উচ্চ শিক্ষায় উইকেন্ড সনদের স্বীকৃতি দেয়া হবে না : শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

জুবায়ের আদনান:

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন ‘বর্তমানে অনেকেই উইকেন্ড প্রোগ্রাম দিয়ে বিএসসি-এমএসসি করছেন। উইকেন্ড প্রোগ্রাম দিয়ে বিএসসি-এমএসসি করলে তার মান কেমন হয় তা আমি জানি না। আমাদের দেশের কিছু বিশ্ববিদ্যালয় এধরনের সনদ দিচ্ছেন। আমি অত্যন্ত দুঃখের সাথে বলছি তাদের স্বীকৃতি দেয়া হবে না।’ আজ ঢাকা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে জাতীয় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শিক্ষক সমিতির জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, কারিগরি শিক্ষা নিয়ে কেউ বেকার থাকে না। সারা বিশ্বেই কারিগরি শিক্ষায় দক্ষ ব্যক্তিদের কাজের সুযোগ রয়েছে। সরকার দক্ষতাকে গুরুত্ব দিচ্ছে। গতানুগতিক ডিগ্রি বা সনদের পরিবর্তে অর্জিত জ্ঞান ও দক্ষতা কাজে লাগানোর মধ্যেই রয়েছে সৃজনশীলতা।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কারিগরি শিক্ষা বিস্তারে এ খাতে নতুন পদ সৃষ্টি করে নিয়োগ প্রদান করা হচ্ছে। মানসম্পন্ন বৃত্তিমূলক শিক্ষা প্রদান করতে সংশ্লিষ্ট পেশাজীবীদের দ্বারা শ্রেণীকক্ষে শিক্ষণের বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে বর্তমান কর্মজগতের আমূল পরিবর্তন হবে জানিয়ে ডা. দীপু মনি বলেন কারিগরি শিক্ষা ও দক্ষতাই হবে পরিবর্তিত কর্মজগতে টিকে থাকার হাতিয়ার।

এসময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মানসম্পন্ন শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখতে সক্ষমতার অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি না করার কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, আগের সরকারগুলো নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও ভুক্ত করেছে। আওয়ামীলীগ সরকারের বর্তমান মেয়াদে স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার সঙ্গে দুইবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। দেশে পর্যাপ্ত শ্রমশক্তি তৈরি করতে এবং শিক্ষার্থীদের পরিবারকে বাড়তি শিক্ষাব্যয় থেকে রক্ষা করতে ডিপ্লোমা ডিগ্রি ৩ বছরের হওয়া শ্রেয়।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে বিদ্যুৎ সাশ্রয় করতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাপ্তাহিক ছুটি বাড়ানোর কথা ভাবছে সরকার। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো: ওমর ফারুক, পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো: আমান উল্লাহ খান ইউসুফজী এবং সাধারণ সম্পাদক আখতার হোসেন।