কাউখালীর বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং, রাতভর ডাকাত আতঙ্ক

81

তারিকুর রহমান তারেক, কাউখালী (পিরোজপুর) প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলায় গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে হঠাৎ ডাকাতের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ডাকাতির ভয়ে মানুষের নির্ঘুম রাত কাটে। বিশেষ করে উপজেলার সিমান্তবর্তী নাঙ্গুলী,জয়কুল,শিয়ালকাঠি, মাগুরা গ্রামগুলোর মানুষের মধ্যে ডাকাত আতঙ্ক ছিল সীমাহীন।গভীর রাতে হঠাৎ করেই ‘ডাকাত ঢুকেছে’ গুজব ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন মসজিদে মাইকিং করা হয়।

 স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে পার্শ্ববর্তী রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া ইউনিয়নয় পরিষদের চেয়ারম্যান মাইনুল ইসলাম পিনুসহ এলাকার লোকজন

টানা ২ দিনের বৃষ্টির কারণে ডাকাতি সংঘটিত হতে পারে এমন সন্দেহে এলাকায় পাহারা দেন। পরে ফেসবুকে একটি পোস্টের মাধ্যমে চেয়ারম্যানসহ এলাকাবাসীর পাহারা দেয়ার ওই ছবিসহ সবাইকে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানান। এই খবরটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে পুরো কাউখালী উপজেলা জুড়ে আতঙ্ক তৈরি হয়। এ সময় এলাকার মসজিদে মসজিদে মাইকিং করে সবাইকে সতর্ক থাকতে বলা হয়। ডাকাত ঢুকেছে এমন খবর পেয়ে এলাকার মানুষ জড়ো হয়ে লাঠি নিয়ে রাস্তায় অবস্থান নেন। ডাকাতের আতঙ্কে সারা রাত এলাকা পাহারা দেন তাঁরা।

উপজেলার দক্ষিণ বাজারের ব্যবসায়ী মনজুরুল কবির পিয়ারু বলেন, রাতে এলাকায় ডাকাত ঢুকেছে বলে বিভিন্ন স্থান থেকে খবর পাওয়ার পর আমরা স্থানীয়দের সাথে নিয়ে রাতে এলাকায় পাহারা দেই।

উপজেলার কেউন্দীয়া গ্রামের আব্দুল লতিফ খসরু বলেন, ‘রাত ১২টার দিকে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেওয়া হয়, এলাকায় ডাকাত ঢুকেছে, সবাই যেন সতর্ক থাকি। পরে নিশ্চিত হই যে এটা গুজব ছিল।

কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)  বনি আমিন জানান, রাতে কোথাও কোনো ডাকাতির ঘটনা ঘটেনি। এটা গুজব। তবে এই গুজবের কারণে রাতে পুলিশ বাড়তি টহলের ব্যবস্থা করেছিল।