গণকমিটি মাগুরা জেলার উদ্যোগে সমাবেশ অনুষ্ঠিত

0
78
গণকমিটি মাগুরা জেলার উদ্যোগে সমাবেশ অনুষ্ঠিত
গণকমিটি মাগুরা জেলার উদ্যোগে সমাবেশ অনুষ্ঠিত
Spread the love

মাগুরা বিশেষ প্রতিনিধি মোঃ ইউনুস আলী : চাল-ডাল-তেলসহ নিত্যপণ্যের দাম কমানোর এবং চিকিৎসাক্ষেত্রে নৈরাজ্য দূর করার দাবিতে গণকমিটি মাগুরা জেলার উদ্যোগে ১৫ জুন বুধবার সকাল ১১টায় চৌরঙ্গী মোড়ে মাগুরা জেলা প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গণকমিটির আহ্বায়ক এটিএম মহব্বত আলী এবং সমাবেশ পরিচালনা করেন সদস্য সচিব প্রকৌশলী শম্পা বসু। বক্তব্য প্রদান করেন, গণকমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী নজরুল ইসলাম ফিরোজ, গণকমিটি মাগুরা জেলার অন্যতম সদস্য বাসারুল হায়দার বাচ্চু।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ভরা মৌসুমেও চালের দাম বেড়ে গেছে। বাজারে প্রচুর চাল। কিন্তু কয়েকটি বড় কম্পানি সিন্ডিকেট করে সব ধরনের চালের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীগণ মুখে মুখে ব্যবসায়ীদের দোষারোপ করেন, কয়দিন লোক দেখানো অভিযান পরিচালনা করা হয়। তারপর যথারীতি বর্ধিত দামে জনগণকে চাল কিনতে হয়। অবৈধ সিন্ডিকেট ব্যবসায়ীরা আরও মুনাফা করে; তাদের কোন শাস্তি হয় না। এই চিত্র সয়াবিন তেল, ডালসহ সকল নিত্যপণ্যের বেলায় সত্য।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, মাগুরা জেলায় চিকিৎসা ক্ষেত্রে চরম নৈরাজ্য চলছে। এখানে ব্যাঙের ছাতার মতো অবৈধ ক্লিনিক গজিয়ে উঠেছে। এগুলোতে কখনো নার্স ডাক্তার সেজে অপারেশন করে রোগী মেরে ফেলে, কখনো রোগীর শরীরে অন্য গ্রুপের রক্ত ঢুকিয়ে মেরে ফেলে। তারপর এদের কিছু জরিমানা হয়; কয়দিন ক্লিনিক বন্ধ থাকে; তারপর উপর মহলে টাকা দিয়ে আবারও খুলে যায় এসব ক্লিনিক। সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা অপর্যাপ্ত। ওষুধ, টেস্ট, অপারেশনসহ বেশিরভাগ চিকিৎসা হাসপাতালের বাইরে থেকে নিতে হয়। ফলে রোগীরা এসব ক্লিনিকে যেতে একভাবে বাধ্য হয় এবং অপচিকিৎসার শিকার হন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, অবিলম্বে সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম ভেঙে ভোজ্য তেল, চাল, ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ, মজুতদার ও মূল্যবৃদ্ধির জন্য দায়ীদের শাস্তি, রেশনিং ব্যাবস্থা চালু করতে হবে এবং মাগুরা জেলায় চিকিৎসা ক্ষেত্রে নৈরাজ্য বন্ধ করে, সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।