দেশ বরেণ্য সাংবাদিক পীর হাবিবুর রহমানের অকাল মৃত্যুতে নিজ কথা ও শ্রদ্ধা প্রকাশ

58

খালিদ হোসেন মিলটন, গলাচিপা (পটুয়াখালী) থেকে ঃ দেশ বরেণ্য সত্য কথার পথিকৃত অন্যায় অবিচার, গণতন্ত্র, সুশাসন, অনিয়মের বিরুদ্ধে যিনি কথায়, লেখায় দেশের চিন্তাশীল মানুষকে এবং রাজনৈতিক দল সমূহকে বিবেকের মেমোরীতে দেশ প্রেমে উজ্জীবিত করতেন সেই মানুষটি ছিলেন পীর হাবিবুর রহমান। দেশের সকল গুণী সাংবাদিকের যিনি ছিলেন সাহসী বজ্র কণ্ঠস্বর। তাঁর ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত ৫জানুয়ারি/২২ মৃত্যুর খবরটা শুনে মানসিক ভাবে অস্থির হয়ে পরি। পীর হাবিবুর রহমান ছিলেন আমার ব্যাক্তি জীবনে তার লেখা কথা ছিল আমার বিবেকের পথচলা। তার লেখায় যা শিখতে পেরেছি তা দেশের ৫০বছর স্বাধীনতার পর থেকে প্রয়াত নির্মল সেন, আলতাফ মাহামুদ, প্রয়াত প্রথম আলো পত্রিকার বরেণ্য সাংবাদিক মিজানুর রহমান। আমার দেশের যত বড় গুণী সাংবাদিক ও ন্যায় কথা জাতীর সামনে রেখে গেছেন তার মূল্যায়ন সরকার, রাজনীতিবিদ ও সাংবাদিক সমাজ যতটা গভীর ভাবে নেবেন, তা নিয়ে আমার সন্দেহ আছে।

যার কথা বলতে চেয়েছি পীর হাবিবুর রহমান করোনা আক্রান্ত সময়ে সুনামগঞ্জ নিজ বাড়ীতে বসে লেখা সর্বশেষ শাহজালালের ভিসি ফরিদ সরে দাড়ান, নয় সরানো হোক। গত ২৬ শে জানুয়ারি মৃত্যু পথযাত্রী হয়ে খোলা কলাম নিয়ে শেষ লেখা লিখে কলমের দাগ রেখেছে, তা অতুলনীয় সত্য বাণী। পীর হাবিবুর রহমানকে আমার জীবনে এক বার ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে দেখার এবং সাক্ষাতের সুযোগ হয়েছিল। নিজ পরিচয় ও ঠিকানা বলা শেষে এবং ঢাকা ডি ই জের সাবেক সভাপতি মহুম আলতাফ মাহামুদের পরিচয় দেয়ায় তিনি এতটা সুন্দর ভাবে আমাকে স্নেহ ও সম্মান দিয়ে কথা বলেন। তাতে আমি বিমহিত ও মুগ্ধ হয়েছি। যার মৃত্যু, কোনো কিছুতে আমি মেনে নিতে পারছিনা।

কি করলো আমার দেশের সরকার? দেশের তথ্য মন্ত্রালয়ের মন্ত্রী ! গুনী জনের মৃত্যুই হচ্ছে বর্তমান সময়ে সুবিধা বাদীদের কাম্য। এটাই যেন আমার সমাজ ও রাস্ট্র চালকদের মানসিকতা । গণমাধ্যমের বরেণ্য ব্যক্তিদের জাতীয় থেকে, তৃণ্যমূল পর্যন্ত কেউ মুল্যায়ন করেনা। তাদের গবেষণা সৃষ্টিশীল ও সময় উপযোগি কথা, যেন সকলের কষ্ঠের কারণ হয়ে দায়িয়েছে। কি ভাবে সমাজ পরিবর্তন, রাষ্ট্রের অধিকার ন্যায় ও সু-সাশন এবং দূর্নীতি প্রতিকারে প্রয়াত পীর হাবিবুর রহমানের কথা আমাদের সামনের সময়ের সম্পদ। কিভাবে সমাজ ও রাষ্ট্রের নৈতিকতা ধংস হয়, স্ব-পক্ষে কথা বলা যেন এক অন্যায় বস্তু। যে দেশ গুণী জনের সম্মান দিতে জানেনা, সেই দেশের সম্মান ও আগামী সময় কঠিন হবে আমাদের। যারা দেশ প্রেম ও মানুষের কথা বলে, বা লিখে তারা এই স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্রের গুণী নাগরিক।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর সোনার বাংলা বিনির্মাণের এবং মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় তার সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই দেশের বরেণ্য সাংবাদিক ও গুণী বুদ্ধিজীবি মানুষকে রাষ্ট্রিয়ভাবে বিভিন্ন পদক দিয়ে মুল্যায়ন করে যাচ্ছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই আমরা লক্ষ্য করেছি অনেক গুণী মানুষ নিগৃহীত হচ্ছে। আগামী সময়ে ভালো মানুষদেরকে বিশেষ করে শিক্ষক, বুদ্ধিজীবি, সাংবাদিক ও প্রবীণ রানৈতিক ব্যাক্তিদেরকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐ সমস্ত বিশ্বাসি গুণী জনের প্রতি দৃষ্টি রাখবে এ প্রত্যাশা চিন্তাশীল ও দেশপ্রেমী মানুষের। প্রয়াত পীর হাবিবুর রহমানের মৃত্যুতে আজ আমরা হারিয়েছি এক জন সত্যিকার দেশপ্রেমী মানুষ ও অভিভাবককে। দেশের দক্ষিণাঞ্চল সাগর কন্যা পটুয়াখালী জেলা গলাচিপা উপজেলার প্রেস ক্লাব সভাপতি মু.খালিদ হোসেন মিলটন ও দৈনিক জনকন্ঠের বিশিষ্ট কলামিস্ট ও স্টাফ রিপোর্টার শংকর লাল দাসসহ সকল সংবাদ কর্মীদের পক্ষে, পীর হাবিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও গভীর শোক প্রকাশ করছি। তার বিদেহী আত্মার ও পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। লেখার মাঝে মিডিয়ায় জানতে পারলাম ভারত উপমহাদেশের সুর-সম্ম্রাজ্ঞী লতামঙ্গেসকারের ৬ই জানুয়ারি/২২ মৃত্যুর খবর, আমার গভীর কষ্ট উপলদ্ধি হয়েছে। তাঁর বিদেহী আত্মার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও শোক প্রকাশ করছি।