Logo
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০ | ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

এমপিও নীতিমালা সংশোধনী চূড়ান্তকরণে আবারও সভা কাল

প্রকাশের সময়: ৮:৪৭ অপরাহ্ণ - মঙ্গলবার | আগস্ট ৪, ২০২০

তৃতীয় মাত্রা

বেসরকারি স্কুল-কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামোর কয়েকটি ধারা ও উপধারা সংশোধনী চূড়ান্তকরণের পরবর্তী সভা আগামীকাল বুধবার (৫ আগস্ট) অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে এমপিও নীতিমালার সংশোধনী চূড়ান্তকরণে কয়েকদফা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বলেন, নীতিমালার বেশ কিছু দিক নিয়ে আমরা কাজ করছি। ইতোমধ্যেই নীতিমালা চূড়ান্ত করনের কয়েকদফা সভা হয়েছে। নীতিমালা সংশোধনের যেসব দিক আগের সভাগুলোতে উপস্থাপন করা সম্ভব হয়নি, সেগুলো নিয়ে ফের আগামী ৫ আগস্ট সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে ৪ আগস্ট এমপিও নীতিমালা সংশোধনী চূড়ান্তকরণের সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। সভায় তিনি বলেন, যে সমস্থ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব জমি নাই সে রকমের প্রতিষ্ঠানকে ভবিষ্যতে আর এমপিও দেয়া হবে না। ইতোমধ্যে ভাড়া বাড়িতে স্থাপিত যে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিও প্রদান করা হয়েছে তাদেরকে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে নিজস্ব জায়গায় প্রতিষ্ঠান স্থানান্তর করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, কোন ট্রাস্ট বা সংস্থা দ্বারা পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ট্রাস্ট বা সংস্থার সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে এমপিওভুক্ত করা হবে। এই রকমের যে সকল প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে এমপিওভুক্ত হয়েছে ট্রাস্ট যদি না চায় তাহলে সেসকল প্রতিষ্ঠানের এমপিও বাতিল করা হবে। ঐসব প্রতিষ্ঠানে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা চাইলে অন্য এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে পারবেন। অথবা আগের প্রতিষ্ঠানে থেকে যেতে পারবেন। তাছাড়া ভবিষ্যতে ট্রাস্টের কোনো প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করতে হলে ট্রাস্টের পূর্বানুমোদন নিতে হবে।

গত বছরের শেষ দিকে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের মধ্য থেকে দাবি বিদ্যমান নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনের উদ্যোগ নেয় সরকার। এ লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কমিটি গঠন করে। কমিটি গত জুন মাসে নীতিমালা সংশোধনের সুপারিশ প্রতিবেদন তৈরি করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির কাছে জমা দেয়।

গত ১২ নভেম্বর বেসরকারি স্কুল ও কলেজের এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে ১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের বেসরকারি মাধ্যমিক শাখার অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদকে কমিটির আহ্বায়ক করা হয়। কমিটিতে নন-এমপিও শিক্ষক নেতারাও সদস্য হিসেবে ছিলেন। তবে, প্রথম দিনে তারা কিছু লিখিত বক্তব্য দিয়েছেন। তাদের পক্ষ থেকে ওটাই প্রথম ও শেষ ভূমিকা। এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় সংস্কারের সুপারিশ করতে বলা হয়েছিল এ কমিটিকে। এরপর এ লক্ষ্যে পাঁচটি সভা করে কমিটি।

গত ১১ মার্চ এমপিও নীতিমালা কমিটির পঞ্চম সভা, ৭ জানুয়ারি চতুর্থ সভা, ২২ ডিসেম্বর তৃতীয় সভা, ১২ ডিসেম্বর দ্বিতীয় সভা এবং ৪ ডিসেম্বর এমপিও নীতিমালা ও জনবল কাঠামো সংশোধনে গঠিত কমিটির প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাগুলোর আলোচনা নিয়েই এমপিও নীতিমালা সংশোধনের লিখিত সুপারিশ তৈরি করা হয়েছে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র।

Read previous post:
রাশিয়া ‘কোটি ডোজ’ করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদন করবে

তৃতীয় মাত্রা করোনাভাইরাসে একটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের বড় আকারে উৎপাদন আগামী মাসে শুরু করবে রাশিয়া। সোমবার এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। একই...

Close

উপরে