Logo
বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২০ | ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

করোনায় চাকরি হারানোদের ৪ মাসের বেতন দেবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশের সময়: ৫:২৯ অপরাহ্ণ - বৃহস্পতিবার | মার্চ ২৬, ২০২০

তৃতীয় মাত্রা

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের কারণে যারা চাকরি হারিয়েছেন সেসব লোকজনকে চার মাসের বেতন দেওয়া হবে। তাদের প্রত্যেকের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যেই এই অর্থ প্রেরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী স্টিভ মুচিন। হোয়াইট হাউস থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে মুুচিন বলেন, আমরা আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে চাকরি হারানোদের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দিতে পারব বলে আশা করছি।

সম্প্রতি করোনা সঙ্কটে মার্কিন অর্থনীতি ও কোটি কোটি মানুষের জন্য দুই ট্রিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজের একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে হোয়াইট হাউস এবং সিনেট। বেকারদের অ্যাকাউন্টে যে অর্থ প্রেরণ করা হবে তা ওই চুক্তির আওতা থেকেই প্রদান করা হবে।

করোনার কারণে দেশটির সঙ্কোচনশীল অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে এই প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে। মহামারির কবলে স্বাস্থ্য সেবা, ব্যবসা-বাণিজ্য এবং মার্কিন সাধারণ জনগণকে সহায়তা করতে এই অর্থ বিশেষ সহায়ক হবে।

এছাড়া করোনায় বিপর্যস্ত এলাকার জনগণকে এই অর্থ সহায়তা দেয়া হবে। হাসপাতালের জন্য নেওয়া মার্শাল পরিকল্পনাতেই প্রণোদনার ১৩০ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করা হবে।

পাঁচদিনের টানা ও উত্তেজনাপূর্ণ আলোচনার পর বুধবার যুদ্ধকালীন পর্যায়ের এই বিনিয়োগ চুক্তিতে পৌঁছানো সম্ভব হয়েছে। এ বিষয়ে সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেন, অবশেষে আমরা একটি চুক্তিতে পৌঁছেছি।

সিনেটে ডেমোক্র্যাট দলীয় শীর্ষ নেতা চাক শুমার বলেন, আমেরিকার ইতিহাসের বৃহত্তম উদ্ধার প্যাকেজ নিয়ে আমাদের দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে। তিনি বলেন, নিজেদের কোনও দোষ না থাকলেও অসংখ্য মানুষকে কর্মহীন হতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, ভবিষ্যতে কী হবে, তারা কীভাবে বিল পরিশোধ করবেন সে ব্যাপারে জানেন না। আমরা এখন তাদের উদ্ধার করতে এসেছি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বাক্ষরের আগে এই বিলটি এখন দেশটির প্রতিনিধি পরিষদ এবং সিনেটে পাস করতে হবে।

সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই। দেশটিতে একদিনেই নতুন করে আরও ১১ হাজার ১৯২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। ফলে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৬ হাজার ৪৮।

অপরদিকে, নতুন করে ১৬৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে দেশটিতে এখন পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছে মোট ৯৪৪ জন। এছাড়া হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৯৪ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের সবগুলো অঙ্গরাজ্যেই করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, বৈশ্বিক মহামারির পরবর্তী কেন্দ্র হতে পারে যুক্তরাষ্ট্র। অর্থাৎ ইতালির মতোই ভয়াবহ চিত্র হতে পারে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনার কারণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্য।

শুধুমাত্র নিউইয়র্ক সিটিতেই ২০ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন নার্সসহ ২৮০ জন মারা গেছেন। আর পুরো নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩ হাজার ৬৭ জন।

Read previous post:
ঘরে বসেই করোনার বিরুদ্ধে দুর্গ গড়ার আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের

ফাইল ছবি তৃতীয় মাত্রা ঘরে বসেই সচেতনতার মাধ্যমে করোনার বিরুদ্ধে ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ...

Close

উপরে