জানলা খুলে যৌনতা, শীৎকারে অতিষ্ঠ শতাধিক প্রতিবেশী

299
সঙ্গমের সময় কামোত্তেজিত নারী বা পুরুষের মুখনিঃসৃত আনন্দসূচক ধ্বনি হলো শীৎকার। সেই শীৎকার যদি বাইরের লোকের কানে যায় তা যে নেহাতই অস্বাভাবিক একটি বিষয় তা নির্বোধও বুঝবে। কিন্তু সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের লন্ডনে এমন এক দম্পতির সন্ধান মিলেছে যাদের লাজ-লজ্জার বালাই নেই বললেই চলে। দিব্যি ঘরের জানালা খুলে যৌনকর্ম করছেন তারা। তাদের শীৎকারে রীতিমতো অতিষ্ঠ প্রতিবেশীরা। এমনকি পথচারীরা পর্যন্ত সেই শীৎকার শুনে হতভম্ব।
সঙ্গমের সময় কামোত্তেজিত নারী বা পুরুষের মুখনিঃসৃত আনন্দসূচক ধ্বনি হলো শীৎকার। সেই শীৎকার যদি বাইরের লোকের কানে যায় তা যে নেহাতই অস্বাভাবিক একটি বিষয় তা নির্বোধও বুঝবে। কিন্তু সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের লন্ডনে এমন এক দম্পতির সন্ধান মিলেছে যাদের লাজ-লজ্জার বালাই নেই বললেই চলে। দিব্যি ঘরের জানালা খুলে যৌনকর্ম করছেন তারা। তাদের শীৎকারে রীতিমতো অতিষ্ঠ প্রতিবেশীরা। এমনকি পথচারীরা পর্যন্ত সেই শীৎকার শুনে হতভম্ব।

নর-নারীর সম্পর্কের ভিত্তি দৃঢ় করার ক্ষেত্রে মানসিক সম্পর্কের পাশাপাশি শারীরিক সম্পর্কও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মনের মানুষকে নিবিড়ভাবে স্পর্শের মুহূর্তে কিছুটা বাড়তি উত্তেজনা ও উন্মাদনা এসে যেতেই পারে। এটা অস্বাভাবিক কিছু না। কিন্তু দুজনের শয়নকক্ষের একান্ত ব‍্যক্তিগত মুহূর্তের কথা যদি পাড়া-প্রতিবেশী জেনে যায় তা নিতান্তই লজ্জাজনক একটি বিষয়।

সঙ্গমের সময় কামোত্তেজিত নারী বা পুরুষের মুখনিঃসৃত আনন্দসূচক ধ্বনি হলো শীৎকার। সেই শীৎকার যদি বাইরের লোকের কানে যায় তা যে নেহাতই অস্বাভাবিক একটি বিষয় তা নির্বোধও বুঝবে। কিন্তু সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের লন্ডনে এমন এক দম্পতির সন্ধান মিলেছে যাদের লাজ-লজ্জার বালাই নেই বললেই চলে। দিব্যি ঘরের জানালা খুলে যৌনকর্ম করছেন তারা। তাদের শীৎকারে রীতিমতো অতিষ্ঠ প্রতিবেশীরা। এমনকি পথচারীরা পর্যন্ত সেই শীৎকার শুনে হতভম্ব।

এই ঘটনায় কান্ডজ্ঞানহীন ওই দম্পতির বাড়ি গিয়ে অভিযোগও দিয়েছেন প্রতিবেশীরা। কিন্তু অভিযোগ মানতে নারাজ তারা। শেষমেষ তাদের অবিশ্বাসের দেয়ালে চিড় ধরাতে শীৎকারের শব্দ রেকর্ড করে শোনানো হয় তাদের।

প্রতিবেশীদের অভিযোগ, যৌনতার সময় শীৎকার খুবই সাধারণ একটি বিষয়। কিন্তু সেই শব্দ যদি আশপাশে ছড়িয়ে যায় তার চেয়ে লজ্জার আর কি হতে পারে! এই দম্পতির সঙ্গমের সময়ের আবেগতাড়িত শীৎকার অনেক দিন ধরেই দরজা জানলা ভেদ করেই তাদের কানে ঢুকে পড়ছে। এতে করে তিতিবিরক্ত হয়ে উঠেছেন তারা।

প্রতিবেশীরা আরও অভিযোগ করেন, এই ঘটনায় তাদের নিজেদের যৌনজীবনেও ব্যাঘাত ঘটছে। জানলা খোলা রেখেই অবাধ যৌনতায় মেতে ওঠার ফলে পথচারীরাও অনেক সময় বাকি প্রতিবেশীদের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। কিন্তু পরবর্তীকালে সেই দম্পতিকে এই বিষয়ে সচেতন করতে চাইলে তারা তা মানতে চাননি। তাই শীৎকারের শব্দ রেকর্ড করে শোনানো হয়েছে তাদের।