জবিতে ‘আমাদের সিনেমা’ শিরোনামে বাংলা চলচ্চিত্র প্রদর্শনী 

703

সুফিয়ান শুভ, জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) চলচ্চিত্র সংসদের আয়োজনে ‘আমাদের সিনেমা’ শিরোনামে ৩ দিন ব্যাপি (৫, ৭ এবং ১৪ সেপ্টেম্বর) বাংলা চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। 

সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক এ প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন। এছাড়া কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহম্মেদ এবং চারুকলা বিভাগের চেয়্যারম্যান অধ্যাপক ড. বজলুল রশিদ খান উপস্থিত ছিলেন। 

আজ ৫ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় ‘শিমু’ ও  দুপুর ১ টায়  ‘রাত জাগা ফুল’, আগামী ৭ সেপ্টেম্বর ১০ টায় ‘গন্ডি’ ও দুপুর ১ টায় ‘নোনা জলের কাব্য’ এবং আগামী 

১৪ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায়  ‘অলাতচক্র’ ও ১২ টায় ‘পরান’ চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

উপাচার্য ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা যতবেশি কো-কারিকুলার অ্যাকটিভিটিসের সঙ্গে যুক্ত হবে তত বর্হিবিশ্ব সম্পর্কে জানবে। নিজের আত্মোপলব্ধি করতে পারবে। নিজেকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে। ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আমরা অসাম্প্রদায়িক এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে থাকতে চাই সেক্ষেত্রে আমি মনে করি চলচিত্র বিরাট এক ভুমিকা রাখতে পারে। প্রয়াত খান আতাউর রহমানের ‘জীবন থেকে নেওয়া’ সিনেমা মুক্তিযুদ্ধের মানুষের মাঝে জাগরণ সৃষ্টি করতে পেরেছিল। সিনেমার চরিত্রের মাঝে পূর্বপাকিস্তান এবং পশ্চিম পাকিস্তানের বৈষম্য স্পষ্ট ফুটে উঠেছিল। ‘Stop Genocide’ যেটি জহির রায়হান তৈরী করেছিল। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় এটা বহু দেশে দেখানো হয়ছিল। এ সিনেমা তৈরীর ফলে বর্হিবিশ্ব থেকে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে জনমত অনেক অনেক বেড়ে গিয়েছিল। 

বর্তমান সিনেমার পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বলেন,  সিনেমা সবার জন্য উন্মুক্ত হবে এবং সিনেমার মাঝে জনমানবের কথা ফুটে উঠবে। এখন কিছু সিনেমা তৈরী হচ্ছে এগুলো সিনেমা না নাটক কিছু বোঝা যায় নাহ। সুস্থ মানসিকতার সিনেমা তৈরীর মাধ্যমে আবার সিনেমা জগতে পুর্বের মত ফিরে আসবে।  কিছুদিন আগে সিনেকমপ্লেক্সে লুঙ্গি পড়ে ঢুকতে দেওয়া হয়নি এমন সিনেমা জগতে হওয়া যাবে নাহ। এটা সবার জন্যই উন্মুক্ত রাখতে হবে। 

কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রত্যেকটা প্রতিষ্ঠানের একটা সংক্ষিপ্ত বিবরন হিসেবে একটা ডকুমেন্টারি থাকে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ এটা তৈরী করবে যেটার মাধ্যমে বিদেশের কোন মিটিং এ আমরা সহজে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে রিপ্রেজেন্ট করতে পারবো। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং জঙ্গিবাদ বিরোধী আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে চলচিত্র সংসদ গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করবে। 

প্রসঙ্গত, পুরো আয়োজনে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে আছে গণমাধ্যম ‘ডিবিসি নিউজ’, ‘অধিকার’, ‘খিড়কি ফিল্মস’, ‘ভাইব্রেন্ট ৩৬০’ এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ফটোগ্রাফিক সোসাইটি।