মিরসরাইয়ে বিজিবির সোর্স সন্দেহে দুই ভাইয়ের উপর মাদক ব্যবসায়ীর হামলা

127
হামলার শিকার_ সালাউদ্দিন ও আরিফ হোসেন বাবু
হামলার শিকার_ সালাউদ্দিন ও আরিফ হোসেন বাবু

মিরসরাইয়ের করেরহাটে বিজিবির সোর্স সন্দেহে দুই ভাইয়ের উপর মাদক ব্যবসায়ীর হামলার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম অলিনগর আমলীঘাট ফরেস্ট অফিস এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। হামলার ঘটনার শিকার ঐ এলাকার মৃত রইছ উদ্দিন চৌধুরীর পুত্র প্রবাসী সালা উদ্দিন (৩২) ও তার ছোট ভাই আরিফ হোসেন প্রকাশ বাবু (২৯) স্থানীয় মৃত আহসান উল্ল্যাহর পুত্র মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত সাইফুল (২৮) কে অভিযুক্ত করে জোরারগঞ্জ থানায় পৃথক অভিযোগ দায়ের করেন।
প্রসঙ্গত, গত শনিবার (২২ জানুয়ারী) দিবাগত রাতে মিরসরাই উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের আমতলী এলাকায় সীমান্ত পিলার-২২০৩ এর ২/আর.বি গজ থেকে বিজিবি অলিনগর ক্যাম্প অভিযান চালিয়ে প্রায় ১ লক্ষ টাকা মূল্যের ভারতীয় মেখ ডুয়েল ৩৯ বোতল মদ উদ্ধার করে। মদ উদ্ধারের ওই ঘটনার সূত্র ধরে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে হামলার শিকার প্রবাসী সালা উদ্দিন ও তার ছোট ভাই আরিফ হোসেন প্রকাশ বাবু অভিযোগ তুলেন।

অভিযুক্ত_মোহাম্মদ সাইফুল


হামলার শিকার প্রবাসী সালা উদ্দিন বলেন, শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে করেরহাট বাজারে যাওয়ার সময় বাড়ির অদূরে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত সাইফুল বিনা কারণে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করতে থাকে। আমাকে গালমন্দ করার প্রতিবাদ করলে বিজিবিকে কেন খবর দিয়ে ক্যাম্পে নিয়ে তাকে (সাইফুল) হুঁশিয়ার করা হয়েছে এই বলে সাইফুল ও অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র দিয়ে আমার উপর হামলা চালায় এবং আমার গলায় থাকা ৩১ হাজার টাকা মূল্যের স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়। আমি রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়লে ওরা আমাকে একা পেলে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে। পরবর্তীতে আমি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তাননগর হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে জোরারগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। হামলার ঘটনার পর থেকে আমি ও আমার পরিবারের লোকজন নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি।
অপরদিকে হামলার শিকার আরিফ হোসেন প্রকাশ বাবু বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ আমি সীমান্তবর্তী এলাকায় বিজিবির সোর্স হিসেবে কাজ করে আসছি। শুক্রবার দুপুর ১ টার সময় মোটরসাইকেলযোগে আমলীঘাট ফরেস্ট অফিস যাওয়ার পথে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত সাইফুল পিছন থেকে মাথায় কোপ দিয়ে জখম করলে আমি মাটিতে লুটিয়ে পড়ি। হামলার পর আমার পকেটে থাকা নগদ ৩ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় এবং আমাকে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে।
অভিযুক্ত সাইফুল মুঠোফোনে জানান, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা এবং তাকে ফাঁসানোর জন্য অভিযোগগুলো দায়ের করেছে।
করেরহাট ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আজাদ উদ্দিন হামলার ঘটনার বিষয়ে অবগত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন।
অলিনগর বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আরিফ হোসেন বাবু আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সোর্স হিসেবে কাজ করে এটা সত্য, তবে কি কারণে তার উপর এবং তার বড় ভাইয়ের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে সেটা বলা যাচ্ছে না। এবিষয়ে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশকে সুষ্ঠ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে।
জোরারগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম জানান, শুক্রবার করেরহাটের পশ্চিম অলিনগর আমলীঘাট এলাকায় দুই ভাইয়ের উপর হামলার ঘটনায় দুইটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত সাইফুলকে আটকের উদ্দেশ্যে সরেজমিনে অভিযান চালানো হয়েছে। তবে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি এবং এবিষয়ে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।