Logo
বৃহস্পতিবার, ২৮ মে, ২০২০ | ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চার ভুলে ডুবেছে বাংলাদেশ

প্রকাশের সময়: ১২:৪৯ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৬

Teammates congratulate Bangladesh's Shakib Al Hasan, center, after the dismissal of Afghanistan's Nawroz Mangal during the second one-day international cricket match in Dhaka, Bangladesh, Wednesday, Sept. 28, 2016. (AP Photo/A.M. Ahad)

একটি ম্যাচ হেরে যাওয়া মানে সবকিছু শেষ হয়ে যাওয়া নয়। তবু যখন আপনি হারবেন, তখন বুঝতে হবে কিছু না কিছু বিষয় ভুল পথে গেছে বলেই এমন ফল দেখতে হয়েছে। এই ‘ভুলে’র ভেতর মাঠ এবং মাঠের বাইরের সব বিষয় জড়িত। তেমনই চারটি ভুল দৃষ্টিকটু হয়ে ভেসে উঠেছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওডিআইতে।

১. দল নির্বাচন: সৌম্য সরকার রানে নেই দীর্ঘদিন। ঘরোয়া-আন্তর্জাতিক মিলিয়ে প্রায় ৫১টি ম্যাচের মতো ফ্লপ তিনি। ওদিকে আরেক ওপেনার ইমরুল কায়েস রানে আছেন। প্রথম ম্যাচে ৩৭ করেছিলেন। শুরুতে সৌম্য সরকার আউট হওয়ার পর তামিম ইকবালকে নিয়ে ধাক্কা সামলান। এই সিরিজের আগে বাংলাদেশের সর্বশেষ দুই ওয়ানডেতেও ইমরুলের রান ছিল ৭৬ ও ৭৩। সেই ইমরুলকে গতকাল বসিয়ে দেয়া হয়। ‘প্রেফার’ করা হয় সৌম্যকে।

এছাড়া বছরের এই সময় মিরপুরের উইকেটে সাধারণত স্পিন বেশি ধরে। অথচ বাংলাদেশ পেসার খেলাচ্ছে বেশি। স্পেশালিষ্ট স্পিনার মাত্র একজন, তাইজুল। বাকিরা অলরাউন্ডার। সিরিজ শুরু হওয়ার আগে জাতীয় দলের সাবেক স্পিনার ওয়াহিদুল গনি এই প্রতিবেদকের কাছে বিষয়টি নিয়ে এভাবে শঙ্কা প্রকাশ করেন, ‘যতই পেসারদের কথা বলা হোক, বাংলাদেশে খেলা হলে স্পিনার লাগবেই। ম্যাচ শুরু হলে স্পিনারদের অভাব বোঝা যাবে।’

গতকাল পেসাররা ছিলেন নিদারুণ অসহায়। একমাত্র মাশরাফি ছাড়া কেউ ১০ ওভার শেষ করতে পারেননি। রুবেল ৩ ওভারে ২৪ রান দিলে মাশরাফি তাকে বসিয়ে দেন। তাসকিন ৪.৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে খরচ করেন ৩২।

২. রিয়াদকে ব্যবহার না করা: আইটেম স্পিনার হলেও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ স্পিনটা ভালোই পারেন। মাশরাফি তাকে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ব্যবহারও করে থাকেন। কিন্তু গতকাল রিয়াদকে দিয়ে এক ওভারও করানো হয়নি।

৩. উইকেট কিপিংয়ে দুর্বলতা: মুশফিক প্রথম ম্যাচে নড়বড়ে ছিলেন। দ্বিতীয় ম্যাচে তো শেষ দিকে মোসাদ্দেকের বলে স্ট্যাম্পিং মিস করে ম্যাচটাই শেষ করে দেন। ২৪ বলে ওই সময় আফগানদের দরকার ছিল ১৫। আশরাফ মোসাদ্দেকের বল পড়তে না পেরে উইকেট ছেড়ে এসে লাইন মিস করেন। মিস করেন মুশফিকও। ওই আশরাফ শেষ পর্যন্ত ম্যাচ শেষ করে দেন।

৪. ব্যাটসম্যানদের বাজে শট: ম্যাচ শেষে মাশরাফি অনুমিত কথাটাই বললেন, ‘আমরা ২০/৩০ রান কম করেছিলাম।’ অধিকাংশ ব্যাটসম্যান যেভাবে আউট হয়েছেন তা ছিল দৃষ্টিকটু। সাকিবের ব্যাপারটি অবশ্য আলাদা। আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তের বলি হন তিনি।
Read previous post:
কাঠগড়ায় মুশফিকের কিপিং

আফগানিস্তান ইনিংসের ৪৭তম ওভারের খেলা চলছে তখন। জিততে সফরকারীদের দরকার ২০ বলে ১৩ রান। হাতে ৩ উইকেট। মোসাদ্দেক হোসেনের করা...

Close

উপরে