বন্যাদুর্গতদের ১০ মিনিট ফ্রিতে কথা বলার সুযোগ দিলো গ্রামীণফোন

107

বন্যাকবলিত এলাকার মধ্যে সিলেট-সুনামগঞ্জের অবস্থা সবচেয়ে ভয়াবহ। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের এই বন্যাকবলিত মানুষের পাশে দাড়ানোর ঘোষণা দিলেন গ্রামীণফোন। সিলেট বন্যাদুর্গত গ্রাহকদের যোগাযোগের জরুরি প্রয়োজনে ১০ মিনিট ফ্রি টক টাইম দিয়েছে টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠানটি।

আজ সোমবার (২০ জুন) সিলেটের বন্যাদুর্গত গ্রাহকদের মধ্যে ১০ মিনিট ফ্রি টকটাইম বিতরণ করেছে গ্রামীণফোন। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গ্রামীণফোন গ্রাহকরা দেশের সকল লোকাল নাম্বারে এই ফ্রি মিনিট ব্যবহার করতে পারবেন। গ্রাহকরা আগামী ৩ দিন এই অফারটি ব্যবহার করতে পারবেন।

এ ব্যাপারে গ্রামীণফোনের সিএমও মোহাম্মদ সাজ্জাদ হাসিব জানান, জাতীয় এই দুর্যোগে মানুষের প্রয়োজনে পাশে দাঁড়ানো আমাদের সবকলের নৈতিক দায়িত্ব। কানেক্টিটিভিটি পার্টনার হিসাবে বন্যাদুর্গত এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্ক সচল রাখতে গ্রামীণফোনের কর্মীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। গ্রাহকদের জরুরি কানেক্টিভিটির প্রয়োজন মেটাতে গ্রামীণফোন সবসময় পাশে থাকবে। তিনি বলেন, সেবা নিশ্চিত করার লক্ষে মাঠ পর্যায়ে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা দিয়ে গ্রামীণফোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করছে। ভয়াবহ এই দুর্যোগ কাটিয়ে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসা পর্যন্ত আমরা গ্রাহকদের পাশে থাকার অঙ্গীকার করছি। বিগত ৪-৫ দিনে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে যেখানে প্রায় ৪০ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। জলাবদ্ধতার কারণে মোবাইল ও ইন্টারনেট নেটওয়ার্কও ব্যাপকভাবে বিঘ্নিত হয়েছে।

দেশের এই ভয়াবহ বন্যার মধ্যেই ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয়, বিটিআরসি, বাংলাদেশ সেনাবাহীনিসহ সকল সরকারি বেসরকারি সংস্থার সহায়তায় গ্রামীণফোনের কর্মীরা নিরলসভাবে নেটওয়ার্ক পুনস্থাপনের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এবং একই সাথে ভবিষৎ এ আরও বিকল্প উদ্যোগ গ্রহনের মাধ্যমে জাতীয় এই দুযোর্গ মোকাবেলায় কাজ করছে। প্রতিষ্ঠানটি সিলেটের বন্যার্তদের যেকোন সহায়তায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগে টোল ফ্রি নাম্বারও প্রদান করেছে। নাম্বারগুলো হলো ০১৭৬৯১৭৭২৬৬,০১৭৬৯১৭৭২৬৭,০১৭৬৯ ১৭৭২৬৮।

প্রসঙ্গত, এই ভয়াবহ দুর্যোগে আত্মীয়-স্বজন ও উদ্ধারকারী দলের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্ত বন্যা ও অব্যাহত বৃষ্টির কারণে অনেক গ্রাহকই মোবাইলের ব্যলেন্স রিচার্জ করতে সমস্যার সন্মুখীন হচ্ছেন। তাই গ্রাহকদের পাশে থেকে মোবাইল সেবার মাধ্যমে জরুরি প্রয়োজন মেটাতে গ্রামীণফোন ফ্রি মিনিট ব্যালেন্স বিতরন করেছে বলে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে জানাও হয়। এর মাধ্যমে বন্যাপীড়িত গ্রাহকরা তাদের প্রয়োজনগুলো মেটাতে পারবে বলে গ্রামীণফোন বিশ্বাস করে।