কুমিল্লায় কোরআনে হাফেজদের মাঝে পাগড়ী প্রদান

91

কুমিল্লায় কোরআনে হাফেজদের মাঝে পাগড়ী প্রদান,পুরস্কার বিতরনী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
রবিবার (৩০ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিঃ) কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার হাউজিং এস্টেট বাড়ি নং-৩, ব্লক–ইউ,সেকশন নং- ৪, মারুফুল কুরআন হিফয মাদরাসায় এ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন  করা হয়।
কুমিল্লা হাউজিং এস্টেট মারুফুল কুরআন হিফজ মাদ্রাসার ছাত্র হাফেজ আবদুল্লাহ বিন আবদুল আউয়ালসহ মোট ১৪জন হাফেজের মাথায় পাগড়ী পড়িয়ে দেন অতিথিরা। অনুষ্ঠানে কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে সার্টিফিকেট ও টাকা প্রদান করেন অতিথিবৃন্দ।

মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক  এইচ এম আলমগীর হোসেনের উপস্থিতিতে হাজী মোঃ নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আলোচনা ও মোনাজাত পরিচালনা করেন চান্দিনা আল- আমিন মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা মাহবুবুর রহমান আশরাফী। 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,কুমিল্লা হাই স্কুলের শিক্ষক ও স্কুল মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ আলী,কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ১৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী মোঃ আফসার মিয়া, পিয়ারলেস ম্যাটস এর ব্যবস্হাপনা পরিচালক ডাঃ মোঃ আবদুল আউয়াল সরকারসহ মাদরাসার শিক্ষক ইফতেখার আহমেদইফানসহ,অভিভাবক,কর্মকর্তা- কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা।উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন  সংগীতশিল্পী ও উপস্থাপক সাকিব আব্দুল্লাহ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন,কোরআন সর্বশেষ ঐশী গ্রন্থ। আল্লাহ কোরআনকে কিয়ামত পর্যন্ত আগত মানুষের জন্য মনোনীত করেছেন এবং পৃথিবীর শেষদিন পর্যন্ত রক্ষার অঙ্গীকার করেছেন। মুসলিম সমাজ ও রাষ্ট্রে হাফেজদের বিশেষ মর্যাদা রয়েছে। যেমন—ইসলামী সমাজব্যবস্থায় ইমামের একটি বিশেষ মর্যাদা আছে।

আর কোরআনের অধিক বিশুদ্ধ তিলাওয়াতকারী হিসেবে হাফেজরা এ ক্ষেত্রে এগিয়ে থাকেন। কোরআনের হাফেজ মুমিনদের মধ্যে সর্বোত্তম ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্ত। হাফেজদের অন্তরে কোরআন সংরক্ষণ আল্লাহর কুদরতের বহিঃপ্রকাশ।

হাফেজরা সর্বশ্রেষ্ঠ বাণী কোরআনের ধারক।কুমিল্লা আদর্স সদর  উপজেলার প্রাণকেন্দ্রে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি জ্ঞানের আলো ছড়াচ্ছেন। উত্তরোত্তর এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে এ প্রত্যাশা করছি। মাদরাসার পরিবেশ ও শিক্ষার গুণগত মান দেখে আমরা আনন্দিত। শিক্ষকসহ এ প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সাথে যারা জড়িত তাঁদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন অতিথিবৃন্দ।