Logo
মঙ্গলবার, ১৯ জুন, ২০১৮ | ৫ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

তামাকপণ্য রফতানিতে শুল্ক প্রত্যাহার জমির উর্বরা শক্তি কমাবে—বিসিআই

প্রকাশের সময়: ১২:১৫ অপরাহ্ণ - রবিবার | জুন ১০, ২০১৮

তৃতীয় মাত্রা :

রফতানিতে শুল্ক প্রত্যাহার করা হলে দেশে তামাকপণ্যের চাষ বাড়বে। এর ধারাবাহিকতায় জমির উর্বরা শক্তি হ্রাস পাবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই)। সংগঠনটির পক্ষ থেকে গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দেয়া বাজেট প্রতিক্রিয়ায় এ আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়।

বিসিআই বোর্ডরুমে গতকাল বেলা ১১টায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেটের ওপর আলোচনার জন্য এক সভার আয়োজন করা হয়। বিসিআই সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধূরী বাবু এতে সভাপতিত্ব করেন। সভায় প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনার পর প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা হয়।

প্রতিক্রিয়ায় বিসিআই বলেছে, প্রস্তাবিত বাজেটে জ্বালানি অবকাঠামো খাতে ২৪ হাজার ১৭৩ কোটি ও যোগাযোগ অবকাঠামো খাতে ৪৫ হাজার ৪৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এখন অবকাঠামো খাতের উন্নয়ন প্রকল্পগুলো যেন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করা যায় এবং উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর কাজের গুণগত মান যাতে নিশ্চিত করা যায়, সে বিষয়ে সরকারের নজরদারি বাড়ানো প্রয়োজন। এসব বিষয়সহ পুরো বাজেট বাস্তবায়নে সরকারকে উচ্চমানের দক্ষতা, জবাবদিহিতা এবং সুলভ অর্থায়ন নিশ্চিত করতে হবে। অর্থবছরের শেষ তিন মাসে প্রকল্পের কাজ শেষ করার প্রবণতা থেকে বের হয়ে আসতে হবে।

বিসিআইর মতে, রাজস্ব আদায়ের প্রবৃদ্ধি বেশ কয়েক বছর ধরে ১৪-১৭ শতাংশ হারের বেশি ছিল না। এর পরেও প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা গত অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের তুলনায় প্রায় ৩৩ শতাংশ বাড়িয়ে ধরা হয়েছে, যা বাস্তবসম্মত নয়। ফলে উৎপাদনশীল খাতে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

রাজস্ব আয়ের প্রবৃদ্ধি ১৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার প্রস্তাব করে বিসিআই বলছে, বাজেটে করজাল বৃদ্ধির কোনো ঘোষণা নেই। ফলে নিয়মিত করদাতাদের ওপরই চাপ বেশি পড়বে। তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর সেবা এবং আমদানি পর্যায়ে অগ্রিম মূসক বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর প্রভাবও নেতিবাচক হবে।

বিসিআই জানিয়েছে, প্রস্তাবিত বাজেটে তামাকপণ্যে শুল্ক-কর বাড়ানো হলেও রফতানিতে শুল্ক প্রত্যাহারের প্রস্তাব করা হয়েছে। এটি অত্যন্ত জনস্বাস্থ্যবিরোধী একটি পদক্ষেপ। এতে তামাক চাষ বাড়বে। এর ধারাবাহিকতায় জমির উর্বরা শক্তি আশঙ্কাজনক হারে হ্রাস পাবে এবং দেশের খাদ্যনিরাপত্তা হুমকির মুখে পড়বে। ২০৪০ সালের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার নির্দেশনাও উপেক্ষিত হবে।

করমুক্ত আয়ের সীমা ৩ লাখ ৫০ হাজারে উন্নীত করার প্রস্তাব করেছে বিসিআই। করপোরেট করহার নিয়ে সংগঠনটি বলেছে, প্রস্তাবিত বাজেটে করপোরেট করহারে শুধু ব্যাংক ও আর্থিক খাতের জন্য আড়াই শতাংশ কমানো হয়েছে। যেসব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান স্প্রেড ৩ শতাংশের মধ্যে রাখবে এবং কৃষি, শিল্প, রফতানি, এসএমই ও নারী উদ্যোক্তা খাতে বিনিয়োগ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করবে, কেবল সেসব ব্যাংককেই এ সুবিধা দেয়া যেতে পারে।

সংগঠনটির দাবি, বেশকিছু বড় চ্যালেঞ্জ রয়েছে; যেমন— ব্যাংকিং খাতের সমস্যা, বিনিয়োগে স্থবিরতা, কর্মসংস্থান সৃষ্টি না হওয়া, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের প্রস্তুতি, চলতি হিসাবে ঘাটতি ইত্যাদি। এসব বড় চ্যালেঞ্জের জন্য সুনির্দিষ্ট সংস্কার কর্মসূচির প্রয়োজন রয়েছে।

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Read previous post:
সানেম বাজেটে কাঠামোগত সংস্কারের কোনো দিকনির্দেশনা নেই

তৃতীয় মাত্রা : ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে কাঠামোগত কোনো সংস্কারের দিকনির্দেশনা নেই। জাতীয় সংসদে উত্থাপিত বাজেট প্রস্তাবনা নিয়ে প্রতিক্রিয়ায় সাউথ...

Close

উপরে