘিরে ধরেন অসংখ্য বিক্ষোভকারী। তখন নিজের রিভলবার দিয়ে গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

এদিকে সোমবার পদত্যাগের ঘোষণা দেন শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে। পরে মন্ত্রিসভার এক জরুরি বৈঠক শেষে ছোট ভাই প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের অনুরোধে তার দপ্তরে পদত্যাগপত্র জমা দেন মাহিন্দা রাজাপাকসে। তারপরও থামেনি বিক্ষোভ। প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন বিক্ষোভকারীরা।

দেশটির বিক্ষুব্ধ জনতা মাহিন্দা রাজাপক্ষের পৈতৃক বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছেন। তারা অনেক এমপি ও সাবেক মন্ত্রীদের বাড়িতেও আগুন দেন। এসএলপিপির নেতাকর্মীদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়। আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় বহু যানবাহন।