মৌলভীবাজারে সাংবাদিকের ওপর সন্ত্রাসী হামলায় থানায় মামলা

102

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে দৈনিক খবরপত্র পত্রিকার প্রতিনিধি আব্দুল বাছিত খাঁনের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। গত সোমবার (১৫ আগস্ট) রাতে সাংবাদিক বাছিত খাঁনের চাচা আব্দুল খালিক বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে ৪/৫ জনকে অজ্ঞাতনামা করে কমলগঞ্জ থানায় এ মামলা দায়ের করেন। সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খানকে পরিকল্পিতভাবে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় দায়ের করা এ মামলায় ২ জনকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, গত শনিবার দুপুরে মোটরসাইকেল নিয়ে কমলগঞ্জে আসার পথে মুন্সীবাজার-কমলগঞ্জ রোডের উবাহাটা এলাকায় হেমলেট পরা ৩ মোটরসাইকেল আরোহী দুর্বৃত্তরা পথরোধ করে তাকে চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখান থেকে আশংকাজনক অবস্থায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বর্তমানে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে। রোববার রাতে তার জ্ঞান ফেরে। সোমবার দুপুরে তিনি কথা বলেন। হাসপাতালের বেডে সাদা কাপড়ের ব্যান্ডেজে মোড়ানো আব্দুল বাছিত খানের শরীর। তাঁর ঘাড়, হাত, কোমর, উরু এবং পায়ের গোড়ালিতে অগণিত আঘাত করা হয়েছে। সন্ত্রাসীদের দায়ের কুপে সাংবাদিক বাছিতের ডান হাত দেহ থেকে প্রায় বিচ্ছিন্ন, কাঁধে ও পায়েও গুরুতর আঘাত সৃষ্টি হয়। সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শনিবার রাত ও রোববার দিনে দুই দফা অস্ত্রোপচারের পর তার অবস্থা আগের চেয়ে এখন কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তবে এখনও তিনি শঙ্কামুক্ত নন বলে জানান চিকিৎসকরা।

চিকিৎসকরা জানান, সাংবাদিক বাছিতের প্রথম অস্ত্রোপচার সফল হলেও এখনো অনেক অস্ত্রোপচার রয়ে গেছে। কাটেনি শঙ্কা।এদিকে পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আখলিছ মিয়া ও মকবুল মিয়া নামে ২ জনকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদের্শক মহাদের বাচাড় বলেন, সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খানকে হত্যাচেষ্টার মামলায় ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশি জোর তৎপরতা চলছে।

কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান সাংবাদিক আব্দুল বাছিত খানকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় মামলা দায়ের ও দুইজনকে গ্রেফতার দেখানোর সত্যতা নিশ্চিত করে মঙ্গলবার বিকেলে এ প্রতিনিধিকে বলেন, মূল আসামীদের গ্রেফতারের পুলিশের সর্ব্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।