আল্লাহ বিপদে মানুষের ধৈর্য পরীক্ষা করেন : শেখ হাসিনা

94

আজ ১০ মহররম (৯ আগস্ট) পবিত্র আশুরা। সারাবিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য অত্যন্ত শোকাবহ ও তাৎপর্যপূর্ণ দিন এটি। আরবি হিজরি সনের প্রথম মাস মহররমের ১০ তারিখ পবিত্র আশুরা হিসেবে পরিচিত। বিশেষ এই দিনটিতে আল্লাহর রহমত ও ক্ষমা প্রাপ্তির আশায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা নফল রোজা-নামাজ আদায়ের পাশাপাশি দান-খয়রাত করে থাকেন।

পবিত্র আশুরা উপলক্ষে বাণী প্রদান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আল্লাহ বিপদে মানুষের ধৈর্য পরীক্ষা করেন উল্লেখ করে পবিত্র আশুরা উপলক্ষে প্রদত্ত বাণীতে শেখ হাসিনা বলেছেন, পবিত্র আশুরা অত্যন্ত শোকাবহ, তাৎপর্যপূর্ণ এবং মহিমান্বিত একটি দিন। বিভিন্ন কারণে এই দিনটি বিশ্বের মুসলমানদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, পবিত্র এবং ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ।

হিজরি ৬১ সালের ১০ মহরম মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রিয় দৌহিত্র হজরত ইমাম হোসেন (রাঃ) এবং তাঁর পরিবারবর্গ কারবালা প্রান্তরে শাহদত বরণ করেন। সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠায় তাঁদের এই আত্মত্যাগ মুসলিম উম্মার জন্য এক উজ্জ্বল ও অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে।

করোনাভাইরাস আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। আমাদের সরকার এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে। আমরা জনগণকে সব রকম সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রেখেছি।

আল্লাহ বিপদে মানুষের ধৈর্য পরীক্ষা করেন। এসময় সকলকে অসীম ধৈর্য নিয়ে সহনশীল ও সহানুভূতিশীল মনে একে অন্যকে সাহায্য করে যেতে হবে। পাশাপাশি আমি এই মহামারিতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র আশুরা পালন করার অনুরোধ জানাই।

আমরা যেন ঘরে পরিবার-পরিজন নিয়ে পবিত্র আশুরার আনন্দ উপভোগ করি। আল্লাহতায়ালার দরবারে বিশেষ দোয়া করি যেন এই সংক্রমণ থেকে সবাই দ্রুত মুক্তি পাই।

আসুন, আমরা সবাই পবিত্র আশুরার মর্মবাণী অন্তরে ধারণ করে জাতীয় জীবনে সত্য এবং ন্যায় প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনকল্যাণমুখী কাজে অংশ নিয়ে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বৈষম্যহীন, সুখী, সমৃদ্ধ ও শান্তিপূর্ণ সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলি। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু। বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।