মিরসরাইয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় নিহত ৪

মিরসরাইয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় নিহত ৪
মিরসরাইয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় নিহত ৪

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাইয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় ৪ জন নিহত ও একই ঘটনায় ২ পুলিশ সদস্য সহ ৬ জন আহত হয়েছে। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার জোরারগঞ্জ থানাধীন দক্ষিণ সোনাপাহাড় ফিলিং স্টেশন থেকে ২০০ গজ দক্ষিণে চলমান ফিলিং স্টেশনের পূর্ব পার্শ্বে চট্টগ্রাম মুখী লেনে লক্ষিপুর থেকে চট্টগ্রাম গামী জোনাকি পরিবহনের বাস ও লরির সংঘর্ষের পর দাঁড়িয়ে থাকা লোকজনের উপর মিনি কাভার্ড ভ্যানের ত্রিমুখী সংঘর্ষে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় নিহতরা সকলেই মিরসরাইয়ের বাসিন্দা।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, ৯ নং মিরসরাই সদর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের উত্তর গড়িয়াইশ এলাকার শামসুদ্দিনের পুত্র সিএনজি অটোরিকশা চালক শেখ ফরিদ (৩২) ও মোঃ সুমন (২৮), ৮ নং দুর্গাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম রায়পুর এলাকার মোঃ হারুনের পুত্র মেহেদী হাসান (২২), এবং একই ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের পূর্ব রায়পুর এলাকার মৃত কোরবান আলীর পুত্র আবুল কাশেম (৭০)। আহতরা হলেন, জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের এএসআই মোঃ মোস্তফা (৪৫), কনস্টেবল (চালক) শেখ আহমদ (৪৪), জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার গোলাম মাহমুদের পুত্র মোঃ রফিক (২৫), ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা থানার ঈশ্বর গ্রামের নুরুল ইসলামের পুত্র শাহ আলী (২৬), মিরসরাইয়ের দুর্গাপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের আফাজ উদ্দিনের পুত্র আব্দুল আউয়াল (৫০), জোরারগঞ্জ থানাধীন আবুরহাট এলাকার মৃত নুরুল আলমের পুত্র মোঃ নোমান (১৮)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার রাত আনুমানিক রাত সাড়ে দশটার দিকে চট্টগ্রাম মুখী লেনে লরির সাথে বাসের সংঘর্ষ হওয়ার পর হাইওয়ে পুলিশের মোবাইল টিম বিষয়টি তদারকি করার সময় জড়ো হওয়া লোকজনের উপর একই দিক থেকে আসা দ্রুতগতির মিনি কাভার্ড ভ্যান চাপা দিলে ত্রিমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে ৪ জনের মৃত্যু হয়। এসময় আহত হয় আরও ৬ জন।

চৈতন্যেরহাট-তেতৈয়া-জোরারগঞ্জ সিএনজি চালক সমিতির সদস্য মুন্না জানান, কাভার্ড ভ্যান চাপায় নিহত ৪ জনের ৩ জনই এই সমিতির সদস্য ও নিহত শেখ ফরিদ বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এবং আবুল কাশেম চৈতন্যেরহাট বাজারের নৈশ প্রহরী ছিলেন।

মিরসরাই ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ ইমাম হোসেন পাটোয়ারী জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমাদের টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মস্তান নগর হাসপাতালের উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার পলাশ কুমার দে জানান, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ জনকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়েছে কিন্তু তার অনেক আগেই তাদের মৃত্যু হয় এবং আহত ৬ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এবং তাদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থার অবনতি ঘটলে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল (চমেক) প্রেরণ করা হয়।

জোরারগঞ্জ হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর হোসেন বলেন, বুধবার দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে দশটার দিকে চট্টগ্রাম মুখী লেনে লরির (চট্টমেট্রো-ঢ-৮১-২২৪৬) সাথে জোনাকি পরিবহনের বাস (লক্ষিপুর-ব-১১-০০২০) এর সংঘর্ষ হয়। এসময় হাইওয়ে পুলিশের মোবাইল টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিষয়টি তদারকি করার সময় একই লেনে দ্রুতগতির একটা মিনি কাভার্ড ভ্যান (ঢাকা মেট্রো-ন-১৫-১০৭৭) জমায়েত লোকজনকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই ৪ জন নিহত হয়। আহতদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (মস্তান নগর) ভর্তি করার পর সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে ৫ জনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) স্থানান্তর করা হয় এবং আহত কনস্টেবল শেখ আহমদকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানায় নিয়ে আসা হয়, দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িগুলো উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে, নিহতদের লাশ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং এই বিষয়ে আইনী প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।