Logo
রবিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২১ | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

রসুলপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীদের মোটরসাইকেল শোডাউন

প্রকাশের সময়: ৯:৫৭ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | অক্টোবর ১৭, ২০২১
তৃতীয় মাত্রা
মোঃ ইমরান ইসলাম, নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর নিয়ামতপুরে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দূর্গা উৎসবের বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন ও মন্ডপে মন্ডপে আর্থিক অনুদান,মোটরসাইকেল শোডাউন, সাধারণ ভোটারদের সাথে কুশল বিনিময় করেছে, রসুলপুর ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও অত্র ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের আহবায়ক মোঃ বাবুল আকতার বাবু, একরামুল হক ,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মোশারফ হোসেন ভিকু, রসুলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য আনারুল ইসলাম রঘু।
উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের মুন্দিখৈর সার্বজনীন পূজামন্ডপ পরিদর্শনে গেলে কর্মী-সমর্থক ও দর্শনার্থীদের ভিড়ে মন্ডপ চত্বরে তৈরি হয় উৎসব মুখর পরিবেশ।পূজামন্ডপ পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন,মুন্দিখৈর পূজামন্ডপের সভাপতি দিপংকর বর্মন, সাধারণ সম্পাদক মলিন বর্মন প্রমুখ।
বাবুল আক্তার বাবু বলেন, সকল মানুষের শান্তি কামনায় এবং সর্বজীবের মঙ্গলার্থে হিন্দু সম্প্রদায় বিপুল উৎসবমুখর পরিবেশে প্রতি বছর উদযাপন করে থাকে তাদের সবচেয়ে বড় শারদীয় দুর্গোৎসব। গত বছর করোনায় কারণে এই আনন্দধারায় কিছুটা হলেও প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে, কিন্তু এবার করোনা সংক্রমন কম থাকায় উৎসবমুখর পরিবেশে দূর্গা উৎসব হয়েছে। তবে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এ বাধা অতিক্রম করতে আমরা সক্ষম হয়েছি।
তিনি আরোও বলেন, দালাল, মাদক, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাস,বাল্য বিবাহ মুক্ত,  পরিচ্ছন্ন, আধুনিক, ডিজিটাল এবং উন্নত ইউনিয়ন পরিষদ গড়তে , ইউনিয়ন পরিষদে নাগরিকের সকল সুযোগ সুবিধা  সুনিশ্চিত করতে , দল মত, ধর্ম- বর্ণ নির্বিশেষে তরুণদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে একসাথে কাজ করতে চাই।
একরামুল হক বলেন, ধর্ম যার যার উৎসব সবার। এই আত্মবিশ্বাসে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ইউনিয়নের বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করছি। এ উৎসব সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে মণ্ডপ কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোশাররফ হোসেন ভিকু বলেন, মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে সরকারি বিধিনিষেধের কারণে গতবছর মণ্ডপগুলোতে দর্শনার্থীদের তেমন ভিড় ছিল না। অনেকেই বাড়ি থেকে বের হননি। কিন্তু এবারের চিত্র পুরোটাই উল্টো।
তিনি আরো বলেন, উপজেলার সর্বত্র বইছে নির্বাচনী আমেজ। এজন্য সম্ভাব্য প্রার্থীরা কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে ছুটছেন মণ্ডপে মণ্ডপে। এবারে সরকারি বিধিনিষেধ না থাকায় বেড়েছে দর্শনার্থী সংখ্যাও। সবমিলিয়ে এবারের দুর্গোৎসব সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে।
রসুলপুর আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য আনারুল ইসলাম রঘু বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও আমরা বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করি। সবার সাথে কুশল বিনিময় করি। আমাদের সবাইকে এক হয়ে দলকে আরোও শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে হবে।
উল্লেখ্য, নিয়ামতপুর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে এবারে ৬২টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
Read previous post:
৫ প্রদেশে মেয়েদের লেখাপড়া করার অনুমতি দিয়েছে তালেবান

তৃতীয় মাত্রা জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা— ইউনিসেফ জানিয়েছে, আফগানিস্তানের পাঁচ প্রদেশের গার্লস স্কুলগুলো খুলে দিয়েছে তালেবান সরকার। এই পাঁচ প্রদেশ হচ্ছে—...

Close

উপরে