Logo
বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২০ | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

‘বাজেট বুঝিনা, কমদামে খাইতে চাই’

প্রকাশের সময়: ৪:১৯ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | জুন ১৮, ২০২০

currentnews

আমতলী (বরগুনা)থেকে আবু সাইদ খোকন : প্রতিবছর প্রস্তবাবিত বাজেট ঘোষণার পর আমতলীসহ উপকূলের সাধারণ মানুষদের মধ্যে উদ্বেগ মধ্যে থাকে। আমতলীসহ উপকূলীয় এলাকার সাধারন মানুষের বাজেট ভাবনায় তারা বলেন মোরা গরীব মানুষ মোগো আবার বাজেট কির? আমরা বাজেট দিয়া কি করমু? আমরা বাজেট বুঝিনা কম দামে খাইতে চাই। কারণ, বাজেট ঘোষণার পর পরই অনেক অসাধু ব্যবসায়ী নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়িয়ে দেয়। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ায় এর প্রভাব পড়ে মানুষের জীবন-জীবিকায়। বাজেট প্রতিক্রিয়া কি জানতে চাইলে এ ভাবেই বললেন জলিল মিয়া (৪৫) উপজেলার পূর্বচিলা গ্রামে তার বাড়ী দুপুরে আমতলী পৌরসভার সামনে তার সাথে কথা হয়। তার কথ্য মতে সাধারন মানুষ বাজেট নিয়ে ভাবেনা। তারা কোন রকম ডাল ভাত খেয়ে জীবন যাপন করতে চায় । অভাবের সংসারে বাজেট নিয়ে চিন্তা করার সময় নাই তাদের।
বাজেট কি ? এমন প্রশ্নের জবাবে গৃহিনী নাসিমা আক্তার সীমা (২৫)বলেন বাজেট কি বুঝিনা । মানষের দ্বারে হুনি বাজেট অইলে জিনিস পত্রের দাম বাড়ে।
বৃহস্পতিবার কথা হয় আমতলী নুতুন বাজার বটতলার ক্ষুদ্র দোকানদার নজরুল ইসলাম রাজা তালুকদারের সাথে তিনি বলেন, বাজেট তো সাধারণ মানুষের জন্য। তাই সরকারের কাছে দাবি, বাজেট যেন জনবান্ধব হয়।’
মো. আসাদুজ্জামান নামে একজনের সাথে আলাপকালে জানা গেছে তিনি একটি ছোট্র চাকরি করেন ।স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে পৌরএলাকায় বসবাস করেন। ১০ হাজার টাকা বেতন পান তা দিয়ে বাসা ভাড়া ও সংসারের খরচ চালান।কিন্তু জাতীয় বাজেট ঘোষনার সাথে সাথে উপকূলীয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপন্যর দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন । বাজেটে দাম বাড়বে এমনঅজুহাতে নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্নপন্য ক্রয় করতে হয়েছে ক্রেতাদের । তাই ব্যবসায়ীদের কাছে অনেকটা জিম্মি হয়ে পড়েছেন সাধারন মানুষ।
আমতলী নুতন বাজারের চা ব্যবসায়ী মো. নজরুল ইসলাম বলেন বাজেট এলেই পন্যর দাম বাড়িয়া যায়, চা পাতাসহ বিভিন্ন পন্যর দাম বেড়ে যায়। তবে তিনি বেশি দামে বিক্রি করতে পারছেন না।তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন বাজেট মানেই গরীবের পেটে লাথি মারা । বাজেট ঘোষাণার পর উপকূলের গরীব খেটে খাওয়া মানুষরা বলেছেন বাজেট আবার কি,মোরা কি দিনে তিন বার ভাত খাইতে পারমু?এমনই কথা বললেন আমতলী পৌর শহরের ক্ষুদে দোকানদার জসিম উদ্দিন ।
আমতলী চৌরাস্তায় বসে কথা হয় গণমাধ্যমকর্মী আমতলীেিরাপটার্স ইউনিটির সাধারন সম্পাদক মো. হায়াতুজ্জামান মিরাজের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘বাজেটে মোবাইল টেলিফোন সেবার ওপর আরোপিত সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ১০ শতাংশ করা হয়েছে। যা মোবাইল ফোন অপারেটর ও সার্ভিসের ওপর কার্যকর করা হয়েছে। এর প্রভাব পড়বে সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকায়।’ যারা মোবাইল ফোনে কম কথা বলে তাদের বাদ দিয়ে যারা বেশি কথা বলে তাদের জন্য ভ্যাট বৃদ্ধির দাবি জানান তিনি।
তিনি আরো বলেন, ‘বাজেটের টাকা সাধারণ জনগণের কাছ থেকে ছাড়া আর কোথা থেকে আসবে? পরোক্ষ কর বাড়ানোর ফলে দ্রব্যমূল্য বাড়বে ।
আমতলী সরকারী কলেজের ছাত্র নিয়ামুল হক বলেন, ‘দেশের অধিকাংশ মানুষই মধ্যবিত্ত। তাদের জন্য মূল্য সংযোজন কর যত কম রাখা যায় ততোই ভাল। শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে বাজেট বাড়ানো উচিৎ।
’আমতলী পৌর এলাকায় হেটে হেটে পান সিগারেট বিক্রি করেন নয়ন মিয়া বলেন, ‘সিগারেটের দাম বাড়বে হুনছি । বাজেটে প্রতিবছর সিগারেটের দাম বাড়ে। এবারও বেড়েছে। আরও বাড়বে বলে জানতে পেরেছি। বেনসন সিগারেট প্রতি শলাকা ২০ টাকা, গোল্ডলিফ ১৫ টাকা হবে। এর পরেও মানুষ খাবে।’
তবে সরকার জনবান্ধব বলে জনতার কথা চিন্তা করেই বাজেট ঘোষণা করেছেন এমনটাই বললেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদ পৌর মেয়র মো. মতিয়ার রহমান বাজেট বাস্তবায়ন হবে বলে তিনি আশাবাদী। তিনি উপমায় বলেন, মানুষ এখন কর দিচ্ছে অপরদিকে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা সোচ্চার রাজস্ব আদায়ে। সবমিলিয়ে বাস্তবায়িত হবে এবারের বাজেট।
আমতলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম সরোয়ার ফোরকান বলেন ,সরকার এক টি যুগ উপযোগি বাজেট প্রনয়ন করেছেন এ বাজেটের মাধ্যমে সাধারন মানুষ উপকৃত হবে। মহামহারী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় এ বাজেট যুগউপযোগি বাজেট।

Read previous post:
বাংলাদেশে অফিস শুরু করবে ভিসা

তৃতীয় মাত্রা বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় পেমেন্ট টেকনোলজি প্রতিষ্ঠান ভিসা ঢাকায় তাদের স্থানীয় লিয়াজোঁ অফিস চালু করার পরিকল্পনা করেছে। চলতি বছর শেষ...

Close

উপরে