Logo
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২১ | ১২ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ঢাকার ৮ জেলা ও সিলেট বিভাগের আ.লীগ প্রার্থী চূড়ান্ত

প্রকাশের সময়: ১০:২৫ পূর্বাহ্ণ - সোমবার | অক্টোবর ১১, ২০২১

তৃতীয় মাত্রা

দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঢাকা বিভাগের বাকি আট জেলা এবং সিলেট বিভাগের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে রোববার দলের স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের চতুর্থ দিনের সভায় এ তালিকা চূড়ান্ত করা হয়।

আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সভায় মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের মধ্যে আমির হোসেন আমু, শেখ আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ, ওবায়দুল কাদের, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, কাজী জাফর উল্লাহ, ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক, লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, রশিদুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকা বিভাগ : ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার কুশুরা ইউনিয়নে মো. নুরুজ্জামান। টাঙ্গাইল জেলার ধনবাড়ির উপজেলার বীরতারায় আহাম্মদ আল ফরিদ, বানিয়াজানে মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার, যদুনাথপুরে মীর ফিরোজ আহমেদ, পাইস্কায় মুহাম্মদ আব্দুল মান্নান, ধোপাখালীতে মো. আকবর হোসেন, মুশুদ্দিতে মো. আবুল কায়ছার, বলিভদ্রতে মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার। সখিপুর উপজেলার যাবদপুরে একেএম আতিকুর রহমান, বহরিয়ায় গোলাম কিবরিয়া, বহেরাতৈল ইউনিয়নে মো. ওয়াদুদ হোসেন, কাকড়াজানে তারিকুল ইসলাম।

দেলদুয়ার উপজেলার আটিয়া ইউনিয়নে মো. মাসুদুল হাসান তালুকদার, দেউলীতে দে. তাহ্্মিনা, পাথরাইলে রামপ্রসাদ সরকার, লাউহাটিতে মো. হাবিবুর রহমান, দেলদুয়ারে মো. মাসুদ-উজ্জামান খান, ডুবাইলে মো. ইলিয়াছ মিয়া, এলাসিন ইউনিয়নে মো. বেলায়েত হোসেন ও ফাজিলহাটিতে মো. শওকত আলী।

মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর উপজেলার বাঘড়া ইউনিয়নে নূরুল ইসলাম, ভাগ্যকুলে কাজী মনোয়ার হোসেন রাড়িখালে মো. বারী (বারেক), বারৈই খালীতে মো. ফারুক হোসেন, কুকুটিয়াতে আক্তার হোসেন মিন্টু, তন্তর ইউনিয়নে মো. জাকির হোসেন, আটপাড়ায় মো. রকিবুল ইসলাম মাসুদ, পাটাভোগে মুন খান, বীরতারায় মো. আজিম খান, শ্যামসিন্ধিতে শফিকুল ইসলাম মামুন, ষোলোঘর ইউনিয়নে মো. আজিজুল ইসলাম, হাঁসাড়ায় মো. আহসান হাবীব ও শ্রীনগর ইউনিয়নে মো. মোখলেছুর রহমান। নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার আলোকবালি ইউনিয়নে মো. দেলোয়ার হোসেন সরকার, চরদিঘলীতে মো. দেলোয়ার হোসাইন। রায়পুরা উপজেলার আমিরগঞ্জ ইউনিয়নে শাহানা বেগম, বাঁশগাড়ীতে মো. আশরাফুল হক, চরসুবুদ্ধি নাসির উদ্দিন, চরমধুয়ায় মো. নূর আলম ফকির, হাইরমারা ইউনিয়নে মো. কবির হোসেন, মির্জানগরে মো. হুমায়ুন কবির সরকার, মির্জারচরে মো. ফিরুজ মিয়া, নিলক্ষায় মো. তাজুল ইসলাম, পাড়াতলীতে মো. ফেরদৌস কামাল ও শ্রীনগর ইউনিয়নে মো. রিয়াজ মোর্শেদ খান।

রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নে আমজাদ হোসেন, উজানচরে মো. গোলজার হোসেন মৃধা। ফরিদপুর জেলা সালথা উপজেলার রামকান্তপুর ইউনিয়নে মো. আশরাফ আলী, যদুনন্দী ইউনিয়নে আ. রব মোল্যা, গট্টিতে হাবিবুর রহমান লাবলু, ভাওয়ালে মো. ফারুকউজ্জামান, সোনাপুরে মো. খায়রুজ্জামান, আঠঘওে মো. শহীদুল হাসান খান, মাঝারদিয়ায় মো. আফছারউদ্দীন মাতুব্বর ও বল্লভদী ইউনিয়নে মো. নুরুল ইসলাম। নগরকান্দা উপজেলার চরযশোরদী ইউনিয়নে মো. কামরুজ্জামান, পুরাপাড়ায় মো. বেলায়েত হোসেন মিয়া, কোদালিয়া শীহীদনগরে খোন্দকার জাকির হোসেন (নিলু), ফুলসুতীতে মো. আরিফ হোসেন, কাইচাইলে মো. মোস্তফা খাঁন, তালমায় রনজিৎ কুমার মণ্ডল, রামনগরে মো. মান্দার ফকির, ডাঙ্গীতে কাজী আবুল কালাম ও লস্করদিয়া ইউনিয়নে মো. এসকেন্দার মাতুব্বর।

গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নে মো. লুৎফর রহমান মিয়া, পারুলিয়া মকিমুল ইসলাম, মাহমুদপুরে মাসুদ রানা, সাজাইলে কাজী জাহাঙ্গীর আলম, কাশিয়ানী মশিউর রহমান খান, রাতইলে বিএম হারুন অর রশিদ পিনু ও রাজপট ইউনিয়নে মিল্টন মিয়া। মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলার বাঁশগাড়ী ইউনিয়নে আবদুল্লাহ আল মামুন, লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নে মো. মজিবর রহমান মোল্যা, চর দৌলতখান ইউনিয়নে মো. চাঁন মিয়া সিকদার, শিকারমঙ্গল ইউনিয়নে মো. সিরাজুল আলম মৃধা, কয়ারিয়ায় মো. জাকির হোসেন, সাহেবরামপুরে মো. কামরুল আহ্সান সেলিম, রমজানপুর বিএম মিল্টন ইব্রাহীম, আলীনগরে সাহীদ পারভেজ, বালিগ্রামে ইসতিয়াক হোসেন খান, নবগ্রামে বিভূতি ভূষণ বাড়ৈ, কাজীবাকাই ইউনিয়নে সাইদুল ইসলাম, ডাসার ইউনিয়নে মো. রেজাউল করিম শিকদার ও গোপালপুর ইউনিয়নে মো. দেলোয়ার হোসেন।

শরীয়তপুর জেলার শরীয়তপুর সদর উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নে আব্দুস সালাম খান, চিতলিয়ায় হারুন-অর-রশিদ, আংগারিয়ায় আসমা আক্তার, ডোমসারে মিজান মোহাম্মদ খান, পালংয়ের আবুল হোসেন দেওয়ান, তুলাসার ইউনিয়নে জামাল হোসাইন, রুদ্রকর ইউনিয়নে সিরাজুল ইসলাম, বিনোদপুরে আব্দুল হামিদ সাকিদার, শৌলপাড়ায় মো. আলমগীর হোসেন খান ও মাহমুদপুর ইউনিয়নে শাহ আলম।

সিলেট বিভাগ : হবিগঞ্জ জেলার আজমিরীগঞ্জ উপজেলার আজমিরীগঞ্জ ইউনিয়নে মো. মোবারুল হোসেন, বদলপুরে সুষেনজিৎ চৌধুরী, জলসুখায় মো. শাজাহান মিয়া, কাকাইলছেওতে মো. মিসবাহ উদ্দিন ভূঁইয়া ও শিবপাশা ইউনিয়নে মো. তফছির মিয়া। মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নে মোহাম্মদ জায়েদ আনোয়ার চৌধুরী, পশ্চিমজুড়ী ইউনিয়নে শ্রীকান্ত দাশ, পূর্বজুড়ীতে আব্দুল কাদিও, গোয়ালবাড়ীতে শাহাব উদ্দিন আহমদ, সাগরনাল ইউনিয়নে মো. আব্দুল নূর। সিলেট জেলার সিলেট সদর উপজেলার, জালালাবাদ ইউনিয়নে মোহাম্মদ ওবায়দুল্লাহ ইছাহাক, হাটখোলায় মো. মুশাহিদ আলী, মোগলগাঁওতে মো. হিরন মিয়া ও কান্দিগাঁও ইউনিয়নে মো. নিজাম উদ্দিন। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর পূর্ব ইউনিয়নে মো. মুল্লুক হোসেন, তেলিখালে মো. নুর মিয়া (চেয়ারম্যান), ইছাকলসে এখলাসুর রহমান, উত্তর রণিখাইতে মো. ফয়জুর রহমান ও দক্ষিণ রণিখাই ইউনিয়নে মো. ইকবাল হুসেন ইমাদ।

বালাগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পৈলনপুর ইউনিয়নে মো. শিহাব উদ্দিন, বোয়ালজুড় ইউনিয়নে আনহার মিয়া, দেওয়ানবাজারে ছহুল আব্দুল মুনিম, পশ্চিম গৌরিপুওে হাজী মো. আমিরুল ইসলাম (মধু), বালাগঞ্জে মো. জুনেদ মিয়া, পূর্ব গৌরিপুরে হিমাংশু রঞ্জন দাস। সুনামগঞ্জ জেলা ছাতক উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নে মো. আব্দুল হেকিম, ছাতকে রঞ্জন কুমার দাস, কালারুকে মো. অদুদ আলম, খুরমা উত্তরে বিল্লাল আহমদ, চরমহল্লায় মো. কদর মিয়া, খুরমা দক্ষিণে আব্দুল মছব্বির, জাউয়াবাজার ইউনিয়নে নুরুল ইসলাম, দোলারবাজারে মো. সায়েস্তা মিয়া, গোবিন্দগঞ্জে সৈদেরগাও সুন্দর আলী, ছৈলা আফজালাবাদে গয়াছ আহমদ।

দোয়ারাবাজার উপজেলার মান্নারগাও ইউনিয়নে অসিত কুমার দাস, পান্ডার গাঁও ইউনিয়নে আব্দুল ওয়াহিদ, দোহালিয়ায় আনোয়ার মিয়া আনু, লক্ষ্মীপুরে মো. আব্দুল কাদিও, বোগলাবাজারে মোহাম্মদ মিলন খান, সুরমায় এমএ হালিম বীরপ্রতীক, বাংলাবাজারে মো. মানিক মিয়া, নরসিংপুর ইউনিয়নে নুর উদ্দিন আহমদ ও দোয়ারাবাজার ইউনিয়নে মো. আব্দুল হামিদ। এছাড়া রাজশাহী বিভাগের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নে মো. আনসারুল হককে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী বাছাইয়ে বেশ সতর্কতা অবলম্বন করছেন মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা। প্রার্থী চূড়ান্ত করার ক্ষেত্রে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের অতীত কর্মকাণ্ড এবং দলের জন্য ত্যাগ কতটা তা বিচার-বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। পাশাপাশি প্রার্থীর জনপ্রিয়তা, স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ইমেজ প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে বিগত নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন কিনা এবং অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এজন্য এবার প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করতে বেশি সময় লাগছে। এছাড়া নারী নেতৃত্ব বাড়াতে অনেক ইউপিতে যোগ্য নারী প্রার্থী পেলে মনোনয়ন দেওয়া হচ্ছে বলেও জানা গেছে।

দ্বিতীয় ধাপের ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে চার হাজার ৪৫৮ জন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন। তাদের মধ্যে থেকেই যাচাই-বাছাই করে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করছে আওয়ামী লীগ। এর আগে শুক্রবার ও শনিবার দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনের বৈঠকে খুলনা, বরিশাল ও ঢাকা বিভাগের ৫টি (ঢাকা, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জ) জেলার দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সভার প্রথম দিন চূড়ান্ত হয় রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের দলীয় প্রার্থী তালিকা। টানা চার দিনের বৈঠকে সব মিলিয়ে ছয়টি বিভাগের প্রার্থী চূড়ান্ত হলো। আজ সোমবার বিকাল ৪টায় গণভবনে আবার বৈঠকে বসবেন দলের মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা। সেখানে বাকি বিভাগগুলোর প্রার্থী বাছাই করা হবে।

কেন্দ্রে অভিযোগের পাহাড় : এদিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রে অভিযোগের পাহাড় জমেছে। প্রতিদিনই তৃণমূল নেতারা এসব অভিযোগ আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে জমা দিচ্ছেন। পাশাপাশি মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছেও এসব অভিযোগের কপি জমা দিচ্ছেন তারা। লিখিত এসব অভিযোগপত্রে মনোনীত এবং মনোনয়ন প্রত্যাশীদের বিরুদ্ধে বিএনপির নেতা, রাজাকারের সন্তান-নাতি, ইয়াবা ব্যবসায়ী, হত্যা মামলার আসামিসহ বিতর্কিত নানা অভিযোগ তোলা হচ্ছে। তাদের দাবি এতে বঞ্চিত হয়েছেন দলের নিবেদিত ও ত্যাগী নেতারা।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার রাজগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান সেলিমকে দলীয় মনোনয়ন না দেওয়ার দাবিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির কার্যালয়ে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছেন ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক বাবু পুলক ভুইয়া। অভিযোগপত্রে তার বিরুদ্ধে ‘সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় জড়িত থাকা’ এবং ‘নারী নির্যাতন মামলা’র আসামির অভিযোগ আনা হয়েছে।

এদিকে কেন্দ্রে অভিযোগ দিয়েও প্রতিকার না পাওয়ায় রোববার সকালে ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে পটুয়াখালী জেলার আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের একটি গ্রুপ বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় তারা প্রতিবাদের অংশ হিসাবে ‘বিএনপির হাতে নৌকা কেন’ স্লোগান দিতে থাকে।

Read previous post:
আজ আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস

তৃতীয় মাত্রা আন্তর্জাতিক কন্যাশিশু দিবস আজ সোমবার। প্রতি বছরের মতো বিশ্বজুড়ে পালিত হচ্ছে দিবসটি। তথ্যপ্রযুক্তিতে কন্যাশিশুদের দক্ষতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ...

Close

উপরে