যুব জাগপার ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

57

চানক্য আধিপত্যবাদীদের রুখতে আজ শফিউল আলম প্রধানের বড়ই প্রয়োজন ছিল বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা)’র সভাপতি ও ২০ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লুৎফর রহমান।

আজ ৬ সেপ্টেম্বর (মঙ্গলবার) যুব জাগপার ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সকালে জাগপা’র প্রয়াত নেতা শফিউল আলম প্রধানের মাজার জিয়ারত ও পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে ভারতের বিমানবন্দরে স্বাগত জানাতে ভারত সরকার যেভাবে একজন কম গুরুত্বপূর্ণ প্রতিমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে পাঠিয়েছেন তা বাংলাদেশের মর্যাদাহানি করেছে। সারাবিশ্বে সরকার প্রধানরা  কোন রাষ্ট্রে সফরে গেলে তাঁকে কে স্বাগত জানাচ্ছেন তার উপরে দেশের সরকার দুটির সম্পর্ক ও দেশের ভাবমূর্তি জড়িত থাকে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া ভারতের অভ্যর্থনা দেশের ৩০ লক্ষ শহীদের রক্ত ও ২ লক্ষ মা—বোনের সম্ভ্রমকে হেয়প্রতিপন্ন করেছে বলে আমরা মনে করি।

যুব জাগপা’র নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে খন্দকার লুৎফর রহমান বলেন, কোন দেশে গণতন্ত্র ও মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিতে যত আন্দোলন—সংগ্রাম হয়েছে তার সবগুলোতে যুবকেরাই রাজপথে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশের যুব সমাজকে আওয়ামী সরকার বিভিন্ন ভাবে বিভ্রান্ত করে রেখেছে। সন্ত্রাসবাদ, মাদকাসক্তি ও অনলাইন আসক্তির মাধ্যমে আজকে যুব সমাজকে ধ্বংস করে দেয়ার পায়তারা করছে একটি পক্ষ। দেশের যুবসমাজকে সঠিক পথে আনতে যুব জাগপাকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

জাগপার সাধারণ সম্পাদক এস এম শাহাদত বলেন, আগামী দিনে ভোটারবিহীন এ সরকারকে হটিয়ে বাংলাদেশে গনতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় যুব জাগপা অগ্রণী ভূমিকা রাখবে বলে আমি প্রত্যাশা করি।

এসময় উপস্থিত আরো ছিলেন জাগপা’র কেন্দ্রীয় নেতা আবুল হোসেন, মোঃ আনোয়ার হোসেন, যুব জাগপা সভাপতি আমির হোসেন আমু, যুবনেতা মনজুরুল ইসলাম মঞ্জু, জাহিদুল ইসলাম, ওসমান আলী শেখ, তাজু সিকদার, তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ, আতিকুর রহমান প্রমুখ।