Logo
বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চো পাম অয়েলের দাম

প্রকাশের সময়: ১২:৪৬ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৭

তৃতীয়মাত্রা:

পাম অয়েলের অন্যতম শীর্ষ উৎপাদনকারী ও রফতানিকারক দেশ মালয়েশিয়া। দেশটিতে গত জুলাইয়ে পণ্যটির মজুদ বেড়ে এক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ অবস্থানে পৌঁছেছে। এ খবরের জের ধরে পাম অয়েলের দাম কমার আশঙ্কা করেছিলেন সংশ্লিষ্টরা। তবে বাজারে উল্টো চিত্র দেখা গেছে। গতকাল পণ্যটির দাম বেড়ে ছয় মাসের মধ্যে সর্বোচ্চে উঠেছে। মূলত মজুদ বাড়লেও চীনে পণ্যটির বাড়তি চাহিদার কারণে বেচাকেনা বেশি হওয়া ও আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন তেলের মূল্যবৃদ্ধির খবরে পাম অয়েলের দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার ব্যবসায়ীরা। খবর স্টার অনলাইন।

বুরসা মালয়েশিয়া ডেরিভেটিভস এক্সচেঞ্জে গতকাল দিনের শুরুতে প্রতি টন পাম অয়েলের দাম ২ হাজার ৮৬৪ রিঙ্গিতে ওঠে, যা গত ৯ মার্চের পর সর্বোচ্চ। তবে দিন শেষে নভেম্বরে সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি টন পাম অয়েল ২ হাজার ৮৩৮ রিঙ্গিতে (৬৭৬ ডলার ০৪ সেন্ট) বিক্রি হয়, যা আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৩২ শতাংশ বেশি। এদিন সব মিলে ২২ হাজার ৪৭ লট (প্রতি লটে ২৫ টন) পাম অয়েল কেনাবেচা হয়। এর আগে গত মাসের মাঝামাঝি সময়ে মালয়েশিয়ার বাজারে প্রতি টন পাম অয়েলের দাম ২ হাজার ৬৮৫ রিঙ্গিত উঠেছিল।

মালয়েশিয়ার পাম অয়েল ব্যবসায়ীরা জানান, আসন্ন উৎসবের মৌসুমকে কেন্দ্র করে চীনে পণ্যটির চাহিদা বেড়েছে। ফলে পাম অয়েল বেচাকেনা বেড়েছে। অন্যদিকে শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) ও ডালিয়ান কমোডিটি এক্সচেঞ্জে গতকাল সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে। এ দুই খবরের জের ধরে মালয়েশিয়ার বাজারেও বেড়েছে পাম অয়েলের দাম। গতকাল সিবিওটিতে সয়াবিন তেলের দাম আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৪ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে ডালিয়ান কমোডিটি এক্সচেঞ্জে জানুয়ারিতে সরবরাহ চুক্তিতে

সয়াবিন তেলের দাম আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে। এখানে জানুয়ারিতে সরবরাহ চুক্তিতে পাম অয়েলের দাম বেড়েছে ২ দশমিক ৫ শতাংশ। এদিকে মালয়েশিয়ান পাম অয়েল বোর্ড জানিয়েছে, আগস্টে দেশটিতে পাম অয়েলের মজুদ দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৪০ হাজার টন, যা গত জুনের চেয়ে ৮ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেশি।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Read previous post:
টানা চার নিলামে বেড়েছে চায়ের দাম

তৃতীয়মাত্রা: চলতি বছরের শুরুতে সর্বোচ্চ দর ওঠার পর কিছুটা নিম্নমুখী ছিল চায়ের বাজার। তবে চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ধারাবাহিকভাবে বাড়তে শুরু...

Close

উপরে