Logo
সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮ | ২৬শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

শিক্ষকদের সঙ্গে বসেছে ভিকারুননিসার ছাত্রীরা

প্রকাশের সময়: ৩:২৭ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | ডিসেম্বর ৬, ২০১৮

তৃতীয় মাত্রা

রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীর আত্মহত্যার পর উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বসেছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষকরা।

এরআগে প্রতিষ্ঠানটির সকল শাখার শিক্ষক ভিকারুননিসার মূল ক্যাম্পাসে জরুরি বৈঠকে বসলেও ওই বৈঠকের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।

এরইমধ্যে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরিচালনা কমিটির সভাপতি গোলাম আশরাফ তালুকদার বলেছেন, প্রতিষ্ঠানের বৃহত্তর স্বার্থে প্রয়োজনে তিনি পদত্যাগ করতে রাজি আছেন।

সোমবার দুপুরে অরিত্রির আত্মহত্যার পর মঙ্গলবার থেকে আন্দোলন চালিয়ে আসছিল তার সহপাঠীরা।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই ভিকারুননিসার অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতী শাখার প্রধান জিনাত আক্তার ও শ্রেণি শিক্ষিকা হাসনা হেনাবে বরখাস্তের নির্দেশ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বুধবার রাতে গ্রেফতার হন রাতে গ্রেফতার হন হাসনা হেনা।

বৃহস্পতিবারও শিক্ষার্থীরা তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ করলেও তা আগের দিনের তুলনায় দুর্বল। এরই মধ্যে শিক্ষার্থীরা তাদের ছয় দফা দাবি লিখিত আকারে শিক্ষা মন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দিয়েছেন।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর শান্তিনগরের নিজ বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয় অরিত্রি। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল (ঢামেক) কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অরিত্রির আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে তারা বাবা দিলীপ অধিকারী বলেছিলেন, অরিত্রির স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষা চলছিল। রোববার সমাজবিজ্ঞান পরীক্ষা চলার সময় তার কাছে একটি মোবাইল ফোন পাওয়া যায়। এজন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাদের ডেকে পাঠায়। সোমবার স্কুলে গেলে স্কুল কর্তৃপক্ষ আমাদের জানায়, অরিত্রি মোবাইল ফোনে নকল করছিল, তাই তাকে বহিষ্কারের (টিসি) সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ আমার মেয়ের সামনে আমাকে অনেক অপমান করে। এই অপমান এবং পরীক্ষা আর দিতে না পারার মানসিক আঘাত সইতে না পেরে সে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। বাসায় ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেয় অরিত্রি।

এ ঘটনার পর মঙ্গলবার রাত ১০টায় রাজধানীর পল্টন থানায় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস, প্রভাতী শাখার প্রধান জিনাত আক্তার ও শ্রেণি শিক্ষিকা হাসনা হেনার বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচণার মামলা দায়ের করেন অরিত্রির বাবা।

সূত্র: জাগোনিউজ২৪
Read previous post:
জার্সির নতুন নম্বরে তামিম-মাশরাফি!

(প্রতিকী ছবি) তৃতীয় মাত্রা : ২০০১ সালে রঙিন পোশাকে অভিষেকের পর থেকে ২০ নম্বর জার্সিতে মাঠ মাতিয়েছেন বর্তমান ওয়ানডে অধিনায়ক...

Close

উপরে