মালয়েশিয়ার এয়ারপোর্টে যাএীদের উপর ইমিগ্রেশনের কড়া নজরদারি 

140

এম এ আবির, মালয়েশিয়া প্রতিনিধি :  দীর্ঘ ২ বছর বিরতির পর গত ১ লা এপ্রিল থেকে মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক সীমানা পুনরায় খোলার পর থেকে শুরু হয়েছে ছুটিতে থাকা বা টুরিস্ট ভিসায় মালয়েশিয়ায় প্রবেশের হিড়িক। প্রাথমিক ভাবে তেমন কড়া নজরদারি না করলেও বিভিন্ন গণমাধ্যমে ও সোশ্যাল মিডিয়ার সুবাদে মালয়েশিয়ায় টুরিস্ট ভিসা আসা পর্যটকদের উপর কড়াকড়ি নজরদারি আরোপ করেছে ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট। এয়ারপোর্ট কতৃপক্ষ জানায়,  আন্তর্জাতিক এয়ারপোর্ট কেএলআইএ আগত বিদেশি পর্যটকদের উপর নজরদারি কার্যক্রম জোরদার করেছি। এই পর্যবেক্ষণের লক্ষ্য হল আগত  বিদেশি পর্যটকদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশের প্রতিটি শর্ত কার্যকর করা, আইন অনুযায়ী পূরণ করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করা। 

যে সকল বিদেশি পর্যটক মালয়েশিয়া প্রবেশের উদ্দ্যেশ্য শর্ত পূরণ করতে সন্দেহ পোষণ করেন এবং অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩-এর ধারা ৮ (৩) অনুসারে প্রবেশর প্রয়োজনীয়তা পূরণ করেন না তাদের মালয়েশিয়া প্রবেশের আবেদন প্রত্যাখান করা হয়। 

কোন রকম সমঝোতা ছাড়াই দেশের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তা রক্ষায়  কেএলআইএ ইমিগ্রেশন সবসময় সতর্কতার অবলম্বন করে। 

অন্য দিকে করোনা কালীন সময়ে ছুটিতে থাকা শ্রমিকরা মালিকের সাথে যোগাযোগ না করে টুরিস্ট ভিসায় অথবা বিভিন্ন অবৈধ উপায়ে মালয়েশিয়া প্রবেশ করছে তাদেরকে আটক করে জেলে পেরণ করছে কেএলআইএ ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট। যতক্ষণ না ঐ শ্রমিকের মালিক  এসে সঠিক তথ্য প্রমাণ সাবমিট করছে ততক্ষণ জেল খানায়  কাঠাতে হচ্ছে তাদের। যে সকল মালিক সঠিক তথ্য প্রমাণ দিচ্ছে সে সকল শ্রমিককে ছেড়ে দিচ্ছে ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট। 

ছুটিতে থাকা প্রবাসীরা মালয়েশিয়া প্রবেশের ক্ষেত্রে মালিকের সাথে যোগাযোগ করে কনফার্ম করে মালয়েশিয়া প্রবেশ করা উত্তম বলে মনে করছে মালয়েশিয়া কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ।