নাটোরে র‍্যাবের  অভিযানে ৬ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ

73
নাটোরে র‍্যাবের  অভিযানে ৬ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ
নাটোরে র‍্যাবের  অভিযানে ৬ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ

নাটোর জেলা প্রতিনিধিঃনাটোরে র‍্যাব- ৫ সিপিসি ২ কর্তৃক বড়াইগ্রামে অভিযান চালিয়ে ৫ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ৬ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়েছে। এ সময় ৫ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিককে ৩ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান তানভীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। শুক্রবার (১৩মে) বিকাল থেকে থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে দেশে চলমান ভোজ্য সয়াবিন তেলের কৃএিম সংকট নিরসনে নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম থানাধীন জোনাইল বাজার এলাকায় কোম্পানি অধিনায়ক

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ফরহাদ হোসেন, কোম্পানী উপ – অধিনায়ক সহঃ পুলিশ সুপার মোঃ রফিকুর ইসলাম এবং জনাব মোঃ মেহেদী হাসান তানভীর, সহকারি পরিচালক,  ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর নাটোর জেলা কার্যালয় এর সহিত যৌথ অভিযান পরিচালনা করে পূর্বের মূল্যে ক্রয় কৃত সয়াবিন তেল  পূর্বের মূল্যেই

বিক্রি নিয়ম থাকলেও তারা পূর্বের মূল্যে ক্রয় কৃত তেল বাড়তি মূল্যে বিক্রয় ও অবৈধ মজুত রাখায় বড়াইগ্রাম থানাধীন জোনাইল বাজারের “মোল্লা ডিপার্টমেন্টাল স্টোর “এর গুদাম হতে বোতল জাত ৪,০০ লিটার সোয়াবিন তেল জব্দ ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা, “রুপম স্টোর” এর গুদাম হতে বোতল জাত ১,০০০ লিটার সোয়াবিন তেল

জব্দ ও ১ লক্ষ টাকা জরিমানা, “মিতা স্টোর” এর গুদাম হতে বোতল জাত ৬;০০ লিটার সোয়াবিন তেল জব্দ ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা,” বিল্লাল স্টোরের “গুদাম হতে ১,০০ লিটার সোয়াবিন তেল জব্দ ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা, মেসার্স দেবাশীষ স্টোর” এর গুদাম হতে বোতল জাত ৪,৫০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ ও ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

উক্ত অভিযানে অবৈধভাবে তেল মজুদে দায়ে অভিযুক্ত দোকানদারগনকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৩৮ ধারার মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা, ৪০ ধারায়

অধিক মূল্যে নেওয়া এবং ৪৫ ধারায় সঠিক মূল্যে বিক্রি না করায় ৩,২০,০০০ জরিমানা ও মোট ৬,৬০০ লিটার সয়াবিন তেল জব্দ করা হয়।  পরে জব্দকৃত সয়াবিন তেল সরকার নির্ধারিত দামে স্থানীয় ক্রেতাদের মাঝে বিক্রি করা হয়।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর নাটোরের সহকারী পরিচালক মেহেদী হাসান তানভীর বলেন, সারাদেশে সয়াবিন তেলে কৃত্রিম সংকট তৈরি করে সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করা হচ্ছে।এজন্য নাটোরে বাজার নিয়ন্ত্রণের জন্য অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এ ধরনের অভিযান অব্যাহত আছে।