উপসর্গ থাকলেও পরীক্ষায় কোভিড নেগেটিভ? যা করণীয়

89

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা আবারও বেড়ে চলেছে। যদিও অনেকেই সুস্থ হয়ে উঠছেন। এমনকি আগের মতো এখন হাসপাতালে করোনা রোগীর ভিড়ও কমেছে। কারণ করোনার উপসর্গ এখন অনেকটাই মৃদু হিসেবে প্রকাশ পাচ্ছে।

এমনকি অনেকে উপসর্গহীন কোভিড রোগী। সবচেয়ে অবাক করা বিষয় হলো, এখন অনেক রোগীই করোনার বিভিন্ন উপসর্গে ভুগছেন ঠিকই কিন্তু কোভিড টেস্ট করালেই আসছে নেগেটিভ। এমন বিড়ম্বনায় কী করণীয় তা ভেবে পান না অনেকেই। তবে কেন এমনটি হয়?

বেশিরভাগ সময়ই নমুনা সংগ্রহের ভুলেই রিপোর্ট ‘নেগেটিভ’ আসতে পারে। আবার ওমিক্রনের ক্ষেত্রে একটি বিশেষ রূপ দেখা যাচ্ছে যেটিকে অভিহিত করা হয়েছে ‘স্টেলথ ওমিক্রন’ নামে।
এর ক্ষেত্রেও কোভিড পরীক্ষায় ভুল ফলাফল আসতে পারে। কেউ কেউ আবার র‌্যাপিড পরীক্ষা করেন। এটিতে কোভিড ধরা না পড়লেও নিশ্চিত ভাবে রোগীকে কোভিডমুক্ত বলা যায় না।

এমন ক্ষেত্রে কী করণীয়?

চিকিৎসকদের মতে, ফলাফল যাই আসুক না কেন কোভিডের উপসর্গ থাকলে অবশ্যই আইসোলেশনে থাকুন। গলাব্যথা, জ্বর কিংবা সর্দির মতো উপসর্গ থাকলে ২৪-৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আরও একবার কোভিড পরীক্ষা করে নিন।

যারা র‌্যাপিড পরীক্ষা করেছেন সঠিক ফলাফলের জন্য তাদের করতে হবে আরটি পিসিআর পরীক্ষা। কোভিডমুক্তির ক্ষেত্রে বাড়িতে করা পরীক্ষার উপর ভরসা করা ঠিক নয়।

যারা একেবারেই নিশ্চিত হতে পারছেন না তারা চাইলে আণবিক পরীক্ষাও করাতে পারেন। তবে এই দ্বিতীয় ফলাফল না আসা পর্যন্ত কোভিড রোগীর যা যা নিয়ম পালন করতে হয়, সেগুলো অবশ্যই পালন করুন।

সূত্র: এনএইচএস