Logo
শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১ | ৪ঠা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পাইকগাছায় করোনা ভাইরাস রোধে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ

প্রকাশের সময়: ৭:২৩ অপরাহ্ণ - সোমবার | মার্চ ২৩, ২০২০

তৃতীয় মাত্রা

ইমদাদুল হক, পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি : করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আগাম সর্তকতা মূলক পদক্ষেপ নিয়েছে। হাসপাতালের ৫ শয্যার আইসোলেশন কর্ণার আছে পাশাপাশি সরকারী ডাকবাংলা কে আইসোলেশন ইউনিট হিসাবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। হাসপাতালে সেনেটারী পরিদর্শক উদয় মন্ডল কে প্রতিদিন হাসপাতাল বহিঃর্বিভাগে আগত রোগীদের করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতনামূলক লিফলেট, তথ্য ও পরার্মশ দিতে দেখা যায়। ইতোমধ্যে আমাদের দেশে ৩৩ জনের করোনাভাইরাস সনাক্ত হয়েছে। দেশে করোনাভাইরাস ঠেকাতে সরকার ব্যাপক পদক্ষেপ নিয়েছে। করোনাভাইরাসের কোন প্রতিকার নেই, প্রতিষেধক নেই, তাই প্রতিরোধের উপর জোর দেয়া হয়েছে। এর অংশ হিসেবে বিভিন্ন পর্যায় ও এঘটনার প্রেক্ষিতে আইইডিসিআর (জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান) নানা সর্তকতামূলক পরামর্শ দিয়ে চলেছে। প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ডাঃ মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা প্রতিদিন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জনসাধারণকে নানা পরার্মশ দিয়ে চলেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আগাম প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, এত ঝুঁকির মধ্য থেকেও স্বাস্থ্য সেবা দাতারা বিশেষতো ডাক্তার, নার্সগণ আছে চরম ঝুঁকিতে। কারণ বহিঃর্বিভাগে শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা নিয়ে যত রোগী আসে উনারা নিজস্ব কোন সুরক্ষা ব্যবস্থা ছাড়াই স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। একই চিত্র জরুরী ও অন্তঃবিভাগেও যা কোভিড-১৯ অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, পাইকগাছায় ইতালি, চীন, জার্মানি, দক্ষিন কোরিয়া, আস্ট্রেলিয়া, ভারতসহ বিদেশ ফেরত ৬৭ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। তাদের ভিতর ভারত ফেরতের সংখ্যা বেশী। তাদেরকে নজর দারিতে রাখা হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তার নির্দেশনায় মেডিকেল টিম পরিদর্শন পূর্বক পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। উপজেলায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। ১০টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যানদের নিয়ে মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সাথে সর্বক্ষণ যোগাযোগ রাখচ্ছেন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নীতিশ চন্দ্র গোলদার জানান, শুরুতেই চীনে এটি ধরা পরার অর্থাৎ এখান থেকে ২ মাস পূর্ব থেকে এখানে ৫ বেডের আইসোলেশন কর্ণার সব সময় প্রস্তুত ছিল এখনও আছে। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় এই হাসপাতালে ৫ শয্যার আইসোলেশন কর্ণার আছে পাশাপাশি সরকারী ডাকবাংলা কে আইসোলেশন ইউনিট হিসাবে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তিনি কোন গুজবে কান না দিয়ে বিদেশ ফেরতদের বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। বিদেশ ফেরতদের সর্দি-কাশি হলেই আইইডিসিআর-এর দেয়া হটলাইনে যোগাযোগসহ হাসপাতালে আসার পরামর্শ দিয়েছেন। যথাসম্ভব জনসমাগম এড়িয়ে চলা, কোলাকুলি না করা, করমর্দন না করা, ঘনঘন সাবান দিয়ে ২০ সেকেন্ড হাত ধোয়া, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার, যেকোনো খাবার ভালভাবে রান্না করাসহ নানা সর্তকতা অবলম্বনের তাগিদ দিয়েছেন তিনি।

Read previous post:
লকডাউন না মানলে জেল, করোনা নিয়ন্ত্রণে কঠোর ঘোষণা মোদির

তৃতীয় মাত্রা লকডাউন পরিস্থিতি যারা মানবেন না তাদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বার...

Close

উপরে