বগুড়া ধুনট-শেরপুর সড়ক সংস্কার কাজে উড়ন্ত ধুলোয় জন দুর্ভোগ 

70

বগুড়ার শেরপুর উপজেলা থেকে ধুনট উপজেলা পর্যন্ত সড়কটি মহা সড়কে স্থানান্তর করতে সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে অনেকদিন হয়ে গেলো। সড়ক সংস্কার এলাকাবাসীর জন্য একটা আশীর্বাদ। সবাই এটা মনেপ্রাণেচায়। সংস্কার কাজ করতে যেয়ে সড়ক চওড়া করন, মাটি ভরাট, সমান করা ইত্যাদি করতে যেয়ে আশপাশের বাসাবাড়ি পথচারীদের নাজেহাল অবস্থা। ধুলােয় বাসাবাড়ি যেমন বসবাস অযোগ্য তেমনি পথচারীদের দম বন্ধ হবার উপক্রম। ধুলাে বন্ধে জল ছিটানোর ব্যাবস্থা করলে হয়তো সাধারণ জনগনের এতোটা কষ্টে পরতে হতো না।  

একদিকে করোনার মত মহামারি অন্যদিকে ধুলাে বালির দূষণে অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। প্রতিদিনই ধুলাের দূষণে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন রাস্তায় চলাচলকারীরা। বেশ কিছুদিন আগে শেরপুর-ধুনট আঞ্চলিক সড়কের প্রসস্থকরন কাজ শুরু হয়েছে। সেই জন্য সড়কের দুই পাশে মাটি ফেলা হয়েছে। সেখান দিয়েযানবাহন চলাচলের কারণে ধুলােবালির পরিমাণ বেড়েছে। এতে প্রতিদিনই ধুলাের দূষণ ছড়াচ্ছে এবং নানা রোগে আক্রান্তের শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। দূষিত হচ্ছে বাতাস কমছে অক্সিজেনের মাত্রা। আর এ কারণে বাড়ছে সাধারণ মানুষের মাঝে বিভিন্ন রোগের প্রকোপ ও সংক্রমণ। হুমকির মধ্যে পরছে জনস্বাস্থ্য। এই দূষনের জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোজাহার এন্টার প্রাইজকেই দায়ি করছেন সচেতন মহল। 

বগুড়া ধুনট-শেরপুর সড়ক সংস্কার কাজে উড়ন্ত ধুলোয় জন দুর্ভোগ 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বগুড়া জেলার শেরপুর থেকে ধুনট পর্যন্ত সড়কটি প্রসস্তকরণ কাজ শুরু হয়েছে। এ কাজের দায়িত্ব পেয়েছেন মোজাহার এন্টারপ্রাইজ নামের এক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। রাস্তা প্রসস্তকরণের জন্য তারা দুপাশে এলোমেলো ভাবে মাটি ফেলায় এবং সময়মত পানি না দেয়ায় ধুলাের দূষনে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। হুমকির মধ্যে পরছে জনস্বাস্থ্য। এই স্থানে বর্তমানে আবহাওয়া শুষ্কতার কারণে যান চলাচলের সাথে প্রচুর পরিমাণে ধুলােবালি ছড়িয়ে পরে নানা রোগের আক্রান্ত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এমনকি আবাসস্থলও বসবাসের অযোগ্য হয়ে পরেছে। একদিকে করোনায় অতিষ্ঠ জীবন অন্যদিকে ধুলাে-দূষণ মানুষের বাড়তি সমস্যায় ফেলছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে কর্তৃপক্ষের নজরদারি কামনা করছেন সাধারণ মানুষ। ওই সড়কে চলাচলকারীরা বলেন, একদিকে করোনা ভাইরাস তাতেই জীবনযাপন অতিষ্ঠ অন্যদিকে অতিমাত্রায় ধুলােবালির কারণে রাস্তায় চলাচলে তাদের নানা ধরনের রোগ দেখা দিয়েছে।

অপরিকল্পিতভাবে রাস্তা প্রসস্তকরণের কাজ চলায় ধুলাে-দূষণের মত বিভিন্ন সমস্যায় পড়ছেন তারা। তাই ধুলাে বালির এ সমস্যা থেকে সমাধান পেতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত উন্নয়ন কাজ শেষ করতে এবং নিয়মিত ধুলােবালি নিরাময়ে পানি ব্যবহারের অনুরোধ জানান। এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মোজাহার এন্টার প্রাইজের প্রজেক্ট ম্যানেজার মো. এমদাদ হোসেন বলেন, সড়ক উন্নয়ন কাজের জন্য সাময়িকভাবে জন সাধারণের সমস্যার জন্য আমরা দুঃখিত। আমরা ধুলাে নিবারণের জন্য সময়মত পানি ব্যবহার করছি। আবহাওয়া শুষ্ক থাকায় এবং অতিমাত্রায় বড় বড় যানবাহন চলায় দ্রুত ধুলাে ছড়াচ্ছে। খুব অল্প সময়ের মধ্যে এ সমস্যা সমাধান হবে বলে আমি আশা করছি। 

বগুড়া ধুনট-শেরপুর সড়ক সংস্কার কাজে উড়ন্ত ধুলোয় জন দুর্ভোগ 

এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সাজিদ হাসান সিদ্দিকী বলেন, কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। এখন শীতকালের কারণে বাতাসে ধুলােবালির পরিমাণ বেশি হওয়ায় স্বাসকষ্ঠজনিত রোগসহ বিভিন্ন ধরনের রোগ বালাই হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। শীত ও ঠান্ডা জনিত কারণে করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আদ্রতা ও তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় নানা ধরনের সমস্যা হতে পারে। ধুলােবালি ও করোনার আক্রমণ থেকে পরিত্রাণ পেতে সকলকে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে।