নতুন বিয়ে করেছেন? স্ত্রীকে খুশি রাখার ৫টি টিপস

113
নতুন বিয়ে করেছেন? স্ত্রীকে খুশি রাখার ৫টি টিপস
নতুন বিয়ে করেছেন? স্ত্রীকে খুশি রাখার ৫টি টিপস

বিয়ে হল যে কোনও সম্পর্কের পরিণতির পর্যায়। এক্ষেত্রে দুটি মানুষ বিয়ের মাধ্যমেই একে অপরের পাশে আসেন। মেলে একসঙ্গে থাকার সামাজিক ছাড়পত্র।

বিশেষজ্ঞদের কথায়, এখনকার দিনে বেড়েছে লাভ ম্যারেজ। এই ভালোবাসার বিয়েতে একটি মানুষ অপর মানুষটিকে বহুদিন ধরেই চেনেন। তাঁদের মধ্যে তৈরি হয় ভালোবাসা। কিছুটা পথ একসঙ্গে চলার পর আসে বিয়ের কথা। এই দুটি মানুষ একে অপরের সঙ্গে বিয়ে করেন।

তবে এক্ষেত্রে অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ বা দেখেশুনে বিয়ের কথা ভুলে গেলেও চলবে না। এই দেখেশুনে বিয়ের মাধ্যমে মানুষ একে অপরকে পছন্দ করে বিয়ে করেন। এক্ষেত্রে মানুষ দুটির পাশাপাশি ওই দুটি পরিবারেরও বিয়ে হয়। তবে এক্ষেত্রে দুটি মানুষের পরিচয় হওয়ার সুযোগ থাকে অনেকটাই কম। অল্প দেখা, অল্প চেনার মাধ্যমেই হয় বিয়ে।

এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিয়েতে সবথেকে বেশি সক্রিয় ভূমিকা থাকে মেয়েদের। বিয়ে নিয়ে ছোট থেকেই তাঁদের থাকে নানা স্বপ্ন। এরপর একটা সময় সেই বহু অপেক্ষিত সময় আসে। তখন মেয়েটির বিয়ে হয়। তবে বিয়ের পরের জীবনে মহিলারা সাধারণত একেবারে নতুন একটি বাড়িতে এসে ওঠেন। এই বড়িতে তাঁর সবথেকে কাছের সঙ্গী হল স্বামী। এই অবস্থায় প্রতিটি স্বামীকেই বিয়ের পর নববধূর খেয়াল রাখার ক্ষেত্রে এগিয়ে আসতে হয়। এক্ষেত্রে এই কয়েকটি নিয়মেই হতে পারে সমস্যার সমাধান।

​স্ত্রীর পরিবারের প্রশংসা করুন

সদ্য বিয়ে করে এসেছেন স্ত্রী। তাঁকে যোগ্য সম্মান দিতে হবে। এমনকী তাঁর পরিবারের মানুষকেও দিন সম্মান। স্ত্রীকে বারবার বলুন, আপনার পরিবারের মানুষ খুবই ভালো। তাঁরা দারুণভাবে আপনার পাশে থেকেছেন। এমনকী তাঁদের সব ব্যবহারই আপনার ভালোলাগে। দেখবেন এই ধরনের কথার মাধ্যমে আপনার স্ত্রী আপনাকে নতুন করে ভালোবাসতে শুরু করবেন। তাঁর দৃষ্টিতে আপনি নতুন চরিত্র হয়ে ধরা দেবেন। তাই নতুন বিয়ের পর অবশ্যই নিজের শ্বশুরবাড়ির প্রশংসা করুন।

​সময় দিন

বিয়ের পর নতুন পরিবারে এসে উঠেছেন আপনার স্ত্রী। এই সময়ে আপনার অবশ্যই তাঁর পাশে থাকা উচিত। তাঁকে অন্যান্য সময়ের থেকে একটু বেশি সময় দিন। এই কয়েকটা দিন কাজের চাপ একটু কম নিলেও চলবে। কারণ কাজের চাপ আসবে যাবে। তবে আপনার বিয়ের এই সময়টা কিন্তু আর আসবে না। তাই এখন থেকেই নিজের স্ত্রীকে একটু বেশি সময় দিন। বাইরে না যেতে পারলে বাড়িতেই কাটান সময়।

​উপহার দিন

যে কোনও মানুষই উপহার পছন্দ করেন। আমি করি, আপনি করেন, আপনার স্ত্রীও নিশ্চয়ই করেন। সেক্ষেত্রে সবথেকে ভালো হয় তাঁকে উপহার দিতে পারলে। স্ত্রীর ভালোলাগার কোনও জিনিস উপহার হিসেবে দিন। উপহার দিতে বলছি মানেই খুব দামি কিছু দিতে হবে, এমন নয়। বরং ছোটখাট জিনিসও উপহার হিসেবে দিতে পারেন। তবে সেই উপহার দেওয়ার মাধ্যমে যেন আপনার ভালোবাসা প্রকাশ পায়, এই বিষয়টা করতে হবে নিশ্চিত। তবেই উপহার দেওয়ার মধ্যে সার্থকতা খুঁজে পাবেন। আর স্ত্রীও হবেন খুশি।

ঘুরতে যান

সদ্য বিয়ে করেছেন, এই সময়টা একটু নিজেরা একসঙ্গে থাকতে পারলে সবথেকে ভালো হয়। এক্ষেত্রে বিয়ের পর কোথাও সময় পেলেই ঘুরতে চলে যান। একটু বেড়িয়ে আসলে দুজনের মনই ভালো থাকবে। তবে ঘোরার কথা ওঠা মানেই দুই তিনদিন থাকার কথা বলা হচ্ছে না। সপ্তাহ শেষের ছুটিতেই বেড়িয়ে চলে আসুন বাড়ির কাছের কোনও জায়গা থেকে। এতে খরচও হবে কম। পাশাপাশি দুজনে ভালোও থাকবেন। তবে বছরে এক থেকে দুইবার একটু লম্বা ট্রিপ করুন।

সমস্যার কথা জিজ্ঞেস করুন

নতুন বাড়িতে সমস্যা হতেই পারে। সেক্ষেত্রে আপনার উচিত স্ত্রীকে জিজ্ঞেস করার যে কোনও সমস্যা হচ্ছে না তো? বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তিনি এই কথার উত্তরে না বলবেন। এই উত্তরটা আপনার জানা থাকলেও, তাঁর মুখ থেকেই শুনুন। তবেই তিনি বুঝবেন আপনি তাঁকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। তাই এবার থেকে এই টিপস মেনে চলুন।