Logo
বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সিদ্দিকুরের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময়: ৫:৪১ অপরাহ্ণ - বুধবার | সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

তৃতীয়মাত্রা :

পুলিশের টিয়ারশেলের চোখ হারানো তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমানের হাতে এসেনশিয়াল ড্রাগসে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

বুধবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী দেশের একমাত্র ওষুধ উৎপাদনকারী সরকারি প্রতিষ্ঠান এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেডে (ইডিসিএল) টেলিফোন অপারেটর হিসেবে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন।

আগামী ১ অক্টোবর থেকে ইডিসিএলে টেলিফোন অপারেটর হিসেবে কাজ করবেন সিদ্দিকুর। প্রাথমিকভাবে তিনি ১৩ হাজার টাকা মূল বেতন ও অন্যান্য সুবিধাদি পাবেন। এক বছর পর চাকরি স্থায়ী হলে ২৩ হাজার টাকা মূল বেতন ও অন্যান্য সুবিধা পাবেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তা বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছি। পুলিশের টিয়ারশেলে মেধাবী শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর দু’চোখের দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছেন। আমি যখন সিদ্দিকুরকে দেখতে যাই তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম ওর চোখ ভালো হোক আর না হোক এসেনশিয়াল ড্রাগসে চাকরি দেব।

তিনি বলেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সিদ্দিকুরের ইন্টারভিউ নিয়েছেন। যেহেতু চোখ নেই কাজ করতে সমস্যা হবে, তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি টেলিফোন অপারেটর পদে তাকে চাকরি দেয়া হবে। সঙ্গে সঙ্গে তার লেখাপড়াও চলবে।

চোখে না দেখলেও সে কাজ করতে পারবে, আমার মনে হয় এটা উপযুক্ত চাকরিই হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন নাসিম।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমরা সবাই খুশি যে তার জন্য একটি কাজ করতে পেরেছি। এটা বেদনার মধ্যেও একটু স্বস্তি আর কি। সিদ্দিক ও তার পরিবারের জন্য আমাদের সহানুভূতি আছে।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, সবাইকে ধন্যবাদ। শুরু থেকে সরকার আমরা পক্ষে ছিল। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমার সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নিয়েছেন। মিডিয়াকেও আমি বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাই, তারা সবসময় আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে। আমার কলেজের অধ্যক্ষ ও শিক্ষকরাও আমার পাশে ছিলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের সার্বিক সফলতা কামনা করে সিদ্দিকুর বলেন, তারা যাতে ভালো অবস্থানে যেতে পারে। এ কলেজগুলোর শিক্ষা কার্যক্রম যাতে স্বাভাবিক থাকে। আমি সবার জন্য দোয়া করি, কাউকে যেন আমার মতো দুর্ঘটনায় না পড়তে হয়।

বড় কিছু করার স্বপ্ন, এরপর চোখ হারিয়ে এই চাকরি- আপনার প্রতিক্রিয়া কি জানতে চাইলে সিদ্দিকুর বলেন, ‘আমি আমার স্বপ্ন থেকে পিছিয়ে আসিনি। আমি আমার স্বপ্নের পেছনে দৌড়াব।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রাজধানীর সাতটি সরকারি কলেজের পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে শাহবাগে আন্দোলনের সময় গত ২০ জুলাই পুলিশের টিয়ারশেলের আঘাতে চোখে গুরুতর আঘাত পান সিদ্দিকুর রহমান। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভারতের চেন্নাইয়ে পাঠানো হয়।

চেন্নাইয়ের শঙ্কর নেত্রালয়ের চিকিৎসকরা চোখ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ভালো না হওয়ার কথা জানালে সিদ্দিকুর রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, ইডিসিএল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. এহসানুল কবির উপস্থিত ছিলেন।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Read previous post:
রোহিঙ্গার জন্য খরচ বাড়বে ৮ হাজার কোটি টাকা

তৃতীয়মাত্রা: জীবনযাত্রার নূন্যতম মান ঠিক রেখে রোহিঙ্গাদের দেশে রাখতে হলে বছরে সরকারের খরচ বাড়বে প্রায় আট হাজার কোটি টাকা। যা...

Close

উপরে