বকশীগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে ২৯৩৮ ভোটারের মধ্যে ১৬৯২ ভোটার মামলার আসামী

191
সভায় বক্তব্য রাখছেন পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ
সভায় বক্তব্য রাখছেন পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিন আহাম্মেদ

সরকার আব্দুর রাজ্জাক,বকশীগঞ্জ, জামালপুর প্রতিনিধি : জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর ইউনিয়নের স্থগিত মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দে্রর ২৯৩৮ ভোটারের মধ্যে ১৬৯২ ভোটার মামলার আসামী। এই অবস্থায় স্থগিত মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দে্রর পুন নির্বাচন ঘোষনা করেছেন নির্বাচন কমিশন। ৭ ফেব্রুয়ারি স্থগিত ভোট কেন্দে্রর পুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বর্তমানে মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দে্রর প্রায় শতভাগ পুরুষ ভোটার পলাতক । গ্রেফতারের ভয়ে ৫ জানুয়ারি থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছে মেরুরচর গ্রামের প্রায় ৩ হাজার মানুষ।
জানা যায়, ৫ জানুয়ারি জামালপুর জেলার বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর ইউনিয়নের মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোট কেন্দে্র শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহন চলছিলো। এক পর্য়ায়ে মেরুরচর ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ার হোসেন হকের নেতৃত্বে একদল উশৃংখল লোক কর্তব্যরত পুলিশের উপর হামলা করে। একই সময় হামলাকারীরা চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ার হোসেন হকের নির্দেশে ব্যালট বাক্স ছিনতাই করার চেষ্টা করে।

হামলাকারীরা পুলিশের ওয়াকিটকি ছিনতাই করে নেন। হামলাকারীরা পুলিশের একটি পিক—আপ ভ্যান( জামালপুর—ঠ—১১—০০২৩)গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ১৬০ বুলেট ও ৩২ টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। হামলায় বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) আব্দুর রহিম, মামলার বাদী এসআই আবু শরীফসহ আইনশৃংখলা বাহিনির ১৯ জন সদস্য গুরুত্বর আহত হয়।

এব্যাপারে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোয়ার হোসেন হক কে হুকুমের আসামী করে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা হয়। মামলা নং—২। তারিখ ০৬/০১/২০২২। মামলার ধারা ১৪৩/১৮৬/৩৩২/৩৩৩/৩৩৭/৩৭৮/৩৫৩/৩৮৯/১১৪ দ:বি: তৎসহ ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(১)(ক)(৩)। মামলার বাদী বকশীগঞ্জ থানার এসআই আবু শরিফ। মামলায় ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত ১৫জন ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
গ্রেফতারের ভয়ে লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যায়। বর্তমানে মেরুরচর গ্রাম প্রায় শতভাগ পুরুষ শূন্য। মহিলাদের উপস্থিতিও খুবই কম। ৪ গ্রামের ১৫টি মসজিদের আজান বন্ধ হয়ে যায়। মসজিদে নামাজও বন্ধ ছিলো। শুক্রবারের জুম্মার নামাজও হয়নি। ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত অসুস্থতা জনিত কারনে মেরুরচর গ্রামে ৪ জনের মৃত্যু হয়। মৃত ব্যাক্তিদের দাফন কাফনে কেউ শরীক হওয়ার সাহস পাননি। বহিরাগত লোকজন লাশ দাফন করেছেন।

এই পরিস্থিতিতে ৪ গ্রামের র্নিদোষ মানুষ গুলোকে নিজ বাড়ি ঘরে ফিরিয়ে আনার জন্য বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ, বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বকশীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান, মেয়র, অতিরিক্ত পিালশ সুপার(দেওয়ানগঞ্জ সার্কেল) ও জামালপুর জেলা পুলিশ সুপার দফায় দফায় েমেরুরচর গ্রামে মত বিনিময় সভা করেছেন। প্রতিটি সভায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দোষ মানুষকে নিজ বাড়ী ঘরে ফেরার ষাহস যুগিয়েছেন। প্রশাসনের সাহসে অন্য ৩ গ্রামের মানুষ নিজ বাড়ি ঘরে ফিরে এলেও মেরুরচর গ্রামের পুরুষ মানুষ নিজ বাড়ি ঘরে ফিরেনি।
এই অবস্থায় পুন নির্বাচনের তফশিল ঘোষনা করেছেন নির্বাচন কমিশন। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর গ্রামের মেররচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দে্র ২নং সংরক্ষিত আসনের সদস্য ও ৩নং ও্র সাধারণ সদস্য পদে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।