নিজের শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে কফিনে উঠে বসে তাকিয়ে চিৎকার, অতঃপর…

277
মৃত ঘোষণার পর কফিনবন্দী রুশ এক নারী আচমকাই জেগে উঠলেন। এসময় নিজেরই শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে কফিনে শায়িত অবস্থায় হঠাৎ উপস্থিত সবার সামনে চোখ মেললেন তিনি।
মৃত ঘোষণার পর কফিনবন্দী রুশ এক নারী আচমকাই জেগে উঠলেন। এসময় নিজেরই শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে কফিনে শায়িত অবস্থায় হঠাৎ উপস্থিত সবার সামনে চোখ মেললেন তিনি।

মৃত ঘোষণার পর কফিনবন্দী রুশ এক নারী আচমকাই জেগে উঠলেন। এসময় নিজেরই শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে কফিনে শায়িত অবস্থায় হঠাৎ উপস্থিত সবার সামনে চোখ মেললেন তিনি।

ঘটনাটি নিঃসন্দেহে ভৌতিক চলচ্চিদ্রের দৃশ্যকেও হার মানায়। ভয়ংকর দৃশ্যটি দেখে শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে উপস্থিত মানুষরা ভয়ে হার্ট অ্যাটাক করতে পারতেন! কিন্তু ঘটেছে এর ঠিক উল্টো ঘটনা।

কফিন থেকে উঠে বসে নিজের শেষকৃত্য অনুষ্ঠান দেখে ভয় পেয়ে যান ওই নারী নিজেই। আতঙ্কে চিৎকার করে ওঠেন। সঙ্গে সঙ্গেই জ্ঞান হারান। হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক জানান, হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয়েছে ওই নারীর।

অদ্ভুত ঘটনাটি যখন ঘটে তখন ওই নারীর কফিনের সামনেই ছিলেন তার স্বামী। স্ত্রীকে কফিনে বেঁচে উঠতে দেখে তিনি নিজেও চমকে যান। দ্রুত স্ত্রীকে নিয়ে ছোটেন হাসপাতালে। কিন্তু সেখানে চিকিৎসা শুরু হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই মারা যান তার স্ত্রী। চিকিৎসকেরা জানান, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ওই নারীর।

এভাবে চাঞ্চল্য সৃষ্টি করে মৃত্যুবরণকারী ওই নারীর নাম ফাজিলিউ মুখামেৎজানভ। বয়স ৪৯ বছর। তিনি রাশিয়ার কাজানের বাসিন্দা ছিলেন।

এদিকে স্ত্রী এভাবে মৃত্যুবরণ করায় ক্ষুব্ধ তার স্বামী। তিনি এই ঘটনার দায় চাপিয়েছেন চিকিৎসকদের ওপর। তার মতে, চিকিৎসকরা ভুল করে তার স্ত্রীকে মৃত ঘোষণা না করলে সঠিক চিকিৎসা হতো তার স্ত্রীর। হয়তো বেঁচেও থাকতেন তিনি।