Logo
বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ | ৫ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

আ.লীগের এমপি নামে আদালতে মানবতাবিরোধী অপরাধে মামলা

প্রকাশের সময়: ৭:৪৩ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | জানুয়ারি ২৪, ২০১৭

দৈনিক তৃতীয় মাত্রাঃ

শাহ আলম উজ্জ্বল, ময়মনসিংহ প্রতিনিধিঃ একাত্তর সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়িয়া) আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য (এমপি) মোসলেম উদ্দিনের বিরুদ্ধে  এক মুক্তিযোদ্ধা আজ সোমবার আদালতে মামলা দায়ের করেছে। আদালরে বিঞ্জ বিচারক মোঃ মাহবুবুল হক মামলাটি আমলে নিয়ে আন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইবুন্যালকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ।
ময়মনসিংহের ২ নম্বর আমলি আদালতে আজ সোমবার মামলাটি করেন ফুলবাড়িয়ার মুক্তিযোদ্ধা জালাল উদ্দিন মামলাটি করেছেন। এতে সরকার দলীয় সংসদ সদস্যসহ ১৬ আসামির নাম উল্লেখ আরো অজ্ঞাত ২০/২৫ জনকে আসামি করেছেন। আলোচিত এ মামলার ২৪ সাক্ষীর মধ্যে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান,বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী ও মুক্তাগাছার সাবেক এমপি মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক খন্দকার আব্দুল মালেক শহীদুল্লাহ’র নাম রয়েছে।

মামলা পরিচালনাকারী আইনজীবী ফজলুল হক দুলাল বলেন, আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মামলাটি আমলে নিয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার অন্য আসামিদের মধ্যে রয়েছেন ফয়জুল বারী, সামাদ মাস্টার, আবদুল মন্ডল, মফিজ উদ্দিন, রিয়াজ উদ্দিন, মুকছেদ আলী, এবাদুল্লাহ, মুকসেদ আলী, ওয়াহেদ আলী মুনসী, ছোহরাব আলী, আবুল হোসেন, মুছা, আবদুল হালিম, কুদ্দুস, গিয়াসউদ্দিন।
মামলায় মুক্তিযুদ্ধের সময় এক নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা এবং ২৫ পুরুষসহ মোট ২৬ জনকে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।
মামলার আবেদনে বলা হয়, ১৯৭১ সালের ২৭ জুন আসামিরা ৩৩ পাঞ্জাব রেজিমেন্টের সদস্যদের নিয়ে জোড়বাড়িয়া গ্রামে বাদীর বাড়িতে লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ চালায়। একই দিনে ওই গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক, রাজ্জাক, ছালাম, মান্নান, ভালুকজানের পালবাড়ী ও ঋষিবাড়ীতে অগ্নিসংযোগ করে তারা। একপর্যায়ে আসামিদের কয়েকজন ভালুকজান গ্রামের মালেকা খাতুনকে ধর্ষণের পর হত্যা করে।
এর পরের দিন ২৮ জুন একই আসামিরা পাকিস্তানি বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে কৈয়েরচালা গ্রামের বসু চৌধুরী, ১২ জুন মুক্তিযোদ্ধা মজিদসহ আটজনকে হত্যা করে।

এ ছাড়া ওই দিন গ্রামটির নারীদের ধর্ষণ করে বর্বর নির্যাতন চালায় এই আসামিরা। এরপর ২৯ নভেম্বর তালেব আলী, সেকান্দর আলী, আলতাব আলীকেও হত্যা করে আসামিরা।  এর আগে ১০ নভেম্বর আছিম এলাকার আছিম উদ্দিন মোল্লা  ইসমাইল মাস্টার , আবদুল কাদের, আবদুল করিম, আবদুর রশিদ, নায়েব আলীসহ অনেক মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষকে হত্যা করে ভালুকজান বধ্যভূমিতে ফেলে দেওয়া হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।এ ছাড়া ১৪ জুলাই শহীদুল্লাহ মাস্টার ও ছাবেদ আলীকে হত্যায় উলি¬খিত আসামিদের ভূমিকা রয়েছে বলেও মামলার আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে ।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Read previous post:
ফিল্ডিং পরামর্শক হিসেবে জন্টি রোডসকে চায় বিসিবি

নিউজিল্যান্ড সফরে বাজে ফিল্ডিং ভুগিয়েছে বাংলাদেশকে। তিন ওয়ানডে, তিন টি-টোয়েন্টি ও দুই টেস্টে গোটা বিশেক ক্যাচ হাতছাড়া করেছেন দলের ফিল্ডাররা।...

Close

উপরে