ফুলবাড়ীতে ছিটমহল বিনিময়ের ৭ম বর্ষপূর্তি উদযাপন  

0
89
Spread the love

মাহফুজার রহমান মাহফুজ, ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ ৩১ জুলাই বাংলাদেশের অভ্যন্তরে থাকা ছিটমহলবাসীর মুক্তির দিন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের করে যাওয়া চুক্তি তাঁর সুযোগ্যকণা জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃঢ় নেতৃত্বের ফলে ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই বাস্তবায়ন হয়। চুক্তি বাস্তবায়নের ফলে অবসান ঘটে ছিটমহল বাসীর দীর্ঘ ৬৮ বছরের বঞ্চনা আর বন্দিদশা জীবন যাপনের। আর তাই তো ছিটমহল বিনিময় চুক্তি বাস্তবায়নের পর থেকেই প্রতি বছর ৩১ জুলাই রাতে দেশের সর্ববৃহৎ বিলুপ্ত ছিটমহল কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার দাসিয়ারছড়া বাসী মেতে ওঠেন মুক্তির আনন্দে। 

৩১ জুলাই ২০২২ ছিটমহল বিনিময়ের ৭ম বর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে দাসিয়ারছড়া শাখা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের আয়োজনে কালিরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আলোচনা সভা, মোমবাতি প্রজ্জ্বলন, কেক কাটা ও মোনাজাত কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, কুুুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ প্রশাসক, সাবেক এমপি আলহাজ্ব জাফর আলী। বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু সাঈদ লোবান, সাংগঠনিক সম্পাদক রাশেদুজ্জামান বাবু, পৌর মেয়র কাজিউল ইসলাম সহ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। 

আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হুদা দুলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশীদ হারুন, উপজেলা যুুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক মিলন প্রমূখ। বক্তারা বলেন, আজকে ছিটমহল বিনিময়ের ৭ বছর পূর্তি হলো। ৭ বছর আগে সকল ছিটমহলবাসীর মত এই দাসিয়ারছড়া বাসীদেরও বঞ্চনা আর বন্দিদশা জীবন যাপন করতে হত। এই দাসিয়ারছড়ায় ছিলনা কোন পাকা রাস্তা,ব্রীজ,কালভাট। ছিলনা স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা। ছিলনা বিদ্যুতের কোন ব্যবস্থা। এক কথায় ছিটমহলবাসীরা ছিল মৌলিক অধিকার বঞ্চিত। কিন্তু দেশের অভ্যন্তরে কেউ বঞ্চিত থাকুক এটা মানবতার জননী চাননি। তাই নিজের বিচক্ষণতা দিয়ে তাঁর বাবার করে যাওয়া চুক্তি বাস্তবায়ন করে ছিটমহলবাসীর ৬৮ বছরের বঞ্চনা আর বন্দিদশা জীবন যাপনের অবসান ঘটান। শুধু তাই নয় দাসিয়ারছড়ায় তিনি প্রশস্ত পাকারাস্তা করে দিয়েছেন।এখানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সরকারি মাদ্রাসা, কমিউনিটি ক্লিনিক, ডিসেট সেন্টার, মসজিদ- মন্দির নির্মাণসহ ছিটমহল বাসীর জীবন মানোন্নয়নে যা যা প্রয়োজন সব কিছুই করে দিয়েছেন। ছিটমহল বাসীর মুক্তি ও উন্নয়ন বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্যই সম্ভব হয়েছে। আমরা সকলেই তাঁর জন্য দোয়া করি। 

এসময় ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফজলুর রহমান, কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য একরামুল হক বুলবুল, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এমদাদুল হক মিলন, সভাপতি তৌকির হাসান তমাল, দাসিয়ারছড়া আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক নুর আলম, দাসিয়ারছড়া ইউনিট ছাত্রলীগের আহবায়ক জাকির হোসেন সহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সকল সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

আলোচনা সভা শেষে রাত ১২টা ১ মিনিটে ৬৮ বছরের বঞ্চনা আর বন্দিদশা জীবন যাপনের অবসান ঘটায় ৬৮ টি মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও ৭ বছর পূর্তি ও ৮ম বর্ষে পদার্পনে কেক কাটা হয়। পরে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। ৭ম বর্ষ পূর্তির অনুষ্ঠানে দাসিয়ারছড়া বাসী চিৎকার করে স্লোগান দিতে থাকেন – আমরা নই ছিটবাসী, আমরা এখন বাংলাদেশি। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।