দেশে ২৪ ঘন্টার ২৬ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু শূন্য

67
সারাদেশে সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ২৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্ত্বিত ধরা পড়েছে। ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের ০.৬১ শতাংশ। তবে এই সময়ের ভেতর করোনায় কারও মৃত্যু হয়নি।
সারাদেশে সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ২৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্ত্বিত ধরা পড়েছে। ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের ০.৬১ শতাংশ। তবে এই সময়ের ভেতর করোনায় কারও মৃত্যু হয়নি।

সারাদেশে সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ২৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অস্ত্বিত ধরা পড়েছে। ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তের ০.৬১ শতাংশ। তবে এই সময়ের ভেতর করোনায় কারও মৃত্যু হয়নি।

নতুন ২৬ জনসহ মহামারির শুরু থেকে এখন পর্যন্ত সর্বমোট ১৯ লাখ ৫৩ হাজার ৫০৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় কারও মৃত্যু না হওয়ায় দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ২৯,১৩১ জনেই অপরিবর্তিত রয়েছে।

মঙ্গলবার, ৩১ মে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য প্রকাশ করা হয়।

এদিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪,১৯৮টি। নমুনা পরীক্ষা করা হয় ৪,২৫০টি। এখন পর্যন্ত মোট ১ কোটি ৪১ লাখ ২২ হাজার ৫২২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬৯ জন করোনা রোগী। এর মধ্য দিয়ে এখন পর্যন্ত সর্বমোট ১৯ লাখ ২ হাজার ৭৬০ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়েছেন।

এর আগে সোমবার, ৩০ মে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ৩৪ জন অদৃশ্য প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন সারাদেশে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে করোনা শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানায়, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যুবরণকারী একজনসহ দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২৯,১৩১ জনে। অন্যদিকে নতুন ৩৪ জনসহ মহামারির শুরু থেকে এখন পর্যন্ত সর্বমোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৫৩ হাজার ৪৮১ জনে।

উল্লেখ্য, টানা এক মাস মৃত্যুশূন্য থাকার পর ২১ মে করোনায় দেশে একজনের মৃত্যু হয়। এরপর একদিন মৃত্যুশূন্য থাকার পর ২৩ মে করোনায় মারা যান দুজন। এরপর টানা এক সপ্তাহ মৃত্যুশূন্য থাকার পর ৩০ মে করোনায় আবার একজন মারা যান।