ভূমিষ্ঠ হয়েই ভুলে পাঞ্জাবি পরিবারে, পরে মায়ের কোলে ফেরেন রানি

0
150
Spread the love

গল্প কিংবা সিনেমার কাহিনি নয়- সত্যি সত্যিই জন্মের পরপরই হাসপাতালে এক পাঞ্জাবি পরিবারের শিশুর সঙ্গে অদল-বদল হয়ে গিয়েছিলেন বাঙালি বংশোদ্ভুত বলিউড অভিনেত্রী রানি মুখার্জি।

আরেকটু এদিক-সেদিক হলেই মুখার্জি পরিবারের পরিবর্তে হয়তো পাঞ্জাবি পরিবারেই বেড়ে উঠতে হতো রানিকে। আজকের রানি মুখার্জিকেই হয়তো পেতেন না জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর অগণিত ভক্ত। তবে মায়ের কারণে পাঞ্জাবি পরিবারে বেড়ে উঠতে হয়নি রানিকে। ফিরতে পেরেছেন নিজের মায়ের কোলেই।

নিজের জীবনের সিনেম্যাটিক এই গল্প জানিয়েছেন রানি মুখার্জি নিজেই। এক সাক্ষাৎকারে রানি জানিয়েছিলেন যে জন্মানোর পর সেই হাসপাতালেই একটি পঞ্জাবি পরিবারের শিশুর সঙ্গে তিনি অদল বদল হয়ে গিয়েছিলেন। এবং সেই পরিবারের শিশুটি চলে এসেছিল তার মায়ের কাছে। শিশুটিকে দেখামাত্রই খটকা লাগে রানির মা কৃষ্ণা মুখোপাধ্যায়ের। বুঝতে পারেন, শিশু অদল-বদল হয়েছে। এরপর হাসপাতালে খোঁজ খোঁজ রব পড়ে যায়। কৃষ্ণা মুখোপাধ্যায় নিজেও খোঁজ শুরু করেন। অবশেষে ছোট্ট রানির খোঁজ মেলে সেই পাঞ্জাবি পরিবারে।

এ প্রসঙ্গে সাক্ষাৎকারে রানি বলেছিলেন, জন্মের পরপর হাসপাতালেই কোনো গণ্ডগোলের কারণে এক পাঞ্জাবি পরিবারের শিশুর সঙ্গে অদল-বদল হয়ে গিয়েছিলাম। ওই শিশুটিকে দেখেই খটকা লাগে আমার মায়ের। ভালো করে দেখেই তিনি জানিয়ে দেন, এটি তার সন্তান নয়। কারণ শিশুটির চোখের মণির রং বাদামি। এরপরেই হাসপাতালে খোঁজ শুরু হয়। আমার মাও খুঁজতে শুরু করেন আমাকে। অবশেষে দেখা যায়, এক পাঞ্জাবি দম্পতির কোলে আমি।

রানি আরও বলেন, আজ পর্যন্ত আমাকে পরিবারের ভেতরে ক্ষ্যাপানো হয় এই বলে যে, আমি নাকি আসলে পঞ্জাবি। ভুল করে আমাকে বাঙালি ঘরে নিয়ে আসা হয়েছে। মজা করে রানি এও বলেন, পাঞ্জাবি পরিবারের সঙ্গে তার যোগসূত্র এখনও পিছু ছাড়েনি। কারণ তার বিয়ে হয়েছে পাঞ্জাবি পরিবারেই।

উল্লেখ্য, রানির স্বামী ‌’কুচ কুচ হোতা হ্যায়’খ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক আদিত্য চোপড়া। বলিউডের বিখ্যাত পরিচালক যশ চোপড়ার ছেলে এই আদিত্য চোপড়া। ২০১৪ সালে আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়েন বাঙালি বংশোদ্ভুত তুমুল জনপ্রিয় তারকা অভিনেত্রী রানি মুখার্জি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে