Logo
রবিবার, ৩১ মে, ২০২০ | ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

খরচ সামলাতে না পেরে ঢাকা ছাড়ছেন তারা, বিপাকে বাড়িওয়ালারা

প্রকাশের সময়: ১:৫৭ পূর্বাহ্ণ - রবিবার | মে ২৪, ২০২০
সংগৃহীত ছবি

তৃতীয় মাত্রা

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে রাজধানীতে বাসাভাড়া ও সংসার খরচ চালিয়ে টিকে থাকা অনেকের জন্য দায় হয়ে পড়েছে। ছোটখাটো চাকরি বা ব্যবসা করে যারা ঢাকা শহরে সংগ্রাম করে এতদিন কোনোরকমে টিকে ছিলেন, তারা চোখে সর্ষেফুল দেখছেন। আয় নেই তবে ব্যয় ঠিকই আছে এই শহরের বসবাসে। ফলে সংসার চালানো অনেকের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। তার উপর নিত্য পণ্যের বাজারে দাম-দরের কোন ঠিক ঠিকানা নেই। একেক দিন একেক জিনিষের দামে বিশাল হের ফের হচ্ছে বলছেন তারা। তাই সংসারের এই বাড়তি খরচ সামলাতে না পেরে ঢাকা ছাড়ছেন তারা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে হয়তো আবার ফিরে আসবেন এই শহরমুখী জীবনে। অপরদিকে বিপাকে পড়ছেন বাড়িওয়ালারা।

রাজধানীর পল্লবীস্থ এক বাড়িওয়ালা জুলহাস এই প্রতিবেদককে বলেন, মাসে ৪২হাজার টাকা হাউজ বিল্ডিং এর ঋণ পরিশোধ বাবদ কিস্তি দিতে হয়। এই করোনায় তার সোয়া এক কাঠার ছয় তলা বাড়ির অর্ধেকটাই খালি। ভাড়াটিয়ারা সব তালা মেরে গ্রামে চলে গেছে, কবে যে আসবে কে জানে। তবে ঋণের টাকা পরিশোধ কিন্তু থেমে নেই। থেমে নেই সুদের হারও যা কিনা তাকে চক্রবৃদ্ধি হারে পরিশোধ করতে হয়!

অন্যদিকে ভাড়াটিয়াদের অবস্থা তো এমন যে, সর্বস্ব বিক্রি করেও সমস্ত দেনা পরিশোধ করা যাচ্ছেনা। উপায়ন্তর না দেখে গ্রামের বাড়িতেই আশ্রয় নিতে ঢাকা ছাড়ছেন তারা। সেই ধারাবাহিকতায় দেশের একটি জনপ্রিয় অনলাইন গণমাধ্যমের বরাতে জানা যায়, শুক্রবার ভ্যানে করে দুটি চৌকি নিয়ে যাচ্ছিলেন পেশায় রিকশাচালক সিরাজুল ইসলাম ও তার স্ত্রী। পেশায় গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন তার স্ত্রী। করোনার তথাকথিত লকডাউনে আয় রোজগার কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়ে গৃহকর্তা গ্রামের বাড়িতে চলে গেছেন। গৃহপরিচারিকার বেতনের টাকা দিতে না পেরে বাসার চৌকি দুটি দিয়ে বেতন পরিশোধ করার চেষ্টা করেছেন। পরিস্থিতির উন্নতি হলে ফিরে এসে আবার তাকে কাজে রাখবেন এবং বাকি পাওনা পরিশোধ করবেন বলেও কথা দেন। এই হল রাজধানী ঢাকার বর্তমান বাস্তবতা।

আরেক বাড়ির মালিক জানান, তার ছয়তলা বাড়ির পুরোটাই ব্যাচেলরদের ভাড়া দিয়েছিলেন। করোনায় গত দুই মাসে সব ভাড়াটিয়া গ্রামে চলে গেছে। এখন বাসাভাড়া তো দূরের কথা অন্য কোন উপায়ে একটি টাকাও পাননি বলে তিনি জানান। হঠাৎ করে এমন পরিস্থিতিতে যে তিনি পড়বেন তা জীবনেও কল্পনাও করেননি।

-জিয়াউদ্দিন খন্দকার

Read previous post:
ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে গৃহহারাদের ঘর তুলে দিচ্ছে সেনাবাহিনী

তৃতীয় মাত্রা ঘুর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে পটুয়াখালীর কলাপাড়াস্থ গৃহহারাদের পূণর্বাসনে এগিয়ে এসেছে সেনাবাহিনী। বরিশাল শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের অন্তর্গত সপ্তম পদাতিক ডিভিশনের...

Close

উপরে